নতুন শিক্ষামন্ত্রীকে অভিনন্দন ও প্রত্যাশা

ডা. দীপু মনি

রহিমা আক্তার মৌ :: অভিনন্দন দেশের প্রথম নারী ‍শিক্ষামন্ত্রী সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রী ডা. দীপু মনিকে। ডা. দীপু মনি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেয়েছেন শুনে অনেক আনন্দিত আমরা। কারণ কয়েকটি, তার মাঝে প্রধান কারণ এই প্রথম শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেয়েছে কোন নারী। দ্বিতীয় কারণ আপনি আমাদের অনেকের পছন্দের একজন প্রিয় মানুষ। মন্ত্রীত্ব পাওয়ার সাথে সাথে আমাদের মিডিয়াগুলো নিউজ করেছে- “মন্ত্রীদের মাঝে সবচেয়ে শিক্ষিত ব্যক্তিই পেলেন এবার শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব।”

শুনেই শান্তি অনুভব করি। আমরা তো সেই ছোটবেলা থেকেই পড়ে এসেছি জেনে এসেছি- “শিক্ষাই জাতীর মেরুদন্ড” তাই শিক্ষা মন্ত্রনালয়ে আমরা হয়তো এমন কাউকেউ আশা করেছিলাম।

১৯৬৫ খ্রিস্টাব্দের ৮ ডিসেম্বর ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন ডা. দীপু মনি। গণতন্ত্র ও বাঙালির অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর ঘনিষ্ঠ সঙ্গী এবং আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা কালীন সদস্য মরহুম এম.এ. ওয়াদুদের কন্যা তিনি।

মাতার নাম রহিমা ওয়াদুদ। এম এ ওয়াদুদ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জন্মকালীন সদস্য, ভাষা আন্দোলনের বীর সৈনিক এবং তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান ছাত্রলীগের কাউন্সিলে নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তিনি হলিক্রস কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। ডা. দীপু মনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস ডিগ্রী লাভের পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন্স হপকিন্স ইউনির্ভাসিটির স্কুল অব পাবলিক হেলথ থেকে এমপিএইচ ডিগ্রী অর্জন করেন। তিনি ইউনিভার্সিটি অব লন্ডন থেকে আইন বিষয়ে মাস্টার্স ডিগ্রীও অর্জন করেন এবং বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের একজন আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্ত হন।

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি দুই সন্তানের জননী, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের এ্যাডভোকেট তৌফীক নাওয়াজ দীপু মনি`র জীবনসঙ্গী। তিনি আন্তর্জাতিক একটি ল’ফার্মের প্রধান। তিনি উপমহাদেশের দু’ হাজার বছরের ঐতিহ্য মন্ডিত ধ্রুপদী সঙ্গীতের উৎস হিসেবে পরিচিত ‘আলাপ’ এর একজন শিল্পী।

ডা. দীপু মনি বহুদিন ধরে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন।২০০৮ সালে ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়নপ্রাপ্ত হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রথম মহিলা পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব প্রাপ্ত হন। ২০০৯ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালীন সময়ে তিনি কমনওয়েলথ মিনিস্ট্রেরিয়াল অ্যাকশন গ্রুপ-এর প্রথম নারী এবং দক্ষিণ এশীয় চেয়ারপার্সন নির্বাচিত হন।

এছাড়া তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশ সমুদ্র জয় করে। এতে করে বাংলাদেশ সরকার প্রতিবেশী দেশ মিয়ানমার এবং ভারতের সাথে প্রায় চার দশকের সমুদ্র সীমা সংক্রান্ত অমীমাংসিত বিষয়টি আন্তর্জাতিক আইনের আওতায় চূড়ান্ত ভাবে নিষ্পত্তির উদ্যোগ গ্রহণ করে। সামাজিক উন্নয়ন এবং প্রশাসনিক ক্ষেত্রে তাঁর অনন্য অবদানের জন্য তিনি মাদার তেরেসা আন্তর্জাতিক পুরষ্কারে ভূষিত হন।

২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের ২০তম কাউন্সিলে তিনি পুনরায় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হন। দলের জন্য নিবেদিতপ্রাণ হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পছন্দের তালিকায় রয়েছেন তিনি।একাদশ জাতীয় নির্বাচনে চাঁদপুর-৩ আসন (চাঁদপুর সদর-হাইমচর) থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন ডা. দীপু মনি। ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ এর নৌকা প্রতীকে তিনি পেয়েছেন ৩,০৬,৮৯৫ ভোট।

গত ৭ জানুয়ারি ২০১৯ সোমবার বিকাল ৩টা ৪৮ মিনিটে বঙ্গভবনের দরবার হলে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যদের শপথ বাক্য পাঠ করান।সেই সপথ অনুষ্ঠানে ডা. দীপু মনিসহ ২৪ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী এবং ৩ জন উপমন্ত্রী শপথ নেন। এর আগে দূপুরে সচিবালয় হতে পাঠানো গাড়িতে মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যরা বঙ্গভবনে যায়। এতে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনিসহ অন্য সদস্যদের বহনকারী গাড়িগুলো একে একে দুপুর ২টার দিকে বঙ্গভবনে প্রবেশ করে। বিকাল ৩টার দিকে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সঙ্গে নিয়ে দরবার হলে আসেন। নিয়ম অনুযায়ী প্রথমে ২৪ মন্ত্রীর শপথ পড়ানো শেষে প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের শপথ পড়ান রাষ্ট্রপতি।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনায় পরিচালিত হয় অনুষ্ঠানটি। শপথ নেয়ার পরপরই শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি টেবিলে বসে শপথবাক্যে স্বাক্ষর করেন। আবারও অভিনন্দন মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীকে।

