ডেস্ক রিপোর্ট::  জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয় শুধু পাঠদান আর গবেষণার জন্যই নয়, সবাইকে খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কার্যক্রমে সংশ্লিষ্ট থাকতে হবে। খেলাধুলায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে নিয়মানুবর্তিতা বৃদ্ধি পায় আর সংঘাত ও সহিংসতা থেকে দূরে থাকা যায়। খেলাধুলা ও সংস্কৃতিতে যারা দক্ষ তারা বিশেষ মেধাসম্পন্ন।

সোমবার (২০ মে) বিশ্ববিদ্যালয়ের ষষ্ঠ ইনডোর গেমস প্রতিযোগিতার উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও মানবিক বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলার জন্য আমাদের বিভিন্ন প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা করতে হবে। খেলাধুলায় নারী পুরুষ বৈষম্য দূরীকরণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময় সজাগ রয়েছেন। তার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার খেলোয়াড়দের জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধি করতে সর্বদা সচেষ্ট রয়েছে।

এ সময় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. হুমায়ুন কবীর চৌধুরী বলেন, আমাদের বেশ কিছু সংকট আছে। ইনডোর আউটডোর গেমসে জায়গা স্বল্পতা প্রকট। আমাদের সুনাগরিক হওয়া প্রয়োজন। সুনাগরিক হওয়ার পেছনেও সুস্বাস্থ্য ও খেলাধুলা গুরুত্বপূর্ণ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রীড়া উপকমিটির (দাবা, ক্যারাম, টেবিল টেনিস, ব্যাডমিন্টন, টেনিস ও স্কোয়াশ) আয়োজনে শরীরচর্চা শিক্ষা কেন্দ্রের ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আরিফউল ইসলাম।

শরীরচর্চা শিক্ষা কেন্দ্রের উপ-পরিচালক গৌতম কুমার দাসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. হোসনে আরা বেগম, চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক মোহা. আলপ্তগীন, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. দীপিকা রাণী সরকার এবং প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন অধ্যাপক ড. প্রতিভা রানী কর্মকার। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here