ইমা এলিস/ বাংলা প্রেস, নিউ ইয়র্ক ::
যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে প্রেস ক্লাবের ইফতার মাহফিলে সাংবাদিক ব্যবসায়ীর মধ্যে হট্টগোল ও হাতহাতির ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় সময় বুধবার (১৩ মার্চ) সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের নবান্ন রেস্তোরাঁর পার্টি হলে অনুষ্ঠিত নিউ ইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব আয়োজিত ইফতার মাহফিলে এ ঘটনা ঘটে। উপস্থিত সাংবাদিকসহ ক্লাবের সভাপতি মনোয়ারুল ইসলাম ও সাপ্তাহিক ঠিকানার সম্পাদক মণ্ডলীর সভাপতি এম এম শাহীন হট্টগোল ও হাতহাতির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।
তাসের মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত ইফতার মাহফিলে ক্লাবের নির্বাহী কর্মকর্তা, বিভিন্ন গণমাধ্যমেকর্মী সামাজিক সংগঠনের শীর্ষ ব্যক্তিবর্গ ও ইসলামী চিন্তাবিদরা উপস্থিত ছিলেন। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন মৌলানা শাহ মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ সিদ্দিক।
ইফতার মাহফিলের শেষ পর্যায়ে একটি টেবিলে সাপ্তাহিক ঠিকানার সম্পাদক মণ্ডলীর সভাপতি এম এম শাহীনের সাথে দেশীয় রাজনীতিসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলছিলেন প্রবীণ সাংবাদিক মইন উদ্দিন নাসের। এক পর্যায়ে তিনি শাহীনের সাম্প্রতিকালের শিক্ষকদের নিয়ে সমালোচনার প্রসঙ্গ তুলে ধরেন। এতে উভয়ে উত্তেজিত হয়ে অথেন। পাশে বসে থাকা রিয়েল ইষ্টেট ব্যবসায়ী নুরুল আজিম সাংবাদিক মইন উদ্দিন নাসের গায়ে হাত দিতে আস্তে কথা বলার অনুরোধ করলে উত্তেজিত হয়ে উঠেন নাসের। এক পর্যায়ে নাসের আজিমের মুখে ঘুষি মারেন।
সাংবাদিক মঈন উদ্দিন নাসেরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি তাকে চিনি না, কোনদিন তাকে দেখিও নাই তিনি আমার গায়ে হাত দিয়ে কথা বললে তিনি তুমি কে বলে চিৎকার দিয়ে উঠেন। এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়। তবে আজিমকে ঘুষি মারার বিষয়টি অস্বীকার করেন সাংবাদিক নাসের।
নাসের উল্লেখ করে বলেন, সাংবাদিকদের মধ্যে আলাপ হচ্ছিল এখানে বাইরের লোক এসে কথা বলবে কেন? এদেরকে কে দাওয়াত করেছে? এ ধরনের লোকদের দাওয়াত করার আগে সাধারন সদস্যদের কোন অনুমতি নিয়েছে কিনা সেটা সভাপতি ও সাধারন সম্পাদককে জিজ্ঞাসা করেন বলে উল্লেখ করেন নাসের।
ব্যবসায়ী নুরুল আজিম জানান, ঠিকানার সম্পাদক মণ্ডলীর সভাপতি এম এম শাহীনের উপর তিনি ভীষণ ক্ষিপ্ত মনে হচ্ছিল। তাদের কথা কাটাকাটি এমন এক পর্যায়ে গিয়েছিলো যে, সেটা কাউকে না কাউকে থামাতে হতো। তাই আমিও থামাতে গিয়েছিলাম। তিনি আমার উপরে ভীষণ ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। তার ঘুষি আমাকে না নাগলে এম এম শাহীনের গায়ে লাগত। পরিস্থিত সামাল দিতে অনেকেই এগিয়ে আসলে পরে পরিবেশ শান্ত হয়।
এ ব্যাপারে নিউ ইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মনোয়ারুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি জানান, ইফতার শেষ হবার পর ঘটনাটি ঘটেছে। তিনি হাতাহাতির ঘটনাটি শুনেছেন তবে প্রত্যক্ষভাবে দেখেননি। ঘটনাটি দুঃখজনক বলে উল্লেখ করেন তিনি।
সাপ্তাহিক ঠিকানার সম্পাদক মণ্ডলীর সভাপতি এম এম শাহীন হট্টগোল ও হাতহাতির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন এ ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা কখনও আশা করি নাই। এটি নিঃসন্দেহে একটি দুঃখজনক ঘটনা।
সাংবাদিক মঈন উদ্দিন নাসের প্রায় প্রতিটি অনুষ্ঠানেই এ ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে অনেকেই অভিযোগ করেছেন।      
Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here