ব্রেকিং নিউজ

ধন্যবাদ জাসিন্ডা আরডার্ন: বিশ্ব মানবতা তৈরী হোক তোমাকে দেখে

জাসিন্ডা আরডার্ন

কাজী আসমা আজমেরী :: জাসিন্ডা আরডার্ন যার নাম শুনলেই বিশ্বের পলিটিশিয়ান কি থেকে সাধারন মানুষরা সম্মানের দৃষ্টিতে দেখে। সেই মাত্র ৪০ বছরের জাসিন্ডা আরডার্ন  ১৭ অক্টোবর দ্বিতীয়বারের মতো ৪৮ লক্ষ লোকের শান্তিপ্রিয় স্বর্গের নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হল। ১২০ টি ভোটের ভিতর তিনি ৬৪ টি পার্লামেন্ট মেম্বার নিয়ে লেবার পার্টিকে বিজয় করলেন।
.
তিনি শুধু নিউজিল্যান্ডের তরুণদের মন জয় করেনি, বিশ্বের লাখো লাখো তরুণদের আদর্শ রাজনীতিকবীদ ও পথপ্রদর্শক । যার কাজ শুধুমাত্র করোনাভাইরাস এই প্রশংসার দাবিদার রাখেনি, সর্বক্ষেত্রেই, সেই খ্রিষ্টান টেরোরিস্ট অ্যাটাক থেকে শুরু করে সাদা ভলকানো বিস্ফোরণ সবকিছুই তিনি সুষ্ঠু ও আন্তরিকতার সাথে পূরণ করতে চেষ্টা করেছেন, তিনি মনে করেন মাত্র ৩ বছরেই এগুলো করার জন্য যথেষ্ট নয়। দ্বিতীয়বারের মতো জিতে দেশটির শিশু সন্তানদের দারিদ্র্যের রেকর্ড কমাতে চান, সর্বোপরি দেশটির মন্দা, দারিদ্রতা ও বায়ু সংক্রামক আবহাওয়া কাজে আরো গতিশীল হতে চান।
.
যদিও নিউজিল্যান্ড এখন কয়েক দশকে সবচেয়ে খারাপ মন্দায় রয়েছে, সীমানা বন্ধ করার এবং দেশব্যাপী তালাবদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ২ হাজারেরও কম মানুষ করোন ভাইরাসতে আক্রান্ত হয়েছে এবং ২৫ জন মারা গিয়েছিল। তবে পৃথিবীর মধ্যে এটিই হচ্ছে সবচেয়ে সর্বনিম্ন করণা ভাইরাস এর মৃত্যুর সংখ্যা দেশ। প্রগতিশীল নেতা হিসাবে বিশ্বব্যাপী খ্যাতিমান আদর্শ তার প্রথম মেয়াদে দয়া ও সহযোগিতার উপর জোর দিয়েছিলেন। তিনি অকল্যান্ডে টাউন হলে তার ভাষণে ৫০ বছরের ভিতরে তার দল এভাবে বিজয় লাভ করেছে প্রথমবারের মতো, যা সত্যিই প্রশংসনীয়।
.
বিশ্বাস ছিল kiwi , moari ও আইল্যান্ডার ইমিগ্র্যান্টরা তাকে ভোট দিবে। যদিও সোশ্যাল মিডিয়াতে বলা হয় জাসিন্ডা আরডার্ন জনপ্রিয়তার জন্য দলটি বিজয় লাভ করেছে এবং তাদের ভালবাসায় তিনি পরিপূর্ণ হয়েছেন। জ্ঞানী ব্যক্তিদের ভাষায় লেবার পার্টি শুধুমাত্র জাসিন্ডা আরডার্ন জনপ্রিয়তার ওপর “বিপদজনক ঝুঁকি’ নিয়ে ইলেকশন জিতেছে। যদিও দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য তিনি শপথ করেছেন শিশু দারিদ্রতা ২০৩০ তে মুক্ত করবেন। এছাড়াও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের সাহায্য করবেন।
.
