ব্রেকিং নিউজ

না ফেরার দেশে চলে গেলেন গীতিকার ও সুরকার আলাউদ্দিন আলী

স্টাফ রিপোর্টার :: দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর না ফেরার দেশে চলে গেলেন বরেণ্য গীতিকার ও সুরকার আলাউদ্দিন আলী। রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৫ টার পর মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (সাবেক আয়েশা মেমোরিয়াল) মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

তার মৃত্যুতে চলচ্চিত্র অঙ্গন ও সঙ্গীতভূবনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। বাংলাদেশের সংস্কৃতিজগত এক উজ্জ্বল নক্ষত্র হারিয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশ বরেণ্য কণ্ঠশিল্পীরা।

আগামীকাল (সোমবার) বাদ জোহর খিলগাঁও মূর-ই বাগ মসজিদে আলাউদ্দিন আলীর প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে । এরপর বেলা ২টা ৩০ মিনিটে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে এফডিসিতে। সেখানে দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে মিরপুর বুদ্ধিজীবী গোরস্থানে।সেখানেই সমাহিত হবেন আটবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী সুরকার আলাউদ্দিন আলী।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরে আলাউদ্দিন আলী ফুসফুসের প্রদাহ ও রক্তে সংক্রমণসহ শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। মরণব্যাধি ক্যান্সারেও সঙ্গেও যুদ্ধ করছিলেন তিনি। ২০১৫ সালের ৩ জুলাই এক পরীক্ষায় তার ফুসফুসে টিউমার ধরা পড়ে তার। বাংলাদেশ ও ব্যাংককে তার চিকিৎসা হয়েছে। সাভারে সেন্টার ফর রিহ্যাবিলিটেশন অব প্যারালাইজড কেন্দ্রেও চিকিৎসা নিয়েছিলেন দীর্ঘদিন। অবশেষে রোববার সবাইকে ছেড়ে মৃতদের দেশে চলে গেলেন এই দেশ বরেণ্য সঙ্গীতজ্ঞ।

বাংলা চলচ্চিত্রের গানে কিংবদন্তি আলাউদ্দিন আলী। বহু প্রতিভাধর এক অমর শিল্পী। তিনি একই সঙ্গে সুরকার, সংগীত পরিচালক, বেহালাবাদক ও গীতিকার।এক নজরে আলাউদ্দিন আলীর জনপ্রিয় ও কালজয়ী কিছু গান-

একবার যদি কেউ ভালোবাসতো, যে ছিল দৃষ্টির সীমানায়, ইস্টিশনের রেলগাড়িটা, দুঃখ ভালোবেসে প্রেমের খেলা খেলতে হয়, হয় যদি বদনাম হোক আরো, ও আমার বাংলা মা তোর, আছেন আমার মোক্তার আছেন আমার ব্যারিস্টার, সুখে থাকো ও আমার নন্দিনী হয়ে কারও ঘরনি, কেউ কোনোদিন আমারে তো কথা দিল না, পারি না ভুলে যেতে, স্মৃতিরা মালা গেঁথে, জন্ম থেকে জ্বলছি মাগো, ভেঙেছে পিঞ্জর মেলেছে ডানা, আমার মনের ভেতর অনেক জ্বালা আগুন হইয়া জ্বলে, সূর্যোদয়ে তুমি সূর্যাস্তেও তুমি ও আমার বাংলাদেশ, বন্ধু তিন দিন তোর বাড়ি গেলাম দেখা পাইলাম না, যেটুকু সময় তুমি থাকো কাছে, মনে হয় এ দেহে প্রাণ আছে, এমনও তো প্রেম হয়, চোখের জলে কথা কয়, সবাই বলে বয়স বাড়ে আমি বলি কমে রে, আমায় গেঁথে দাওনা মাগো একটা পলাশ ফুলের মালা, প্রথম বাংলাদেশ আমার শেষ বাংলাদেশ, বাড়ির মানুষ কয় আমায় তাবিজ করেছে, আকাশের সব তারা ঝরে যাবে, এ জীবন তোমাকে দিলাম, কেন আশা বেঁধে রাখি, সাগরিকা বেঁচে আছে তোমারই ভালোবাসায়, দিন কি রাতে, আমার মতো এত সুখী নয় তো কারো জীবন, শত জনমের স্বপ্ন তুমি আমার জীবনে এলে, তোমাকে চাই আমি আরও কাছে, এই দুনিয়া এখন তো আর সেই দুনিয়া নাই, হায়রে কপাল মন্দ চোখ থাকিতে অন্ধ, ভালোবাসা যতো বড়ো জীবন তত বড় নয় ইত্যাদি।

Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মেঘনার ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শনে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী

রামগতি(লক্ষ্মীপুর)প্রতিনিধি :: পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী লেঃ কর্ণেল (অবঃ) জাহিদ ফারুক শামিম এমপি ...