ব্রেকিং নিউজ

জেসমিন দীপা’র কবিতা ‘একেলা কথন’

একেলা কথন

জেসমিন দীপা

 

তোমাদের ওদিকটায় কি এমন সুন্দর ভোর হয়? পাখি ডাকে? মোরগ ডাকে?

আমাদের এদিকটায় ডাকে৷ বড় বড় বকুল কিছু কুড়িয়ে রেখেছো? ছবি তুলেছো? দিলেনাতো? বলেছিলে দেবে,

গতকাল ঝুম বৃষ্টিতে কখন এসেছিলে , কয়টায়? একটা ফোন দিলেই তো নীচে যেতাম , দেখতে ইচ্ছে হয়নি আমাকে?

এই সমস্ত আকাশটা আমাদের, আমরা কেন এক খণ্ড নিবো? নিতে যদি হয় পুরোটা নিবো৷

আমার খুব দেখতে ইচ্ছে করে তুমি কিভাবে ঘুমাও, ঘুমালে তোমাকে কেমন লাগে, টুপ করে কপালে চুমু দিয়ে, চুলে আঙ্গুল দিয়ে বিলি কেটে দিতাম! তুমি আরামে ঘুমাবে৷

আমার খুব ইচ্ছে করে সারারাত পথে পথে তোমার হাত ধরে হাঁটতে, আমার খুব ইচ্ছে করে বর্ষার ভরা নদীতে তোমার সাথে সাঁতার দিতে, বনে বাদাড়ে ঘুরে ঘুরে ক্লান্ত হতে৷

আর

আর, খুব বেশী করে তোমার অবহেলা পেতে, তুমি যে তেমনটাই ভালোবাসো৷

পথের বাঁকে হারিয়ে গেলে, তাকাওনিতো, দেখতে পেতে একজোড়া চোখ তাকিয়ে ছিল, শেষ অব্দি

কাল ফের চোখ পড়লো, যেখানটাতে দাঁড়িয়ে ছিলাম, অনেক কথায় হয়েছিল কোন কথাই না বলে, কিছুক্ষণ একাকি ছিলাম আর অনুভবে তুমি, তুমি কি বুঝতে পারো?

আচ্ছা, আমি ছাড়া আর সব কিছু তোমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ, কেবল আমি ছাড়া…. আচ্ছা , আমি কেন নই? আমার অনুভবের মাতাল স্পর্শ তোমাকে ছুঁয়ে দেয়না!

এই ইচ্ছার বিশাল ঐশ্বর্য ফেলে রেখেই জানি চলে যেতে হবে৷ যাবার সময় যদি জ্ঞান থাকে, এসব স্মরণ করে দু’চোখের কোণে জল গড়িয়ে পড়বে, আর আমি চলে যাবো দূর ভূবনে…..

সে ভূবনটা অন্যরকম, বড্ড অচেনা সেদিন না হয় সাথে থেকো, চলে যেওনা৷

 

 

২৫/৭/১৯

Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

গুরুপ্রসাদ মহান্তির গল্প ‘চিদাকাশ’

গুরুপ্রসাদ মহান্তি :: মুখে মুখোশ সাঁটকে বাঁচতে গিয়ে শেষে যে মরেই যাচ্ছে! চশমায় ...