আইপিএলে টেলরকে চড় মেরেছিলেন দলের মালিক!

ডেস্ক রিপোর্টঃঃ  আত্মজীবনীতে একের পর এক বিস্ফোরক তথ্য দিচ্ছেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক রস টেলর। কয়েকদিন আগে নিউজিল্যান্ডের এক সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছিল তার আত্মজৈবনিক গ্রন্থের কিয়দংশ। সেখানে জাতীয় দলের হয়ে খেলার বিভিন্ন পর্যায়ে সতীর্থরা তার উদ্দেশে বর্ণবাদী ও কটু মন্তব্য করত বলে জানিয়েছিলেন তিনি। এবার জানালেন বিদেশ-বিভুঁইয়ে তার কটু অভিজ্ঞতার কথা।

স্টাফ.কো.এনজেড নামক নিউজিল্যান্ডের একটি সংবাদমাধ্যম টেলরের ‘ব্ল্যাক এন্ড হোয়াইট’ নামের আত্মজীবনী খুঁড়ে জানিয়েছে, ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) খেলার সময় তার ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিকের দ্বারা শারীরিকভাবে নিগৃহীত হয়েছিলেন সাবেক এই কিউই ক্রিকেটার। রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে খেলার সময়কার কথা মনে করে টেলর লিখেন, ‘মোহালিতে পাঞ্জাবের বিপক্ষে খেলেছিল রাজস্থান। ১৯৫ রান তাড়া করছিল দল, আমি শূন্য রানে এলবিডব্লিউর মাধ্যমে আউট হয়ে যাই। আমরা লক্ষ্যের কাছাকাছিও যেতে পারিনি।’

ম্যাচের পর হোটেলের বারে তার সঙ্গে সেই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে বলে আত্মজীবনীতে উল্লেখ করেন এই কিউই কিংবদন্তি, ‘এরপর ম্যানেজমেন্ট এবং স্টাফদের সঙ্গে দলের সবাই হোটেলের বারে অবস্থান করছিল। সেখানে (রাজস্থান) রয়্যালসের একজন মালিক আমাকে বলেন যে, ‘রস আমরা তোমাকে শূন্য রানে আউট হওয়ার জন্য মিলিয়ন ডলার দেইনি।’ এটা বলেই আমার মুখে ৩-৪টি চড় মারেন তিনি।’

‘সে হাসছিল আর চড়গুলো খুব জোরে ছিল না। তবে সেগুলো মজার ছলে ছিল কিনা সেটা আমি নিশ্চিত নই। আমি তৎক্ষণাৎ এটা নিয়ে উচ্চবাচ্য করতে চাইনি। তবে পেশাদার ক্রীড়াঙ্গনে এটা সাধারণ ঘটনা বলে মনে হয় না।’

আইপিএলের প্রথম আসর থেকেই নিয়মিত মুখ ছিলেন টেলর। ২০০৮ সালে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর হয়ে আইপিএল অভিষেক হয় তার। ২০১০ পর্যন্ত তাদের হয়েই খেলেছেন তিনি। ২০১১ সালে রাজস্থানে নাম লেখান এই কিউই ব্যাটসম্যান। পরবর্তীতে বর্তমান দিল্লি ক্যাপিটালস (সাবেক দিল্লি ডেয়ারডেভিলস) এবং অধুনালুপ্ত পুনে ওয়ারিয়র্সের জার্সিও গায়ে চড়িয়েছেন টেলর।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here