ব্রেকিং নিউজ

করোনা ও চীনা রেসিপি

কৃষ্ট মোহন সিংহ :: চীনা খাদ্যাভ্যাস নিয়ে আমরা যত ঠাট্টা রসিকতা করি না কেন জীবন উপভোগ্য সুস্বাদু খাবার তৈরী করা যে দুরূহ কাজ তা একমাত্র চীনের দক্ষ রাঁধুনিগণই জানে । জ্যান্ত ব্যাঙের ব্লান্ডার করা সুপ, সাপ-জোঁকের  তাজা রক্তমিশ্রত এ্যালকোহল আর সামুদ্রিক অক্টোপাসের নড়াচড়া দেহ যদি গিলতে না পারলে তো জীবনটাই বৃথা। জগতের সব স্থলজ-জলজ  বাছবিচানহীন বিষাক্ত ও নিরীহ বন্যপ্রাণী যদি  উদরে না নিতে পারলে তো মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব হয় কিভাবে? পৃথিবীতে একবারই তো এসেছি এ সুযোগে  জীবনটাকে ভোগ করে নেই। চীনারা ভাবছে বোধহয় তাই।

প্রসংগটা এ কারণে যে, সম্প্রতি প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস চীনের উহান শহরের এক বন্যপ্রাণী বিক্রির বাজার থেকে ছড়িয়ে পড়ে বলে জানায় চীন। বাদুড় কিংবা বনরুই যেটা থেকেই করোনার উৎপত্তি হোকনা কেন, চীনাদের নোংরা খাদ্যাভ্যাসের ফলে বিশ্বমানবতা আজ যে বিপন্নের পথে এতে সন্দেহ নেই।

আজ চৈত্র সংক্রান্তি। ১৪২৬ বঙ্গাব্দের শেষদিন সোমবার। আগামীকাল ( ১৪ এপ্রিল ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ)  মঙ্গলবার,  পহেলা বৈশাখ ১৪২৭ বাংলা সন।  মঙ্গলে মঙ্গল শোভাযাত্রা আর বটমূলে সুরের মূর্ছনায় প্রাণবন্ত হবে না দিনটি এবার। পাতে থাকবে না পান্তা আর ইলিশ। করোনার করাল গ্রাসে গোটা বিশ্বে যেন বিভীষিকাময় আবেগ আর উৎকণ্ঠা। করোনা ঠেকাতে লকডাউন চলছে। কর্মহীন মানুষ।  কেউ পেট ভরে খাবে আর কেউ  থাকবে অনাহারে।

এসবের মধ্যে গৃহবন্দী জীবন।  সকাল বিকাল দু’বেলা  বাড়ির সামনে ফাঁকা রাস্তায়  হাঁটাহাঁটি। শরীরটা না ঘামালে তো রাতে পাতলা ঘুম।

 রাত দশটা। বিছানায় বালিশে হেলান দিয়ে টিভিতে করোনার আপডেট শুনছি।   শনাক্ত ১৮৩ মৃত্যু ৪ । ক্লান্ত শরীর চোখের পাতা যেন শুরু হয়ে আসছে। পাশে গাঁ ঘেষে বসলো আমার প্রিয়তমা সহধর্মিণী।

: চা নাও।
: কি ব্যাপার এতো রাতে লাল চা?

: হুম, গলায় ভাইরাস থাকলে নিচে নেমে আসবে।
: আমাকে ধরেছে নাকি?

: চিন্তা লাগে যদি করোনা চলে আসে। তুমি হাট বাজারে যাও, লোকের গা ঘেঁষে খরচ কর, টাকা নাড়।

: আমাকে ধরবে না। আমি খুবেই সৎ। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হয়ে চলি। মানুষের উপকার করি। চলতে ফিরতে ভগবানের নাম নেই,  –কথাগুলো হেসে বললাম।

: টিভি খবরে দেখ না, করোনা সবাইকে ধরছে। ধনী আর গরীব, সৎ আর অসৎ। বৃটেনের প্রধানমন্ত্রী রবিস জনসন এবং ডাক্তারগণ   পর্যন্ত বাদ নেই। আর তুমি? বাইরের ঘুন্টিতে আর বসো না। কত রকম লোক আসে।

: খবর তো ভালোই রাখো দেখছি। আগে স্টার জলসা নিয়ে পাগলা। আর তোমার বেটা চাইলেই পাঁচ টাকা দাও আর সে দৌড়ে গিয়ে চানাচুর, পাউরুটি নিয়ে আসে এটা দোষ নেই। বাইরের খাবারে কি পয়জন নেই? রাস্তায় খোলামেলা  ধুলাবালি মাছিপড়া  খাবার আর খাওয়া যাবে না। বাড়ির খাবার রেডি রাখতে হবে। তাছাড়া বাচ্চাদের কেন বয়স্ক ব্যক্তিদেরকেও  তেলে ভাজা বাইরের  বিষাক্ত খাবার খাওয়া ঠিক নয়। গ্যাসট্রিক বাড়ে, শরীর অসুস্থ হয়, মন-মেজাজ ঠিক থাকে না। শরীর দুর্বল থাকলে ভাইরাস বেশি আক্রমন করে।

: তুমি তো দোকানে পরোটা আর ঘাটিয়া চা খাও। বাড়িতে আদা লাল চা খেতে পার। লোক খাওয়াইতে চাইলেই খেতে হবে? কত ভালো জিনিস রেঁধে রাখি, খেতে পার না, প্রায় নষ্ট হয়।

: ঠিক আছে লক্ষী আর খাবো না। জানো আজকে জি-বাংলা ২৪ নিউজ বুলেটিনে শুনলাম ভারতের  বিহারে এক পরিবারে ২৩ জন সদস্য করোনায় আক্রান্ত। ছোট বাচ্চা পর্যন্ত আছে।

: হায় ভগবান কি হবে তাদের! গোটা পরিবার ধ্বংস।

: ওরা যে আবার গ্রামের কার সাথে মিশেছে। পরিবার কেন এভাবে গ্রাম কা গ্রাম, দেশ কা দেশ শেষ হয়ে যাবে যদি আমরা সচেতন না হই।  ওমান থেকে ২৪ এপ্রিল লোকটি এসেছিল। কথা মানে নি। এখন এক থেকে তেইশ।

: লোকটা হিন্দু না মুসলমান?

: কেন, মুসলমান হলে কি ভালো লাগতো? করোনা সবাইকে ধরছে। হিন্দু আর মুসলমান।  যুক্তরাষ্ট্রে নেপালী প্রবাসী কমিউনিটিতে এটা প্রবল এবং বেশি মারা যাচ্ছে। ধুমপান আর মদপানে যারা অভ্যস্ত তাদের ফুসফুস আগে থেকেই দুর্বল। তারপর করোনা ধরলে তো শেষ।

: ওমান আর ইতালি  থেকে  আসলেই কি করোনা ধরবে? কেউ না কেউ তো সুস্থ ছিল।

: এখানেই তো ঘটনাটা।  বুঝে না কেউ কেউ। একটি উড়োজাহাজে তিন শত যাত্রী উঠলো। সব বন্ধ সুই পর্যন্ত কোন ছিদ্র নেই। উপড়ে উঠলে অক্সিজেন কমে যায়। তখন একজন যাত্রীর শ্বাস-প্রশ্বাস অন্য যাত্রী অবলীলা ক্রমে গ্রহন করে ফেলে। যদি একজন করোনা ভাইরাস রোগী  সেখানে থাকে তাহলে  দীর্ঘপথে সবাইকে দাওয়াত দিতে পারবে। এভাবেই তো উহান থেকে গোটা বিশ্বে মহামারী ছড়িয়ে পড়েছে।

 : সবাই তো আক্রান্ত হলেও মরে না। অনেকেই বেঁচে গেছে।

: ঠিকই বলেছ, শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থাকলে করোনাতে ভালো হয়। উহানের প্রথম রোগী  ৫৫ বছর বয়সী  এক জেলে সেড়ে উঠেছে। মি. রবিস জনসনও সেড়ে উঠেছেন।

: আচ্ছা, করোনা ভাইরাসকে ” নভেল করোনা” বলা হচ্ছে কেন?এটাতো রোগ, ভালো নাম কেন?

: নভেল পুরষ্কার দেওয়া হয়েছে- হা হা হা। জানো – যারা বিশ্বে খারাপ কাজে খ্যাতিমান হতে পারবে তাদেরকেও এই পুরষ্কার দেওয়া হয়। করোনা কত শক্তিমান দেখ, কেউ আটকাতে পারছে না। গবেষণা না করে শুধু   গুলি খেয়ে মালালা ইউসুফজাই এটি পেয়ে গেল- কথা গুলো মুচকি হেসে বললাম।

: হেই তোমার মাথা, সব সময়ই ফাজিল।  বুঝিয়ে বলো না একটু,  মালালা কে?

: আচ্ছা বলছি। নভেল ( Novel )   আর নোবেল ( Nobel ) শব্দ দুটি এক নয়। ইংরেজি ” Novel” এর বাংলা অর্থ উপন্যাস বা নতুন। Covid-19 বা করোনা ভাইরাস ভয়াবহতার কারণে এ শতাব্দীর একটি নতুন ভাইরাস তাই বিশেষজ্ঞগণ এর নামকরন করেছেন.  ” নভেল করোনা ভাইরাস- ২০১৯” বা ”  2019-nCov” সংক্ষেপে      ”  Covid-19″

যেমন- মনে রাখার জন্য  বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থার আঞ্চলিক কমিটি কর্তৃক  বিভিন্ন সময়ের ভয়ংকর ঝড়ের নাম রাখা হয় আইলা, ফনী, বুলবুল, তিতলি, বিজলী ও নার্গিস ইত্যাদি।

আর নোবেল পুরষ্কার হলো বিশ্বখ্যাত সবচেয়ে সম্মানজনক   পুরষ্কার যা সুয়েডীয় বিজ্ঞানী আলফ্রেড নোবেল কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত।    পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, চিকিৎসা শাস্ত্র, অর্থনীতি, সাহিত্য ও শান্তি মোট ছয়টি বিষয়ে  যারা অসাধারণ অবদান রাখতে পারে তাদেরকে  নোবেল পুরষ্কার দেওয়া হয়–বুঝলে সোনা?

আর মালালা, সে অনেক বড় কাহিনী। মেয়েটি একবারে ছোট।  উত্তর পশ্চিম  পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের  সোয়াত জেলায় ১৯৯৭ খ্রিষ্টাব্দের ১২ ই জুলাই এক সুন্নি মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করে সে। মিঙ্গোরা নামক স্থানে মালালা পিতা জিয়াউদ্দিন ইউসুফজাই এবং মাতা তোর পেকাই ও  দুই কনিষ্ঠ ভাইয়ের সাথে বাস করতো।

২০০৯ সালে তালেবানরা সে দেশে ফতোয়া জারি করে যে মেয়েরা বিদ্যালয়ে আর বাজারে যেতে পারবে না। ফতোয়া জারির পর তালেবানরা শতাধিক স্কুল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে নষ্ট করে দেয়। সে সময় মালালা বার্ষিক পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলো। বিষয়টি সে মেনে নিতে  পারেনি। নারী শিক্ষা অধিকারের জন্য মালালা বিবিসি উর্দু ব্লগে লেখা শুরু করে। তখন সে ছদ্ম নাম ” গুল মাকাই” ব্যবহার করে।

