মো.সফিকুল আলম দোলন, জেলা প্রতিনিধি,পঞ্চগড় ::

পঞ্চগড়ে জেলার বিভিন্ন এলাকায় কনকনে শীত ও মাঘের হিমেল হাওয়াকে উপেক্ষা করে কৃষকরা বোরো চারা রোপণে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। বেশ কিছু দিন থেকে ঘনকুয়াশা সাথে কনকনে ঠান্ডা হিমেল হাওয়া প্রবাহিত হচ্ছে। তারপরও ইরি-বোরো চারা রোপণ শুরু করেছেন কৃষকরা।

জেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, কৃষক- কৃষাণীরা গরম কাপড় গায়ে দিয়ে ঠান্ডাকে উপেক্ষা করে কৃষিকাজে উঠে পড়ে লেগেছেন। এই অঞ্চলের বেশিরভাগ মানুষের জীবন-জীবিকা কৃষিনির্ভর। ধান, ভুট্টা, সরিষা, আলুসহ বিভিন্ন প্রকার শাক-সবজি চাষাবাদ করেন স্থানীয় কৃষকরা। তবে বেশিরভাগ কৃষক প্রধান ফসল হিসেবে আমন ও ইরি- বোরো মৌসুমে ধান চাষাবাদ করেন।

জেলা কৃষি বিভাগ থেকে জানা গেছে, এবছর জেলার ৪৩টি ইউনিয়নসহ পৌর এলাকায় ২৯ হাজার ৩০০ হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো ধান চাষবাদের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। বিগত বছরের তুলনায় এবছর কুয়াশা কিছুটা কম থাকায় বোরো চাষিরা চিন্তামুক্ত। তাই তারা এখন দলবেঁধে বোরো চারা রোপণে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন।

বোদা উপজেলার সদর ইউনিয়নের কৃষক মোজাহারুল জানান, এবার আমন মৌসুমে ধানের দাম ভালো পাওয়ায় ও আবহাওয়া ভালো থাকায় প্রায় সকল কৃষক বোরো আবাদে ঝুঁকে পড়েছে । এখন আবহাওয়া ভালো আমন মৌসুমের মতো বোরো আবাদের ভালো ফলন পাওয়া যাবে,ধানের দাম ভালো পেলে ছেলেমেয়েদের পড়াশুনার খরচ মিটিয়ে সংসারে সুখ স্বাচ্ছন্দে দিন কাটবে এই আশা রাখি ।

কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা জানান, বোরো মৌসুমে চাষাবাদের জন্য বীজতলায় বীজ বপন কাজ থেকে শুরু সুস্থ সবল চারা উৎপাদন ও চাষাবাদ করে কৃষকরা যাতে লাভবান হতে পারে সেজন্য কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে সবসময় মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছে। কৃষকরা যথা সময়ে চারা রোপণ শুরু করেছেন। জেলায় ডিজেল ও সারের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে, সংকটের কোন আশঙ্কা নেই।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here