ব্রেকিং নিউজ

ঘিওরে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৪

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি : মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলায় একটি আবাসন প্রকল্পের বাসিন্দা ৮ম শ্রেণিতে পড়ুয়া ১৪ বছরের শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। অভিযুক্ত রাজিব রবিদাস (১৯) ও ধর্ষণের ঘটনা পুলিশকে জানাতে বাঁধা ও বিচারের নামে সময়ক্ষেপন করার অভিযোগে স্থানীয় মাতাব্বরসহ অভিযুক্তের মা বাবাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তরকৃতরা হলেন, ঘিওর উপজেলার নিন্দাপাড়া আবাসন কেন্দ্রের বাসিন্দা রাজিব রবিদাস (১৯), তার বাবা আবু রবিদাস (৪৫), মা জ্যোৎস্না রানীদাস (৩৬) ও একই উপজেলার বৈকুন্ঠপুর গ্রামের মাতব্বর মো.তামেশ খান (৭৫)।

ঘিওর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আশরাফুল ইসলাম জানান, নির্যাতিতা ওই শিশু ও তার পরিবার ঘিওর উপজেলার একটি আবাসন কেন্দ্রে বসবাস করতেন। বাড়িতে খাবারের পানি শেষ হয়ে যাওয়ায় ১৬ সেপ্টেম্বর বিকেলে বাড়ির অদূরে একটি টিউবওয়েলে পানি আনতে যায়। এসময় ওই আবাসনের আরেক বাসিন্দা রাজিব রবিদাস ওই শিশুটিকে ফুসলিয়ে নিজ ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। শিশুটির আর্তচিৎকারে স্থানীয় লোকজন হাতে নাতে রাজিব রবিদাসকে ধরে ফেলে।

ঘটনাটি কাউকে না জানানো এবং মীমাংসা করার জন্য দুই দফায় সময় নেন স্থানীয় মাতব্বর তামেশ খান। কিন্তু মাতব্বর তামেশ খানের টালবাহানার কারণে নির্যাতিতা ওই শিশুটির পরিবার কৌশলে পুলিশকে মোবাইল ফোনে ঘটনা খুলে বলেন। সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) রাতে পুলিশ গিয়ে ঘটনার সতত্যা পেলে রাজিবসহ ৪ জনকে গ্রেপ্তার করে । এঘটনায় নির্যাতিতা ওই শিশুর মা বাদি হয়ে রাজিব রবিদাসকে প্রধান আসামী ও ঘটনা মিমাংসা করার চেষ্টায় অভিযুক্তের বাবা, মা ও মাতব্বরকে আসামি করে ঘিওর থানায় নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) মানিকগঞ্জ ২৫০ শষ্যা সদর হাসপাতালে ওই শিশুটির মেডিকেল পরীক্ষা হয়েছে। ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে ২২ ধারায় ভিকটিমের জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে। আসামিদের আদালতে পাঠানো হলে বিচারক তাদের জামিন না দিয়ে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ঢালচর এদের তাড়িয়ে দিয়েছে!

শিপুফরাজী, চরফ্যাশন প্রতিনিধি :: ফরিদ মাঝির স্ত্রী বেগম বিবি (৬০), প্রয়াত আবদুল ...