ব্রেকিং নিউজ

গোলাম রহমান (ব্রাইট)’র কবিতা ‘শীত নামক পল্লীবালা’

“শীত নামক পল্লীবালা”
-ডাঃ গোলাম রহমান (ব্রাইট)
.
শীতের সকালে অনাবিল প্রশান্তি সকলের জীবনে আসে
কুয়াশা মোড়া স্বর্গীয় সৌন্দর্য আজো মনের পাতায় ভাসে
অগ্রহায়ণের শুরুতে শীত আসে হিমেল পরশ নিয়ে
আপন বৈশিষ্ট্যে সমুজ্জল ক্রমান্বয়ে হাড় কাঁপুনি দিয়ে।
.
শীতের সকাল অনবদ্য সৌন্দর্যের পসরা সাজিয়ে বসে
নানারকম পিঠাপুলি সব তৈরী হবে খেজুরের রসে
পৌষ-মাঘ জুড়ে হাড় কাঁপুনি দিয়ে দুর্দান্ত দাপট চলে
এসব কারণে ‘মাঘের শীত বাঘের গায়’ প্রবচণে বলে।
.
শীতের সকাল আসে বৈরাগ্য বেশে একরাশ নির্জনতা নিয়ে
সূর্যালোক আসে কুয়াশার ধূম্রজাল অবমুক্ত করে দিয়ে
ঝাপসা সকালে শিশির বিন্দু দেখেছি মটরশুঁটির গায়
সোনালী আলোতে কর্তব্য শেষে শিশির উধাও হয়ে যায়।
.
শীতের সকাল মাধুর্যে ভরা পাখির কলরবে মুখরিত
দিগন্ত জোড়া সরিষা খেত হলুদের সমারোহে শিহরিত
সকালের রোদে জ্বলে শিশিরবিন্দু মনের গহীনে আঁকা
খোলা আকাশের নিচে হলুদ চাদর বিছিয়ে যেন রাখা।
.
শীতের সকালের মুহুর্তটা পুরো আনন্দ মুখর বটে
সূর্যালোকে শিশিরবিন্দু মুক্তোদানা হয়ে ঝরে দৃশ্যপটে
রোদে দেয়া লেপের ওম ঢুকে থাকে তুলোর ফাঁকে ফাঁকে
সাদা বকের দল খাল-বিলেতে বসে থাকে ঝাঁকে ঝাঁকে।
.
শীতের সকালে কিষাণী বাড়ির একপ্রান্তে উনুন জ্বলে
ধার ঘেঁষে বাড়ির ছেলে-বুড়ো আগুনের আঁচ নেয়ার ছলে
খেজুরের রসের মিষ্টি গন্ধ হিমেল বাতাসে ভেসে আসে
ফেলে আসা সেই দিনগুলোর কথা আজও স্মৃতিতে ভাসে।
.
বাংলার মেঠোপথে খেজুর গাছে চোখে পড়ে রসের হাঁড়ি
ভোর না হতেই গাছিরা সেগুলো নামিয়ে আনেন বাড়ি
পড়ন্ত বিকেলে- সান্ধকালে পাখির সারিবদ্ধ উড়ে চলা
অতিথি পাখির কিচির মিচির শব্দে মন হয়েছে উতলা।
.
জীবন গাড়িটা সচল রাখতেই যান্ত্রিক শহরে ছুটে চলা
আজও আমাকে ইশারায় ডাকে শীত নামক পল্লীবালা।
.
ফরিদপুর, জহুরনগর, কালিগঞ্জ, সাতক্ষীরা।
Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

আশনা হাবিব ভাবনার গল্প ‘বেঙ্গী’

আশনা হাবিব ভাবনা :: বুঝতে শেখার পর থেকে নিজেকে বেঙ্গী নামেই চিনতাম। ...