ডেস্ক রিপোর্ট::  ঘুষের ৫০ হাজার টাকাসহ গ্রেপ্তার হওয়া সহকারী কর কমিশনার অভিজিৎ কুমারকে চাকরি থেকে অপসারণ করা হয়েছে।

২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর তাকে ঘুষের টাকাসহ গ্রেপ্তার করেছিল দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এরপর থেকে দীর্ঘদিন সাময়িক বরখাস্ত ছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম সই করা প্রজ্ঞাপন সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

প্রজ্ঞাপন সূত্রে জানা যায়, দুদকের বগুড়া সমন্বিত জেলা কার্যালয় থেকে ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর সহকারী কর কমিশনার অভিজিৎ কুমার দে দুর্নীতির অভিযোগে নিজ কার্যালয় থেকে ঘুষের টাকাসহ গ্রেপ্তার হন। এরপর তাকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এমন ঘটনায় ২০২১ সালের ১৯ আগস্ট অভিজিৎ কুমার দে’র বিরুদ্ধে সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮ এর ২(খ) অনুযায়ী অসদাচরণের অভিযোগে বিভাগীয় মামলা রুজু করা হয়েছিল। যার বিপরীতে অভিজিৎ কুমারের লিখিত জবাব সন্তোষজনক বিবেচিত হয়নি।

অন্যদিকে তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত বিভাগীয় মামলায় গুরুদণ্ড আরোপের পর্যাপ্ত প্রমাণ পাওয়ায় সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮ এর বিধি ৭(২)(ঘ) অনুযায়ী অভিযোগ তদন্তের জন্য একজন তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হয়। ওই তদন্ত প্রতিবেদনে অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। একই সঙ্গে তাকে কেন দোষী সাব্যস্ত করে ‘চাকরি থেকে অপসারণ করা হবে না’ সে বিষয়ে দ্বিতীয় বারও তাকে কারণ দর্শানো নোটিশ প্রদান করা হয়। ওই নোটিশের জবাবও সন্তোষজনক হয়নি।

তদন্ত প্রতিবেদন ও বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের মতামতের ভিত্তিতে ‘চাকরি হতে অপসারণ’ দণ্ড প্রদানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে; যা রাষ্ট্রপতিও অনুমোদন করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here