তার বিপক্ষে ছিল ন্যাশনাল পার্টি পঞ্চাশের ঊর্ধ্ব মহিলা প্রাক্তন পুলিশ মিনিস্টার Collins Crushed, যিনি তিনবার car crush এর জন্যে chrushed নামে পরিচিত। তার পার্টি মাত্র ৩৫ আসন লাভ করেন। অপরদিকে তৃতীয় অবস্থানে আছেন দ্য গ্রিন পার্টি যারা মাত্র ৮ পার্সেন্ট নিয়ে জিতেছেন। যদিও আমার প্রিয় শহর অকল্যান্ডের সেন্ট্রাল পার্লামেন্ট মেম্বার হয়েছেন মাত্র ছাব্বিশ বছরের তরুণী গ্রীন পার্টি Chloe swarbrick। তিনি সত্যিই একটি ইউনিক তরুণী, যিনি কিনা, তরুণ উদ্যোক্তা হয়ে ইতিমধ্যে তরুণ-তরুণীদের মন জয় করেছেন। জাসিডা এখনো পর্যন্ত বলেননি তিনি গ্রীন পার্টিকে তার সঙ্গে ক্ষমতায় রাখবেন কিনা ? কিছুটা আশা করা যাচ্ছে?
.
একটু গোড়ার কথা বলি, নিউজিল্যান্ড পৃথিবীর ভিতরে এমন একটি দেশ যেখানে ১৮৯৩ সালে প্রথম মহিলাদের ভোটের অধিকার দেয়া হয়। মাত্র ৪৮ লক্ষ মানুষের এই দেশটাতে মাথাপিছু প্রতিটি মানুষের দশটি ভেড়া এবং ৬টি গরু রয়েছে। এই দেশের প্রধান জীবিকা হচ্ছে কৃষি খামার। পৃথিবীর ৪০ পার্সেন্ট দুধ উৎপাদন এই দেশে হয়ে থাকে। অদ্বিতীয় ভেড়ার মাংস বিক্রিয় প্যাসিফিক আইল্যান্ড এর মধ্যে। এখানকার অধিবাসীদের kiwi বলা হয়, kiwi কে kiwi fruit বলে উল্লেখ করতে হয় এখানে। হয়তোবা এটাই পৃথিবীর প্রথম জাতি যা তার ফলের নামে তাদের নাম। আর এই দেশটি হচ্ছে এমন একটি দেশ যেখানে প্লিজ কিংবা থ্যাংক ইউ ছাড়া একটি কথাও এগোয় না।
.
পৃথিবীর হাজার হাজার ভ্রমণকারীদের কাছে জিজ্ঞাসা করলে সবচেয়ে কোন দেশের মানুষ প্রিয়, আমি চোখ বুজে বলতে পারি ১০০০ জনের উপর লোক বলবে kiwi. আর এটাই একটি দেশ, যেখানে তাদের আদিবাসী মাওরি, সম্মান দিয়েছে দ্বিতীয় ভাষার মর্যাদা। এবং তাদের জাতীয় সংগীত মাওরি ভাষায়। প্রত্যেকটি নাগরিক স্টুডেন্টদের বাধ্যতামূলক মাওরি ভাষা শিখতে হয়। তবে এই মাওরি দল পিছিয়ে নেই, এই ইলেকশনে তারাও জিতেছে একটি আসন। নিউজিল্যান্ডে লেবার পার্টি জাসিন্ডা আরডার্ন  যিনি তাঁর উদারতা ও আন্তরিকতায়, দয়ালুর জন্য তার বিজয় শুধুমাত্র নিউজিল্যান্ড বাসি শুধু খুশি হয়নি, খুশি হয়েছে বিশ্ববাসীও।
.
.
.
.
লেখক: একজন ট্রাভেলার্স, বাংলাদেশের পাসপোর্ট নিয়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন বিশ্বের ১১৫টি দেশ।
Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ফারুক আহমেদের গল্প ‘চোখের ইশারায় প্রেম’

ফারুক আহমেদ :: একবার স্কুল জীবনে বাড়ির বিনা অনুমতিতেই কুতুবউদ্দিন গাজীর সঙ্গে ...