রাজু দে, নাটোর প্রতিনিধি ::
নাটোরের বাগাতিপাড়ায় অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় দুলাল কুমার দাস নামে একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে আদালত। সেই সঙ্গে অপর একটি ধারায় একই আসামির ১৪ বছর সশ্রম কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ৩৮ বছর বয়সী দুলাল কুমার দাস একই উপজেলার চিমনাপুর গ্রামের বাসিন্দা।
বুধবার বেলা ১১টার দিকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আব্দুর রহিম এই রায় দেন।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পিপি আনিসুর রহমান জানান, ২০১০ সালের ২৩ জুলাই রাতে বাগাতিপাড়া উপজেলার চিমনাপুর গ্রামের এক গৃহবধূ বাড়ির বাইরে গেলে দুলাল কুমার দাস তার মুখ বেঁধে পাশের আখক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে প্রতিবেশীরা টের পেয়ে ঘটনাস্থলে গেলে দুলাল দৌড়ে পালিয়ে যান। ঘটনার একদিন পর ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে দুলাল এবং সহযোগী হিসেবে নিজাম উদ্দিন নামে আরও একজনের নামে থানায় অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা করেন।

তিনি আরও জানান, মামলার ১৩ বছর পর আদালত দুই আসামি দুলাল এবং নিজাম উদ্দিনের উপস্থিতিতে রায় ঘোষণা করে। রায়ে দুলালকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সেই সঙ্গে অপর একটি ধারায় একই আসামির ১৪ বছর সশ্রম কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

জরিমানার টাকা ভিকটিম পাবেন উল্লেখ করে রায়ে আরও বলা হয়, দুলালের সাজা একটার পর একটা কার্যকর হবে। একই সঙ্গে নিজাম উদ্দিন নামে অপর ব্যক্তি দোষী হিসেবে প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here