সাহসী প্রতিবাদী লেখার জন্য মালালার খ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে। ২০০৯ সালের ডিসেম্বর মাসে তার আসল পরিচয় প্রকাশ করে । সেই সময় সে নারীশিক্ষার জন্য সর্বসমক্ষে টেলিভিশনে বক্তব্য দেওয়া শুরু করে। ২০১১ সালে অক্টোবর মাসে দক্ষিণ আফ্রিকার আন্দোলনকর্মী ডেসমন্ড টুটু “আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরষ্কারের” জন্য মালালার নাম মনোনীত করেন। সে বছরে  দুই মাস পর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানি তাকে ” জাতীয় যুব শান্তি পুরষ্কার ” প্রদান করেন।

তালেবানদের তারগেটে পড়ে যায় ছোট্ট মেয়ে মালালা। ২০১২ সালে তালেবানরা তাকে হত্যার সিদ্ধান্ত নেয়। অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী মাত্র ১৫ বছর বয়স। স্কুল থেকে বাসে বাড়ি ফেরার পথে এক বন্দুকধারী তাকে চিহ্নিত করে তিনটি গুলি করে। একটি গুলি তার কপালের বাঁ দিক দিয়ে ঢুকে চামরার তলা দিয়ে মুখমন্ডলের মধ্যে দিয়ে কাঁধে প্রবেশ করে। সারাবিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মালালার চিকিৎসার প্রস্তাব আসতে শুরু করে। অবশেষে সরকারি খরচে যুক্তরাজ্যের বার্মিংহ্যাম শহরের কুইন এলিজাবেথ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বেঁচে যায় মালালা। নারীশিক্ষা অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়।   নারী শিক্ষার আন্দোলনকর্মী স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১৪ সালে মাত্র ১৭ বছর বয়সে মালালাকে নোবেল শান্তি পুরষ্কার দেওয়া হয়।

  বুঝতে পেরেছো তো আমার কথা,– কি ব্যাপার ঘুমালে না-কি?

: না ঘুমাইনি, কষ্ট হলো তার জন্য। কান্না থামাতে পারলাম না।

: আহা! কষ্ট নিও না- কথাটা তার মাথায় হাত রেখে বললাম।

: আচ্ছা হাইব্রিড খাদ্য যেমন- সবজি, প্রাণীজ খাবারে কেমন পুষ্টি থাকে? শুনছি পোল্ট্রিমুরগীতে করোনা—–।

: থামো, আসল কথা বলেছ। দ্রুত বর্ধনশীল পোল্ট্রি মুরগী, বিষ্ঠা বা লিটার  খেকো মাছ আর হাইব্রিড জাতীয় সবজি দ্রুত পচনশীল। বিষাক্ত বিষমিশ্রিত খাবারে নেই কোন স্বাদ আর ততটা প্রোটিন। এসব খেয়ে আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তো বাড়েই না বরং বিভিন্ন রোগ  দেহে বাসা বাঁধে। এখন আমাদের সময় এসেছে এগুলো ভাবার।

: এই শুনছো আজকে ব্যাঙ ডাকছে। গোটা চৈত্রে খা খা বৃষ্টি নেই। শুকনো দিনে ব্যাঙের বলি।

: বৃষ্টি হবে। ব্যাঙ আমাদের উপকারী জ্ঞানী জীব। আগেই বলে দিতে পারে কোনদিন বৃষ্টি হবে।

: শুনেছি চীনারা ব্যাঙ খায়, ঠিকই!

: খায়, সব খায়। জোঁক,  সাপ, বিষ কাকরা, পোকা, অক্টোপাস, তেলাপোকা এমনকি কুকুর বিড়াল পর্যন্ত। ব্যাঙ রান্না করে খেলে তো কথাই ছিল না। জ্যান্ত পিষে জুস করে খায়। এটা খেলে নাকি বিছানায় বেশিক্ষণ থাকতে পারবে। ব্যাটারা দেখতে সুন্দর কিন্তু খাওয়া নোংরা।

: আচ্ছা তারা এতো সুন্দর কেন?

