ডেস্ক রিপোর্ট:: কমনওয়েলথ গেমসে সোনা জয়, এশিয়ান গেমসে তো অবশ্যই। তিনটে অলিম্পিক গেমসে অংশও নিয়েছেন। মিলখা সিংকে গোটা ভারতে তো বটেই, বিশ্বজোড়া পরিচিতি এনে দিয়েছিল তার দৌড়। সেই দৌড়েই পেছনে ফেলেছিলেন তৎকালীন নামি দামি সব অ্যাথলেটকে। তাকেই কিনা হারতে হলো করোনাভাইরাসের কাছে! করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মিলখা সিং ৯১ বছর বয়সে চলে গেছেন না ফেরার দেশে।

খেলোয়াড়ি জীবনে তার কারিশমা এতটাই ছিল যে, তার ব্যাপারে বলা হতো তিনি দৌড়োতেন না, উড়তেন। তাইতো পাওয়া হয়ে গিয়েছিল ‘দ্য ফ্লাইং শিখ’ উপাধি।

১৯৫৮ কমনওয়েলথ গেমসে সোনা জয় করেছিলেন, হারিয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকান স্প্রিন্টার ম্যালকম স্পেনসকে। ৪০০ মিটার স্প্রিন্ট শেষ করেছিলেন মাত্র ৪৬.৬ সেকেন্ডে!

সেই মিলখা সেখানেই থামেননি, ১৯৫৮ এশিয়ান গেমসেও জিতেছিলেন দুটো সোনা। সেবার ২০০ আর ৪০০ দৌড়ে সোনা জেতা তিনি পরের এশিয়ান গেমসেও জিতেছিলেন দুটো সোনা।

৪০০ মিটার আর ৪ গুণন ৪০০ মিটার রিলেতে জেতেন সেরার খেতাব। তবে সেসব নয়, মিলখার ক্যারিয়ারের হাইলাইটস ছিল ১৯৬০ সালের অলিম্পিকে অল্পের জন্য ব্রোঞ্জ না জিততে পারার আক্ষেপ।

মিলখা গত ২০ মে সস্ত্রীক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। তারপরই স্ত্রী নির্মলা কর ও তাকে মোহালিতে একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত ৩০ মে সেখান থেকে ছাড়াও পান তিনি, কিন্তু তার স্ত্রী পাননি, গত সপ্তাহে তিনি পাড়ি জমান না ফেরার দেশে।

তবে হাসপাতাল ছেড়েও স্বস্তিতে ছিলেন না মিলখা। স্ত্রী তো বটেই, নিজের অবস্থাও যে খুব ভালো ছিল না! করোনায় নেগেটিভ হন, কিন্তু অক্সিজেন লেভেল বাড়ছিল না মোটেও। সেটাই পরে মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়ায়, জানান মিলখার ছেলে জিভ মিলখা সিং।

গতকাল শুক্রবার রাতে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। জিভ মিলখা ছাড়াও মৃত্যুকালে আরও তিন মেয়ে মোনা সিং, আলিজা গ্রোভার ও সোনিয়াকে রেখে গেছেন মিলখা সিং।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here