হাশিমি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আফগানিস্তানে শরিয়াহ আইনব্যবস্থা আনার জন্য আমরা ৪০ বছর ধরে লড়াই করেছি। শরিয়াহ আইন পুরুষ ও নারীদের একত্র হতে বা এক ছাদের নিচে একসঙ্গে বসার বিষয়টি অনুমোদন দেয় না।’
হাশিমি আরো বলেন, ‘নারী ও পুরুষ একসঙ্গে কাজ করতে পারেন না, এটা পরিষ্কার। অফিসে এসে আমাদের মন্ত্রণালয়ে কাজ করার অনুমতি তাঁদের নেই।’
তালেবানের অতীতের কট্টর নীতি যদি আনুষ্ঠানিকভাবে বাস্তবায়িত হয়, তাহলে দেশটির সরকারি অফিস, ব্যাংক, গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নারীদের চাকরির সুযোগ বন্ধ হয়ে যাবে বলে জানাচ্ছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

 

ক্ষমতা দখলের পর তালেবান বলে আসছে যে আফগান নারীরা শরিয়াহ আইন দ্বারা নির্ধারিত সীমার মধ্যে কাজ ও পড়াশোনা করতে পারবেন। তবে প্রকৃতপক্ষে আফগান নারীদের তালেবান কতটুকু স্বাধীনতা দেবে, তা নিয়ে ব্যাপক সন্দেহ ও অনিশ্চয়তা আছে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here