স্টাফ রিপোর্টার :: করোনাভাইরাসের উপসর্গ দেখা দেয়ায় বাঁচার লড়াই করতে তারা ভর্তি হয়েছিলেন হাসপাতালে। অথচ সেই হাসপাতালে তাদের মৃত্যু হলো অগ্নিকাণ্ডে। রাজধানীর গুলশানের বেসরকারি ইউনাইটেড হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে ভর্তি পাঁচ রোগীকে প্রাণ দিতে হলো আগুনের ধোঁয়ায় শ্বাসরুদ্ধ হয়ে।

অগ্নিকাণ্ডের বিষয়ে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাজ্জাদ হোসাইন জানান, বুধবার (২৭ মে) রাত ৯টা ৫৫ মিনিটে হাসপাতালটিতে আগুন লাগলে খবর পেয়ে তাদের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে কাজ করে তা নিয়ন্ত্রণে আনে।

বুধবার (২৮ মে) ইউনাইটেড হাসপাতালের চিফ অব কমিউনিকেশনস অ্যান্ড বিজনেস ডেভলপমেন্ট ডা. সাগুফা আনোয়ারের বরাত দিয়ে পাঠানো এক বার্তায় নিহতদের পরিচয় শনাক্ত করা হয়।

নিহতদের মধ্যে চার জন পুরুষ ও এক জন নারী রয়েছেন। এরা হলেন-রিয়াজুল আলম (৪৫), খোদেজা বেগম (৭০), ভেরুন অ্যান্থনি পল (৭৪), মো. মনির হোসেন (৭৫) ও মো. মাহবুব (৫০)।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, বুধবার আনুমানিক রাত সাড়ে ৯টার দিকে হাসপাতাল সংলগ্ন তবে মূল ভবনের বাইরে করোনা আইসোলেশন ইউনিটে সম্ভবত বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। কয়েক মিনিটের মধ্যেই আগুন আইসোলেশন ইউনিটের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে সে সময় আবহাওয়া খারাপ ছিল ও বিদ্যুৎ চমকাচ্ছিল। বাতাসের তীব্রতায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় দুর্ভাগ্যজনকভাবে এখানে ভর্তি ৫ জন রোগীকে বাইরে বের করে আনা সম্ভব হয়নি। তারা ভেতরে মৃত্যুবরণ করেন। তবে এই আইসোলেশন ইউনিটে ৫ জনের সবাই করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি ছিলেন। অগ্নিকাণ্ডের কারণ অনুসন্ধানে দমকলবাহিনী তদন্ত করছে এবং ইউনাইটেড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের পূর্ণ সহায়তা করছে।

দুর্ভাগ্যজনক এ ঘটনায় মারা যাওয়া ৫ রোগীর পরিবারকে ইতোমধ্যেই ঘটনা সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যথেষ্ট সহায়তা করছে। ইউনাইটেড হাসপাতাল এবং সব চিকিৎসক-নার্স কর্মকর্তা-কর্মচারী পক্ষ থেকে এ ঘটনায় গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here