মুজাহিদুল ইসলাম সোহেল, নোয়াখালী প্রতিনিধি ::

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলায় শহীদ জয়নাল আবেদীন সরকারি মডেল উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষায় প্রক্সি দিতে এসে ধরা পড়েছেন এক তরুণ। পরে ওই তরুণকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এক বছর ও এক হাজার টাকা অনাদায়ে ৩দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) চৈতী সর্ববিদ্যা।

আজ বৃহস্পতিবার শহীদ জয়নাল আবেদীন সরকারি মডেল উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

দণ্ডপ্রাপ্ত ওই তরুণের নাম আলমগীর হোসেন (১৯)। তিনি উপজেলার সৈকত সরকারী কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ও এবারের এইচএসসি পরীক্ষা। সে উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নের চরপ্না উল্যাহ গ্রামের আক্তার হোসেনের ছেলে।

পরীক্ষাকেন্দ্রের সচিব ও বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক কাজী নজরুল ইসলাম বলেন, উপজেলার চরজুবিলী ইউনিয়নের হাবিব উল্যাহ মিয়ার হাট উচ্চবিদ্যালয়ের তাঁর খালাতো ভাই এক পরীক্ষার্থীর গণিতের পরীক্ষার প্রক্সি দিতে হলে বসেন আলমগীর হোসেন। পরীক্ষা শুরুর প্রথম কয়েক মিনিট পর কেন্দ্রের দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাকে আলমগীরের বিষয়টি জানান। এরপর রেজিস্ট্রেশন কার্ড ও প্রবেশপত্র যাচাই-বাছাই করে ওই খাতা বাতিল করা হয় এবং আসল পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়। একই সঙ্গে আলমগীরকে আটকের পর ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ১ বছরের এবং ১ হাজার টাকা অনাদায়ে ৩দিনের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এর আগেও সে একই কেন্দ্রে ইংরেজী দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা দেয়ার কথা স্বীকার করেন।

উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও চৈতী সর্ববিদ্যা বলেন, দণ্ডপ্রাপ্ত ওই তরুণকে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। যে পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে, তাঁকেও বহিষ্কার করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here