চুয়াডাঙ্গায় রোটাভাইরাসজনিত ডায়রিয়ায় আক্রান্তে এক শিশুর মৃত্যু। গত দু’দনে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে রোটাভাইরাসজনিত ডায়রিয়ায় আক্রান্তে ভর্তি হয়েছে ১৯ শিশু।

ঠান্ডা গরমের মাঝে চুয়াডাঙ্গায় শিশুদের মধ্যে ব্যাপক হারে নিউমোনিয়া রোগের প্রকোপ বেড়েছে। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ১৯ শিশুকে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে ৬ শিশু নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত। বাকি ১২ শিশু ডায়রিয়ায় আক্রান্ত। সংশ্লিষ্টদের নিকট থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. মাহবুবুর রহমান মিলন বলেন, রোটা ভাইরাসের কারণে ডায়রিয়া ছড়াচ্ছে। ৫ মাস থেকে ২ বছর বয়সী শিশুদের মধ্যে এ রোগী বেশি দেখা দেয়। রোটা ভাইরাস মূলত পানিবাহিত রোগ। পরিষ্কার পানি ব্যবহার করলে শিশুদের মধ্যে রোটাভাইরাস জনিত ডায়রিয়া হয় না। তা ছাড়া রোটা ভাইরাস প্রতিরোধক টিকা রয়েছে। শূন্য থেকে ৬ মাসের মধ্যে এ টিকা দিলে শিশুরা ডায়রিয়া থেকে অনেকটাই নিরাপদ থাকে। আর নিউমোনিয়া থেকে শিশুদের রক্ষা করতে পরিচর্যায় বিশেষ যত্নবান হওয়া খুবই জরুরি। এই গরম, এই ঠান্ডা। এতে শিশুরা অধিকাংশ সময় ঘামে। ঘাম শরীরে বসে ঠান্ডা লাগে। শিশুরা যাতে না ঘামে সেদিকে যেমন দৃষ্টি রাখতে হয়, তেমনই শীতও যাতে তাদের কাবু না করতে পারে সেদিকেও নজর রাখতে হয়। ঘাম কোনোভাবেই শরীরে বসার সুযোগ দেয়া যাবে না। মুছে দিতে হবে। তা ছাড়া তেমন লক্ষণ দেখা দেয়ার সাথে সাথে হাসপাতালে নিতে হবে।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে ৬১ শিশু ভর্তি রয়েছে। আরো বাড়চ্ছে শিশুর সংখ্যা। হিমশিম খাচ্ছে ওয়ার্ডের নার্সসহ কর্মরত চিকিৎসকরা।

ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডট কম/চুয়াডাঙ্গা

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here