: গরম পানি পান করে। তুমিও প্রতিদিন লেবু, ফলমূল, গরম পানি আর  টাটকা শাকসবজি খাও  দেখবে ভারতের শ্রীদেবীর মতো সুন্দরী হয়ে যাবে।   মুখে ফেয়ার এন্ড লাভলী মাখতে হবে না আর।

 : হা হা হা হো হো হো, পার তুমি!    ঐ দেশে  কি আইন নেই , বন্ধ করতে পারে না এটা? বন্যপ্রাণী  সব খেয়ে ফেলবে তারা!

: হুম, সম্প্রতি দেশটির কৃষি বিভাগ সরকারের কাছে এ সংক্রান্ত নতুন একটি নীতি প্রস্তাব করেছে। এতে বলা হয়,

”কুকুর মানুষের উপকারী একান্ত সঙ্গী হয়ে উঠেছে। কুকুরকে এখন আর গৃহপালিত ও ভক্ষণযোগ্য হিসেবে বিবেচনা করা হয় না। চীনেরও তা করা উচিৎ নয়। ”

জনমত জানতে খসড়া এ নীতি বর্তমানে উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে করোনার চরম ভুক্তভোগী চীনারা বর্তমানে সার্বিকভাবেই নিজেদের খাদ্যাভ্যাস পুনর্বিবেচনা করছে।

: আচ্ছা, কুকুর তো মানুষের বিষ্ঠা খায়, ওটাকে কিভাবে খায় ওরা।

: ছি! ঘুমাতে দিবে আমাকে? আগামীকাল নববর্ষ  ভোরে জেগে ওঠতে হবে, নইলে সারাবছর অলস থাকবে- জোক করে বললাম। আগে খেত এখন আর খায় না।

মানব সভ্যতার ক্রমবিকাশের সঙ্গে সঙ্গে কুকুর গৃহপালিত প্রাণী থেকে মানুষের একান্ত সঙ্গী হয়ে উঠেছে। প্রভুভক্ত কুকুর নিজের জীবন বাজি রেখে গৃহকর্তাকে শত্রু থেকে রক্ষা করে। তাছাড়া অপরাধী শনাক্তকরণে এ প্রাণীটির দক্ষতা সকলের জানা। সেই উপকারী প্রাণীটিকে জ্যান্ত গরম পানিতে ছুড়ে মারা, আগুনে পুড়িয়ে ঝলসানো কাবাব তৈরি বিশ্ব বিবেকও নাড়া দেয়। এতো গেল কুকুরের কথা। আর বিড়াল, ব্যাঙ, সরীসৃপ পাণী, পোকামাকড়, বাদুড়ের মত উপকারী প্রাণী মনের মত খাওয়া চীনাদের অদ্ভুত  রেসিপি।

: সেদিন বিড়ালটা আমার গা ঘেঁষে গেল। এখন ভয় লাগে তাদের। তারাতারি স্নান করে নিলাম।

: হুম, আমেরিকায় চিড়িয়াখানার এক বাঘ করোনায় মারা গেছে। তুমি বিড়ালকে আগেই খাবার দিয়ে দিবে, তাহলে আর ঘেঁষতে যাবে না।

: একবার  শোনা গেল  অ্যানথ্রাক্স রোগে অনেক গরু মারা গেল।

: হুম, অ্যানথ্রাক্স, নিপাহ ভাইরাস, হাম ইত্যাদি রোগে মানুষ ও প্রাণী মারা যায় আমাদের দেশে। ২০১৭ সালে রাজবাড়ী জেলা কালুখালী উপজেলায় শ্রীরামপুর গ্রামে অ্যানথ্রাক্স রোগে আক্রান্ত গরু জবাই এবং খেয়ে শিশুসহ ১৪ জন নারীপুরুষ অসুস্থ হয়েছিল। তাই রোগে আক্রান্ত কোন প্রাণীর মাংস খাওয়া বিপদজনক।

 আচ্ছা তুমি বিড়াল গা ঘেষা কাপড় কোথায় রেখেছ?