ব্যক্তি বা গোষ্টির প্রাপ্তি যাই হোক প্রত্যাশা থাকে অনেক। তেমনি নবগঠিত মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর কাছে আমাদের অনেক প্রত্যাশা। ২০১৮ সালের জেএসসি পরীক্ষার ফলাফলের পর অনেকটা অভিমানেই লিখেছিলাম, স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর ও শিক্ষানীতির বলি আমাদের কোমল মতি শিশুরা”। লেখাটির প্রাধান কারণ ফলাফল বের হবার পর বিগত শিক্ষামন্ত্রীর বলেছেন, ‘চতুর্থ বিষয়ের মার্ক যোগ করা হয়নি, আর এই কারণেই প্রায় দেড় লাখ জিপিএ ৫ কমেছে।’ আরেকটা বিষয় হলো, বছরের প্রথম ১৩/১৪ টি বই ধরিয়ে দিয়ে বছরের মাঝ পথে ঘোষনা যে, ‘ সাত বিষয়ের পরীক্ষা হবে’।

১৯৯১ সালে এসএসসি পরীক্ষা দেয়ার পর এতো বছরে ও মিস করছি সেই ফলাফলকে। ফাস্ট ডিবিশন, সেকেন্ড ডিবিশন, থার্ড ডিবিশনকে। পাশের সাথে কয়টা লেটার পেয়েছে সেই হিসাব নেয়ার। কয়জন স্টার পেয়েছে, কয়জন স্টেন করেছে, আর বোর্ডের সেই বিখ্যাত স্টেন করা বিশজন কে, তা জানা। চাইনা শিক্ষা ব্যবস্থায় সেই একই জায়গায় সীমাবদ্ধ থাকতে, তবে আমাদের শিক্ষার বা পাবলিক পরীক্ষার কোন কোন নিয়ম পরিবর্তন হচ্ছে তা বছরের আগেই জানতে।

আজকের শিশুই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ, তাই বলতে চাই- জাতীর মেরুদন্ড সোজা করতে আমাদের কোমলমতি শিশুদের মেরুদন্ড যেনো বাঁকা না হয়ে যায়। একটা শিক্ষার্থী প্রতিদিন নিজের চেয়েও অধিক ওজনের ভারী ব্যাগ পিঠে বহন করতে করতে অল্প দিনেই মেরুদন্ডে রোগী হয়ে যাচ্ছে। শুধু চাই জাতির মেরুদন্ড রাখতে শিক্ষার্থীদের মেরুদন্ডে শক্তি রাখতে।

সরকার থেকে প্রতিক্লাসের জন্যে বরাদ্দকৃত বই দেয়ার পর ও হাজার হাজার টাকা গচ্চা দিতে হয় স্কুলে। চাই এই গচ্চা দেয়া বন্ধ করতে, স্কুল থেকে বইয়ের বোঝা কমাতে। যেখানে সরকার শিক্ষা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিতে বই দিচ্ছে ফ্রি সেখানে শিক্ষাকে ব্যবসার উপকরণ বানিয়ে একধরনের গোষ্ঠী নিজেদের পকেট ভরছে। শুধু কি ভরা, এসব বই কিনতে বাধ্য করছে। সরকার থেকে দেয়া বাংলা ও ইংরেজি ২য় পত্রের বই খুলেও দেখেনা শিক্ষকরা, উনাদের বাধ্য করা বইয়ের পাতা কেবল উল্টানো হচ্ছে। আমরা চাই সরকারের কৃতিত্ব সরকারেরই হবে, আর স্কুলের কৃতিত্ব হবে স্কুলের।

রহিমা আক্তার মৌ

লেখক- রহিমা আক্তার মৌ

এসব অনিয়ম বন্ধ না হলে আমাদের সন্তানদের মেরুদন্ড ঠিক বাঁকা হবে, কিন্তু জাতীর মেরুদন্ড সোজা আর হবে না। আমরা আমাদের সন্তানদের সুশিক্ষা দিতে চাই, এই দেশে রেখেই পড়াতে চাই। ওদের শ্রম এই দেশেই দেয়াতে চাই, ওরাই তো আগামির সবকিছু। আমরা যারা মধ্যবিত্তের বা নিম্ন মধ্যবিত্তের তারা না পারি নীতিকে বিসর্জন দিতে না পারি মেরুদন্ডে প্লাস্টিক সার্জারি করতে। তাই আমাদের প্রত্যাশা গুলোকে নতুন শিক্ষামন্ত্রী বিবেচনায় নিবেন আশাকরি।

 

 

লেখক: সাহিত্যিক কলামিস্ট ও প্রাবন্ধিক। rbabygolpo710@gmail.com

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে যা বললেন অপু বিশ্বাস

ডেস্ক নিউজ :: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিভিন্ন এলাকায় আওয়ামী লীগের হয়ে নির্বাচনী ...