ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডেস্ক ::

গত ২ অক্টোবর একটি প্রমোদতরীতে আয়োজিত মাদক পার্টি থেকে আটক করা হয় বলিউড বাদশা শাহরুখ খান পুত্র আরিয়ান খানকে। দীর্ঘ ১৬ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর ৩ অক্টোবর গ্রেফতার করা হয় তাকে। মাদক সেবন ও মাদক দ্রব্য কেনা বেচার অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে।

এরপর ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে জামিনের আর্জি জানান আরিয়ান। কিন্তু দুইবার খারিজ হয়ে যায় সেই আর্জি। আরিয়ানকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক। ফের গতকাল সোমবার মুম্বাই সেশন কোর্টে খারিজ করে দেওয়া হয় আরিয়ানের জামিন। আপাতত জেলেই রয়েছেন তিনি।

ছেলের জামিন না হওয়ায় কার্যত বিনিদ্র রাত কাটছে শাহরুখ খান ও তার স্ত্রী গৌরীর। শাহরুখ ও গৌরী খানের পরিবারের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম বলা হয়েছে, শাহরুখ ও গৌরী দুইজনই ভেঙে পড়েছেন। সেই সঙ্গে ক্রমাগত মানুষকে আরিয়ানের স্বাস্থ্যের খোঁজখবর নেওয়ার জন্য বলছেন।

গৌরী খানের ভাই বিক্রান্ত চিব্বার এবং তার স্ত্রী নমিতা তার পাশে রয়েছেন। এমনকি মহীপ কাপুর এবং সীমা খান তাকে সান্ত্বনা দেওয়ার জন্য গৌরীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন।

ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে আরিয়ানের আইনজীবী নিযুক্ত করা হয় সতীশ মানশিণ্ডকে। এর আগে তিনি সঞ্জয় দত্ত, রিয়া চক্রবর্তীরও আইনজীবী ছিলেন। সম্প্রতি মুম্বাই সেশন কোর্টে আরিয়ানের হয়ে প্রশ্ন-জবাব করেন আইনজীবী অমিত দেশাই। হিট অ্যান্ড রান কেসে সালমানের আইনজীবী ছিলেন অমিত। আরিয়ানের শুনানিতে প্রায় প্রতিদিনই হাজির থাকছেন গৌরী অথবা শাহরুখ। এখন পর্যন্ত ছেলের জামিন না হওয়ায় চিন্তিত তারা।

অবশ্য অরিয়ান গ্রেফতারের পর বিশাল দাদলানি, রাজ বব্বর, পূজা ভাট, হৃতিক রোশন, সালমান খানসহ আরও অনেক তারকা শাহরুখের পাশে দাঁড়িয়েছেন। যাইহোক, কেবল পরিবারই জানেন তারা কিসের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।

আরিয়ান গ্রেফতারের খবর যখন ইন্ডাস্ট্রিতে প্রকাশ পেয়েছিলো তখন সবাই হতবাক হয়েছিল। এসআরকে এই বিষয়ে আইনি পরামর্শ চেয়েছিল, দেশের কিছু সেরা আইনজীবীর সঙ্গে যোগাযোগও করেছিলেন। সতীশ মানেশিন্দের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিলো এবং তিনি এসআরকে আশ্বস্ত করেছিলেন যে আরিয়ান প্রত্যাশার চেয়ে তাড়াতাড়ি বেরিয়ে আসবে। এটি এমন ছিলো না কারণ আদালত তার জামিন আবেদন এই ভিত্তিতে প্রত্যাখ্যান করেছিল যে এটি ‘অনিবার্য’ এবং এই খবরটি সত্যিই পরিবারকে নাড়া দিয়েছে।

ছেলের স্বাস্থ্য নিয়েও চিন্তিত শাহরুখ খান। ইতিমধ্যেই ছেলের জন্য জামাকাপড় ও দরকারি কিছু জিনিসপত্র পাঠিয়েছেন তিনি। তবে বাড়ি থেকে খাবার পাঠানোর অনুমতি পাচ্ছেন না। সূত্রের খবর, ঘনঘনই পুলিশ কর্মকর্তাদের ফোন করছেন শাহরুখ। ছেলের স্বাস্থ্য সম্পর্কে প্রতিনিয়তই খবর নিচ্ছেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here