: কেন, সাথে সাথে ধুয়ে নিছি।

: হবে না, একটা কাপড়ে জীবাণু লাগলে এর DNA,RNA অনেক দিন পর্যন্ত থাকে- ভয লাগানোর জন্য একটু রসিকতা করলাম।

: তোমার মাথা, লোকজন যে বিদেশি পুরাতন কাপড় কিনে, ওগুলোতে তাহলে জীবাণু থাকে।

: ঠিক, বাঙালিতো বুঝে না। জানিনা পুরাতন কাপড় শুধু আমাদের দেশেই বিক্রি হয় কেন? আমরা এতই গরীব! রোগাক্রান্ত মানুষের পড়নের কাপড় কিনে নাকের কাছে ধরি আর বলি,  বাঃ কি সুগন্ধি!

জানো ১৯৯৮ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ক্লিনটন হোয়াইট হাউজে মনিকা লিউনস্কি নামে ২২ বছর বয়য়ী এক তরুণী সহকারীকে বাথরুমে ধর্ষন করে। কথাটা গোপন রাখার জন্য তরুণীকে অনুরোধ করে এবং সে মেনে যায়। এভাবে দুই বছর কেটে যায়। একদিন লিউনস্কির ব্লু রঙের ফ্রকে দাগ লেগে যায়। ঘটনা চাপা থাকে নি। ক্লিনটন- নিউনস্কি যৌন সম্পর্কের খবর বিশ্বজুড়ে আলোচনার ঝড় তোলে। বার বার অস্বীকার করলেও বহুদিন পর লিউনস্কির কাপড়ে DNA, RNA পরীক্ষা করলে ধরা পড়ে।   সে সময় অভিসংশনের  হুমকিতে পড়ে অবশেষে প্রেসিডেন্ট ক্লিনটন স্বীকার করতে বাধ্য হয়।

তাহলে দেখ, পুরাতন কাপড়ে কি কি দাগ লেগে থাকে। আর যাবে ব্যাগ ভর্তি সেকেন্ড হ্যান্ড কাপড় কিনতে।

: তাই! ওরে বাপরে আর কিনবো না।

: মন দিয়ে শোন, ভালো ভাবে বাঁচতে গেলে আমাদের সচেতন হতেই হবে এতে কোন সন্দেহ নেই। দেখ কত মানুষ রোগাক্রান্ত, সবারই একটা না একটা অসুখ লেগেই আছে। পঁচা জিনিস খাবে আর পেটে গ্যাস।  ডাক্তারের পরামর্শ না নিয়েই দোকানে গিয়ে ব্যথার ঔষধ, গ্যাসের ঔষধ গিলতেছে। সাবধানে চলবো, সুস্থ থাকবো। যে কদিন বেঁচে থাকবো শান্তিতে থাকবো।

করোনা ভাইরাসের করালগ্রাস থেকে নিজেকে দেশকে তথা বিশ্বকে বাঁচাতে আমরা ঘর থেকে বের হবো না। সেদিন বের হবো যেদিন এ ভয়াবহ মহামারী দুর হবে।

.

.

.

.

কৃষ্ট মোহন সিংহ

লেখক: প্রভাষক, যুক্তিবিদ্যা, সরকারি শহীদ আকবর আলী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মহাবিদ্যালয়, বালিয়াডাঙ্গী, ঠাকুরগাঁও।

Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ডায়াবেটিস চিকিৎসায় বাজারে এসেছে সপ্তাহে একদিন ব্যবহারযোগ্য ওষুধ ‘ট্রুলিসিটি’

ঢাকা:: হেলথকেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড (এইচপিএল) এবং যুক্তরাষ্ট্রের ইলাই লিলি অ্যান্ড কোম্পানি দেশের ...