ডেস্ক রিপোর্ট :: দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২২ জন মারা গেছেন। এ নিয়ে সরকারি হিসাবে এখন পর্যন্ত মারা গেলেন আট হাজার তিন জন। শনিবার (২৩ জানুয়ারি) করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদফতর এ তথ্য জানায়।

গত বছরের ৮ মার্চ করোনায় আক্রান্ত তিন জন রোগী শনাক্ত হওয়ার কথা জানায় সরকার। এর ঠিক ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় প্রথম রোগীর মৃত্যু হয়।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৪৩৬ জন, এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন পাঁচ লাখ ৩১ হাজার ৩২৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩৩৮ জন, এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন চার লাখ ৭৫ হাজার ৮৯৯ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার তিন দশমিক ৯২ শতাংশ, এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৫ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৯ দশমিক ৫৭ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যু হার এক দশমিক ৫১ শতাংশ।

অধিদফতর জানায়, দেশে বর্তমানে ২০০টি পরীক্ষাগারে করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। এর মধ্যে আরটি-পিসিআর পরীক্ষাগার রয়েছে সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে ১১৬টি, জিএ-এক্সপার্ট মেশিনের মাধ্যমে পরীক্ষা করা হচ্ছে ২৮টি পরীক্ষাগারে এবং র‌্যাপিড অ্যান্টিজেনের মাধ্যমে পরীক্ষা করা হচ্ছে ৫৬টি পরীক্ষাগারে।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১১ হাজার সাতটি, আর পরীক্ষা করা হয়েছে ১১ হাজার ১১৫টি। এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৩৫ লাখ ৪১ হাজার ৩৮৯টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হয়েছে ২৭ লাখ ৭৬ হাজার ৪০১টি এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে সাত লাখ ৬৪ হাজার ৯৮৮টি।

মারা যাওয়া ২২ জনের মধ্যে পুরুষ ১৭ জন, আর নারী পাঁচ জন। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে পুরুষ মারা গেছেন ছয় হাজার ৬৪ জন, আর নারী মারা গেছেনে এক হাজার ৯৩৯ জন। শতকরা হিসাবে পুরুষ ৭৫ দশমিক ৭৭ শতাংশ এবং নারী ২৪ দশমিক ২৩ শতাংশ।

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ষাটোর্ধ্ব রয়েছেন ১৩ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে আছেন ছয় জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে একজন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন এবং ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে আছেন একজন। তারা সবাই হাসপাতালে মারা গেছেন।

বিভাগভিত্তিক পরিসংখ্যানে মারা যাওয়াদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের আছেন ১৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের তিন জন এবং বরিশাল বিভাগের আছেন একজন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হওয়া ৩৩৮ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের আছেন ২১২ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ৫৩ জন, রংপুর বিভাগের আট জন, খুলনা বিভাগের ১০ জন, বরিশাল বিভাগের ১১ জন, রাজশাহী বিভাগের ৩৫ জন এবং সিলেট বিভাগের নয় জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন ২১২ জন, ছাড়া পেয়েছেন ৪৪৪ জন। এখন পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন ছয় লাখ ১৫ হাজার ৩২৩ জন, ছাড়া পেয়েছেন পাঁচ লাখ ৭৯ হাজার ৪৭৭ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন ৩৫ হাজার ৮৪৬ জন।

২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ৯৭ জন, ছাড়া পেয়েছেন ১১৮ জন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ৯৮ হাজার ৫৯৮ জন, ছাড়া পেয়েছেন ৮৭ হাজার ৮৩৬ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১০ হাজার ৭৬২ জন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here