দিল্লিতে সরকার গড়বে আপ

কলকাতা : দিল্লিতে সরকার গড়বে আম আদমি পার্টি(আপ)। সোমবারই সকাল ১১ টা নাগাদ আপ’র বিজয়ী বিধায়ক ও অন্যন্য নেতা-কর্মীদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন দলের প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল। সেখানেই দিল্লিতে সরকার গড়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয় আপ। পরে সাংবাদিক বৈঠকে কেজরিওয়াল জানান ‘আমরা সরকার গড়ার জন্য প্রস্তুত’। আমি দুপুর সাড়ে বারটা নাগাদ দিল্লির লেফটেন্যান্ট গভর্নর নাজিব জংয়ের সঙ্গে দেখা করব। সেখানেই দলীয় সিদ্ধান্তের কথা জানাব’।

দিল্লিতে সরকার গঠনের মত চেয়ে গত কয়েকদিন ধরেই এসএমএস এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে জনমত চেয়েছিল আপ। সেই জায়গা থেকে ৭৪ শতাংশ মানুষ আপ-এর সরকার গঠনের পক্ষে ভোট দিয়েছে বলে এদিন দাবী করেন কেজরিওয়াল। এদিনের বৈঠকে সর্বসম্মতভাবে আপ-এর প্রধান কেজরিওয়ালকেই দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হিসেবেও বেছে নেওয়া হয়। আগামী ২৬ ডিসেম্বর কেজরিওয়ালের নেতৃত্বে দিল্লিতে নতুন সরকার হিসেবে শপথগ্রহণ করবে বলেও এদিনের বৈঠকে স্থির হয়েছে। সেদিক থেকে কেজরিওয়ালই হবেন দিল্লির সর্বকনিষ্ট মুখ্যমন্ত্রী।

তবে যে কংগ্রেসকে চূর্ণ করে বিধানসভা নির্বাচরেন বেশিরবাগ আসেনে জয় ছিনিয়ে এনেছে আম আদমি পার্টি এবার সেই কংগ্রেসকে সঙ্গে নিয়েই আপ’এর সরকার গঠনের সিদ্ধান্তকে বিঁধেছেন বিজেপি’র মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হর্ষবর্ধণ। সোমবারই কেজরিওয়ালকে একহাত নিয়ে বলেন ‘আপ দিল্লিবাসীকে ঠকাচ্ছে, কারণ যে দুর্নীতিগ্রস্থ কংগ্রেসকে ভোটের মাধ্যমে উচ্ছেদ করার ডাক দিয়েছিল দিল্লিবাসী সেই কংগ্রেসের সঙ্গে হাত মিলিয়ে দিল্লিতে সরকার গড়ছে আপ’।

যদিও কংগ্রেস নেত্রী তথা দিল্লির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত আপ’এর এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন। একইসঙ্গে দিল্লিবাসীর আশা আখাঙ্খা পূরণেও আপ সফল হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন শীলা দীক্ষিত। তবে আম আদমি পার্টিকে নি:শর্তহীন সমর্থনের কথা অস্বীকার করেছেন দীক্ষিত।

চলতি বছরের ৪ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্টিত হয় ৭০ আসন বিশিষ্ট দিল্লি বিধানসভায়। ৮ ডিসেম্বর ফল প্রকাশের পর দেখা যায় বিজেপি ৩২ টি আসন পেলেও দিল্লিতে সরকার গড়ার মতো প্রয়োজনীয় সংখ্যা হাতে নেই। অন্যদিকে অপ্রত্যাশিত ভালো ফল করে আম আদমি পার্টি, তারা দখল করে ২৮ টি আসন অন্যদিকে মাত্র ৯ টি আসন পেয়ে তৃতীয় স্থান দখল করে গত ১৫ বছর ক্ষমতায় থাকা কংগ্রেস। এমনকি তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিতকে ২২ হাজার ভোটেন হারান ‘আপ’ নেতা কেজরিওয়াল। এমতাবস্থায় দিল্লিতে কে সরকার গড়বে তা নিয়েই দেখা দেয় সংশয়। গত ১৪ দিন ধরেই বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলির মধ্যে দফায় দফায় আলোচনা হলেও কোন গ্রহণযোগ্য সমাধান সূত্র বেরিয়ে আসছিল না। কারণ কেজরিওয়াল জানিয়ে দিয়েছিলেন বিজেপি এবং কংগ্রেস- উভয়ই তাদের শত্রুপক্ষ, তাই তাদের সহযোগিতা করার প্রশ্নই নেই। অন্যদিকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকায় বিজেপি-ও সরকার গড়বে না বলে জানায়। উল্টে আম আদমি পার্টিকেই তারা সরকার গঠনের আহ্বান জানায়। কারণ মানুষের ভোট তাদের সঙ্গে রয়েছে। এরই মধ্যে সরকারে বসতে চেয়ে এসএমএস-এর মাধ্যমে জনরায় নিয়েছিলেন কেজরিওয়াল। দেখা যায় সরকার গড়ার পক্ষে অধিকাংশ মানুষই তাদের পক্ষেই রায় দিয়েছেন। তারপরই এদিনের এই সিদ্ধান্ত।

Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

৬৭ বছর পর কার্যকর হচ্ছে নারী আসামির মৃত্যুদণ্ড 

বাংলা প্রেস, নিউ ইয়র্ক থেকে :: দীর্ঘ ৬৭ বছর পর আবারও এক ...