নড়িয়ায় সেপটিক ট্যাংকে প্রাণ গেল ২ তরুনের: আহত ৩

সেপটিক ট্যাংকে

খোরশেদ আলম বাবুল, শরীয়তপুর প্রতিনিধি :: শুক্রবার দুপুরে সেপটিক ট্যাংকে পড়ে শাহাদত গোরাপী ও তারেক খান নামে দুই তরুনের জীবনহানী ঘটেছে। এ ঘটনায় রুবেল, অপু বাছার ও আজিজুল বাছার নামে আরও তিন জন গুরুতর আহত হয়েছে। আহতদের শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গুরুতর আহত আজিজুল বাছারকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।

নড়িয়া থানা ও নিহত তরেকের চাচা স্বপন খান জানায়, শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ভোজেশ্বর ইউনিয়নের পাঁচক গ্রামের সালাউদ্দিন গোরাপী তার নির্মানাধীন ভবনের সেপটিক ট্যাংকে শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে প্রথমে তার বড় ভাই শাহালম গোরাপীর ছেলে শাহাদাতকে নামায়। শাহাদাত ট্যাংকির ভিতরে অসুস্থ হয়ে পড়লে একই এলাকার লিটন খানের ছেলে তারেক শাহাদাতকে উদ্ধার করতে ট্যাংকির ভিতরে নামে। সেখানে তারেকও অসুস্থ হয়ে পড়ে। শাহাদত ও তারেককে উদ্ধার করার জন্য আবু বাছারের ছেলে অপু, আনোয়ার বাছারের ছেলে আজিজুল ও কাদেরের ছেলে রুবেল ট্যাংকিতে নেমে শাহাদাত ও অপুকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

পরবর্তীতে উদ্ধারকারী অপু, রুবেল ও আজিজুলও অসুস্থ হয়ে পড়ে। স্থানীয়রা শাহাদত, তারেক, রুবেল, অপু ও আজিজুলকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতারে জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক শাহাদাত ও তারেককে মৃত্যু ঘোষণা করেন এবং রুবেল, অপু ও আজিজুলকে ভর্তি করে চিকিৎসা প্রদান করছেন।

কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. তোফায়েল আহমেদ জানিয়েছেন, অক্সিজেনের অভাবে রোগীরা অসুস্থ হয়ে পড়ে। হাসপাতারে নিয়ে আসা শাহাদত ও তারেকের মৃত্যু ঘোষণা করা হয়েছে। ভর্তি রোগীদের জীবন এখনও শঙ্কা মুক্ত নয়। এদের মধ্যে গুরুতর অসুস্থ আজিজুলকে ঢাকায় প্রেরণের পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে।

পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসলাম উদ্দিন বলেন, হাসপাতালের জরুরী বিভাগে দুইটি মরদেহ আছে। নিহতদের সুরতহাল প্রতিবেদন করে ময়নাতদন্তের ব্যবস্থা চলছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

৮ দফা দাবিতে বাগেরহাট ম্যাটস শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

মোঃ শহিদুল ইসলাম, বাগেরহাট প্রতিনিধি :: যৌন হয়রানি বন্ধসহ ৮ দফা দাবিতে ...