ঝাড়ুদার থেকে সৌদি আরবের কোচ

ডেস্ক রিপোর্টঃঃ  একদিন আগেই কাতার বিশ্বকাপ মিশনের নিজেদের প্রথম ম্যাচে সৌদি আরবের কাছে ১-২ গোলে হেরেছে আসরের হট ফেবারিট আর্জেন্টিনা। এদিন লিওনেল মেসির দলকে দুর্দান্তভাবে হারিয়ে দিয়েছে এশিয়ার দেশটি। ম্যাচের প্রথমার্ধে ১ গোলে পিছিয়ে থাকার পরও দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল দলটি।

সৌদি আরব দলের মাঠের বাইরে থেকে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন কোচ হার্ভি রেনার। তার অতীত ভেসে বেড়াচ্ছে এখন অন্তর্জালে। তিনি একজন ঝাড়ুদার ছিলেন। এরপর গতকাল  হয়ে উঠেছেন আর্জেন্টিনাকে হারানোর নায়ক। ৩০ বছর বয়সে তিনি যখন ফ্রান্সের দ্রাগনুইনারের কোচ ছিলেন তখন প্রশিক্ষণ সেশনের মাঝে ঝাড়ুদারের কাজ করতেন।

হার্ভি রেনারের এটা নতুন কোনো সাফল্য নয়। এর আগে একমাত্র কোচ হিসেবে দু’টি ভিন্ন দেশের হয়ে আফ্রিকা কাপ অব নেশনস জিতেছিলেন এই ফরাসি কোচ। রেনারের কোচিং ক্যারিয়ারও শুরু ফ্রান্সের ক্লাব দ্রাগিনিয়াঁর হয়ে। এরপর দায়িত্ব নেন ইংল্যান্ডের চতুর্থ স্তরের লিগের দল ক্যামব্রিজ ইউনাইটেডের। সে সময়টা একেবারেই ভালো যায়নি রেনারের।

কোচ হয়ে রেনার মূল চমকটা দেখান জাম্বিয়ার কোচ হয়ে। নিজের দ্বিতীয় মৌসুমেই কাপ অব নেশনসের ফাইনালে আইভরিকোস্টকে হারিয়ে শিরোপা জেতে জাম্বিয়া। এরপর আইভরিকোস্টের হয়েও একই শিরোপা জেতেন রেনার। আইভরিকোস্ট থেকে তিনি পাড়ি জমান লিগ আঁ-র ক্লাব লিলে। এরপর ফেরেন জাতীয় দলের দায়িত্ব নিয়ে মরক্কোতে। দায়িত্ব নিয়েই মরক্কোকে বিশ্বকাপের মূল পর্বে নিয়ে যান এই কোচ।

এরপর আবার রেনারের ঠিকানা সৌদি আরবে। দ্বায়িত্ব ছিল বাছাইপর্ব পার করে সৌদি আরবকে বিশ্বকাপের টিকিট এনে দেওয়ার। সেটা তো রেনার করেছেনই, এমনকী দেখালেন বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচেই চমক।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here