স্টাফ রিপোর্টার:: নির্মাতা আদিত্য জনি নির্মাণ করলেন কবি ও নাট্যকার মিজানুর রহমান বেলাল-এর রচিত টেলিছবি, ‘নগরবালা’। নির্মাতা আদিত্য জনি বলেন, অসাধারণ এক গল্পে কাজ করতে পেরে আনন্দিত। বিশেষ করে নগরের মানুষ মেসেজ পাবে ‘নগরবালা’ টেলিছবিতে।

সচেতনমূলক গল্পে মানুষের কল্যাণে কাজটি করতে পেরে ভীষণ উৎফুল্ল। গল্পে দেখা যাবে—বালার সাথে কথা কাটাকাটি হচ্ছে একজন যুবকের সাথে। এক পর্যায়ে বালা যুবকের কলার ধরে জোড় করে— রাস্তায় ফেলে দেওয়া চিপসের প্যাকেট তুলে ডাস্টবিনে ফেলতে বাধ্য করলো। এরপর অফিসে গিয়ে দেখতে পায় ২ঘন্টা দেরি। অফিসের বস খাইরুল ইসলাম-এর বকাবকি শুনে কাজ শুরু করলো। এভাবেই প্রতিদিনই চলার পথে; ফুটপাথে, বাজারে, পাড়া-মহল্লায় নানান জনের সাথে নানান বিষয়ে দ্বন্দ বাঁধে নগরের পরিচ্ছন্নতা নিয়ে। বালার কথা হলো আমরা যদি নগরকে পরিচ্ছন্ন না রাখি নগর ভালো থাকবে না।

এলাকায় বালার নগরের পরিচ্ছন্নতা নিয়ে একক শ্রমের জন্য, অনেক প্রসংশা শুনে লোকের মুখে। বালা খুব প্রতিবাদি ও সুন্দর মনের মানুষ হিসেবে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে ওঠে ধীরে ধীরে। বালা ঢাকা শহরের রাস্তায়, ফুটপাথে ময়লা ফেলার বিরুদ্ধে কাজ করে। এমনকি রাস্তায় যন্ত্রতন্ত্র পার্কি, রাস্তায় খেলাধুলা থেকে শুরু করে নানান কিছু নিয়ে সচেতন গড়তে প্রচারণা করেই যায় একক শ্রমে। প্রচারণ করতে গিয়ে আবির নামক এক ছেলের সাথে দ্বন্দ বাঁধে।

আবির ক্ষমতার প্রভাব ও পিতার ধন-সম্পত্ত্বির অহংকারে বালার ক্ষতি করার নানান রকম ছক আঁকে গোপনে। কিন্তু আবির নিজের বিবেকের কাছে অনুতপ্ত হয় এক সময়। আবির নিজেই বালার কাছে ভালো হবার জন্য; তার মন পাবার জন্য অনেক ভালো কাজ করতে থাকে। এমন কি আবির তার দুই সহযোগী সাথে নিয়ে বালার মতো নগরের পরিচ্ছন্নতা নিয়ে সেচ্ছাশ্রম ও সেচ্ছাসেবক মূলক কাজে সচেতনতা মূলক কাজ করতে থাকে। আবিরের উদ্দেশ্য বালার মন পাওয়া জন্য। বালার মন পাওয়ার জন্য আবিরও নগরের উন্নয়নে কাজ করতে থাকে। অনেক ঘাত-প্রতিঘাত নেমে আসে আবির ও বালার মধ্যে। আবির ও বালার করুণ পরিণতি ও প্রেম ভালোবাসার জয়ী হওয়ার গল্পটি দেখে মুগ্ধ হবে দর্শক, এমনটিই প্রত্যাশা করেছেন আদিত্য জনি।

বালা চরিত্রে অভিনেত্রী সানজিদা ইসলাম ও আবির চরিত্রে দেখা যাবে অভিনেতা ও চলচ্চিত্র নায়ক শিপন মিত্রকে। এছাড়াও অন্যান্য বিভিন্ন চরিত্রে দেখা সাবে আজম খান, সারা, ইমরান হাসো, আরশি খান সহ এক ডর্জন পরিচিত মুখকে।

নগরবালা টেলিছবিটি আগামী ২৯ শে জানুয়ারি, শুক্রবার বেলা ৩টায় চ্যানেল আইয়ে প্রচার হবে বলে জানান নির্মাতা আদিত্য জনি।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here