স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহ ::

ঝিনাইদহে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীন পরীক্ষা চলাকালে ফেসবুকে লাইভ দেওয়া সেই ছাত্রলীগ নেতা মনির হোসেন সুমনকে বহিস্কার দেখিয়ে ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।

সোমবার বিকালে প্রকাশিত বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ইঞ্জিনিয়ার মো আব্দুর রহমান স্বাক্ষরিত ফলাফলে দেখা গেছে কালীগঞ্জ প্রিজম কম্পিউটার একাডেমির সকল শিক্ষর্থীই অকৃতকার্য হয়েছেন। এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ছিলেন কালীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন সুমন।

জানা গেছে, কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের কম্পিউটার অফিস এপ্লিকেশনের জুলাই-ডিসেম্বর সেশনে প্রিজম কম্পিউটার একাডেমি থেকে ১৫ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। দুই মাস পর প্রকাশিত ফলাফলে একজনকে বহিষ্কৃত ও বাকি ১৪ জনের রোল নম্বরের পাশে ফেল দেখানো হয়েছে। গত ৮ এপ্রিল দুপুরে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ঝিনাইদহ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট কেন্দ্রে ৬ মাস মেয়াদি কম্পিউটার অফিস এপ্লিকেশন বিষয়ের পরীক্ষা দেওয়ার সময় পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে লাইভ করেন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন সুমন।

ফেসবুকে করা লাইভটি মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়। শুরু হয় দেশ বিদেশে আলোচনা-সমালোচনা। ফেসবুক লাইভে মনির
হোসেনকে বলতে শোনা যায়, “আমরা ছাত্রলীগ, যেখানে যাব সেখানেই বুলেট। রোজা থেকে পরীক্ষা দিচ্ছি, গোল্ডেন এ প্লাস পাব। পরীক্ষার খাতায় গ্রুপের জায়গা লিখে দিয়েছি, “এমপি আনার গ্রুপ” (সরকার দলীয় স্থানীয় সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার)। স্যাররা এ প্লাস না দিলে বোর্ডমোড ভেঙে ফেলবানে”।

এদিকে এ ঘটনায় ৯ এপ্রিল ঝিনাইদহ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের চিফ ইন্সট্রাক্টর সোহরাব হোসেনকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটি পরীক্ষা বাতিলের সুপারিশ করে রিপোর্ট জমা দেন। একই রাতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য কালীগঞ্জ
উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে জানতে প্রিজম কম্পিউটার একাডেমির পরিচালক বসির আহমেদ চন্দনের মোবাইলে ফোন দিলে বিষয়টি
নিয়ে তারা কোন কথা বলতে চাননি।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here