ওয়াশিংটনে বঙ্গবন্ধু’র স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন

ওয়াশিংটনে বঙ্গবন্ধু’র স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিতবাংলা প্রেস, নিউ ইয়র্ক থেকে ::  স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন করেছেন মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামীলীগ। এ উপলক্ষ্যে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভার্জিনিয়ার স্প্রীংফিল্ডের আয়োজন করা হয়। মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও মহিলা আ.লীগের নেতা কর্মিরাও বঙ্গবন্ধু ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের এ অনুষ্ঠানে অংশ নেন।
মেট্রো ওয়াশিংটন আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাদেক মোহান্মদ খানের সভাপতিত্বে এবং সাধারন সম্পাদক এম নবী বাকী’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সাভার শুরুতেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পাঞ্জলি অর্পন করা হয়। এরপর সাম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র আ.লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানের মায়ের মৃত্যুতে বিশেষ মোনাজাত ও দোয়া করা হয়।
সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মেট্রো ওয়াশিংটন আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাদেক মোহান্মদ খান, সাধারন সম্পাদক এম নবী বাকী, সহ-সভাপতি শিব্বির আহমেদ, সহ-সভাপতি নুরুল আমিন নুরু, সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর হোসেন সোহেল, দফতর সম্পাদক নারায়ন দেবনাথ, শামীম হায়দার, মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী যুবলীগ সভাপতি রাবিউল ইসলাম রাজু, মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আবুল হোসেন শিকদার, সাধারন সম্পাদক খিজির আহমেদ টিটু ও সহ-সভাপতি এস এম হক প্রমুখ।
এছাড়াও সভায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংঠনের নেতাকর্মিদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক হারুন উর রশীদ, যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক রাহাত খান, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি উত্তম মন্ডল,যুগ্ম সা. সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহান্মদ মাহবুব আলম সোহেল, মহিলা আ. লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফারজানা নবী ও মোহান্মদ মেরাজ প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, মহান নেতা বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে স্বাধীনতা সংগ্রামের বিজয় পূর্ণতা পেয়েছিল। তাই বঙ্গবন্ধু স্বয়ং তাঁর এই স্বদেশ প্রত্যাবর্তনকে ‘অন্ধকার হতে আলোর পথে যাত্রা’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছিলেন।
বক্তারা বলেন, আসুন সকল প্রবাসীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশের উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা রক্ষা করি। একটি অসাম্প্রদায়িক, ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত ও সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ প্রতিষ্ঠায় সহায়তা করি।
উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালরাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী এ দেশের নিরস্ত্র মানুষের ওপর হামলে পড়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই বাঙালির অবিসংবাদী নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে তাঁর ধানমণ্ডির বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে পাকিস্তানে নিয়ে যায়। সেখানে তাঁকে এক নির্জন কারাপ্রকোষ্ঠে বন্দি করে রাখা হয়। বাঙালি যখন স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করছে, বঙ্গবন্ধু তখন পাকিস্তানের কারাগারে প্রহসনের বিচারে ফাঁসির আসামি হিসেবে মৃত্যুর প্রহর গুনছিলেন। দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করে। পরে আন্তর্জাতিক চাপে পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠী বঙ্গবন্ধুকে সসম্মানে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়।
মুক্তি পাওয়ার পর প্রথমে লন্ডন ও পরে ভারত হয়ে ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি দেশে ফেরেন বঙ্গবন্ধু। তাঁর দেশে ফেরার দিন রাজধানী ঢাকায় মানুষের ঢল নামে। তেজগাঁও বিমানবন্দরে অবতরণের পর সেখানে এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। বঙ্গবন্ধু স্বাধীন দেশের মাটিতে পা রেখে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। তিনি এবং তাঁকে স্বাগত জানাতে আসা আওয়ামী লীগের নেতারা কেউই অশ্রু সংবরণ করতে পারেননি। সেখান থেকে বঙ্গবন্ধু সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গিয়ে এক জনসভায় ভাষণ দেন।
Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

নৌকার বিরুদ্ধে কাজ করায় আওয়ামীলীগের ২৩ জন নেতা বহিস্কার

নৌকার বিরুদ্ধে কাজ করায় আওয়ামীলীগের ২৩ নেতা বহিস্কার

মোনাসিফ ফরাজী সজীব, মাদারীপুর প্রতিনিধি :: মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ...