ড. ইউনূস

ডেস্ক নিউজ :: প্রফেসর ড. ইউনূসকে ‘ল্যাম্প অব পিস’ (শান্তির আলোকবর্তিকা) পদক দেবেন ভ্যাটিকানের পোপ ফ্রান্সিস। বিশ্ব শান্তির জন্য ভূমিকা রাখায় তাকে এই শান্তি পদক দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

থাইল্যান্ডের ব্যাংককে দুই দিনব্যাপী নবম সামাজিক ব্যবসা দিবস সম্মেলনে ভ্যাটিক্যানের প্রতিনিধিত্বকারী হোলি কনভেন্ট পেপাল বাসিলিকা অব আসিসি-এর মুখপাত্র এঞ্জো ফরতোনাতো এই তথ্য দেন। তিনি বলেন, ২০২০ সালের বসন্তে অনুষ্ঠেয় অর্থনৈতিক ফোরামে প্রফেসর ইউনূসের হাতে এই ‘ল্যাম্প অব পিস’ পদক তুলে দেবে ভ্যাটিকান।

এর আগে সম্মেলনের সমাপনী বক্তৃতায় শান্তিতে নোবেল জয়ী প্রফেসর ড. মুহাম্মদ ইউনূস বললেন, চাকরির মোহ তরুণ সমাজকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। যারা চাকরি করছে, তারা শুধু তাদের উর্ধ্বতনদের হুকুম পালন করছে। নিজের ভেতরে যে সৃষ্টিশীলতা আছে, সেটাকে কোন কাজে লাগাতে পারছে না। এই সৃষ্টিশীলতাকে কাজে লাগানোর জন্য তিনি চাকরি না করে উদ্যোক্তা হওয়ার আহ্বান জানান তরুণদের।

বাংলাদেশের ক্ষুদ্রঋণের প্রবক্তা ও গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর ইউনূস এ সময় আরও বলেন, চাকরি ছেড়ে উদ্যোক্তা হওয়ার বিষয়টি অনেক চ্যালেঞ্জিং। এই চ্যালেঞ্জ নেওয়ার মতো সাহস আমাদের তরুণদের রয়েছে। আর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা ছাড়া জীবন অর্থহীন। আমরা এমন একটি জীবন চাই, যে জীবনে মানুষ ব্যক্তিকেন্দ্রিক চিন্তা না করে সমাজের কথা ভাববে।

প্রখ্যাত এই অর্থনীতিবিদ আরও বলেন, অর্থনীতিকে সামাজিক বিজ্ঞান বলা হয়। কিন্তু যে অর্থনীতিতে সমাজের কথা নেই, শুধু ব্যক্তির লাভ-লোকসানের হিসাব থাকে-সেটি আর যাই হোক সামাজিক বিজ্ঞান হতে পারে না। পুঁজিবাদের অর্থনীতি থেকে আমাদের এখন সামাজিক অর্থনীতির দিকে চোখ ফেরাতে হবে।

এর আগে সকালে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন সেশনে সামাজিক ব্যবসার প্রসারে সরকারের সহায়তা, সুশাসন, পরিবেশ দূষণ, জলবায়ু পরিবর্তন, দুর্নীতি প্রতিরোধ ও জাতিসংঘ গৃহীত টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়নের (এসডিজি) চ্যালেঞ্জ নিয়ে আলোচনা হয়।

এসব সেশনে বক্তব্য রাখেন মেরিল্যান্ড ইউনিভার্সিটির শিক্ষক এলেক্স কাউন্ট, প্যারিস ২০২৪-এর ইমপ্যাক্ট এন্ড লিগ্যাল ডিরেক্টর মারিয়া বারসেক, প্যারা-অলিম্পিক স্বর্ণপদকজয়ি গে ইয়াং, পিচ এন্ড স্পোর্টস-এর এমডি লরেন্ট ডুপন্ট, জার্মান ক্রিয়েটিভ ল্যাব-এর প্রতিষ্ঠাতা হ্যানস রিজ, সিপি গ্রুপের নোপাদল দেজ-উদো, জাপান অটোমেকানিক লি.-এর হিরাও সোনাকি, ইউনূস সোশ্যাল বিজনেস ব্রাজিলের লুসিয়ানো গারজেল, গ্রামীণ শক্তির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোহেল আহমেদ, গ্রামীণ টেলকিম ট্রাস্টের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক পারভিন মাহমুদ প্রমূখ।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here