‘এবি’ স্টাফ রিপোর্টার :: ‘সেই তুমি, কেন এতো অচেনা হলে’, ‘চলো বদলে যাই’, ‘আমি কষ্ট পেতে ভালোবাসি’,  এমন  অসংখ্য জনপ্রিয় গানের মাধ্যমে বাংলাদেশের সংগীতপ্রেমীদের হৃদয় জয় করেন আইয়ুব বাচ্চু।

এলআরবি ওয়েবসাইটের তথ্যমতে, ২৫ বছরের বেশি সময় ধরে বাংলাদেশের পপ সংগীত জগতে আইয়ুব বাচ্চুর রাজত্ব।

ব্যাপক জনপ্রিয় এলআরবি’র ব্যান্ডের কর্ণধার আইয়ুব বাচ্চু ‘এবি’ নামে পরিচিত ছিলেন।

১৯৭৮ সালে জন্মস্থান চট্টগ্রামে সংগীত জগতে ক্যারিয়ার শুরু করেন তিনি। ১৯৮০ সালে সে সময়ের জনপ্রিয় ‘সোলস’ ব্যান্ডে যোগদান করেন এবি।

১০ বছর ‘সোলস’ ব্যান্ডের সাথে থাকার পর ১৯৯১ সালে আত্মপ্রকাশ ঘটে আইয়ুবের নিজের ব্যান্ড ‘এলআরবি’র। সেখানে তিনি লিড গিটারিস্ট ও ভোকাল ছিলেন।

বাচ্চুর ব্যান্ড দেশে ও বিদেশে কয়েক হাজার লাইভ অনুষ্ঠানে পারফর্ম করে।

১৯৯৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম আন্তর্জাতিক সফরে সাতটি রাজ্যে বাংলা ভাষায় সংগীত পরিবেশন করে এলআরবি।

নিউইয়র্কের বিখ্যাত মেডিসিন স্কোয়ার গার্ডেনে গান গাওনা একমাত্র বাংলা রক ব্যান্ড এটি।

২০০২ সালে ইউরোপের অস্ট্রিয়ায় প্রথম সংগীত শো এর আয়োজন করে এলআরবি। এছাড়া লন্ডনের ওয়েম্বলে অ্যারেনা, অ্যালান গার্ডেন, ফ্র্যাঙ্কফুর্ট অব জার্মানি এবং সিঙ্গাপুরের ফোর্ট ক্যানন পার্ক স্টেজেও পারফর্ম করে আইয়ুবের ব্যান্ড।

এলআরবি ভারতের বিভিন্ন স্টেজ যেমন সল্ট লেক স্টেডিয়াম, সায়েন্স সিটি থিয়েটার, আলফা বাংলা, ইটিভি বাংলা, নজরুল মঞ্চ, রবীন্দ্র সরোবর, গুরু নায়ক ইউনিভার্সিটি, হলদিয়া উৎসব, দুর্গাপূর ইউনিভার্সিটিতে সরাসরি সংগীত পরিবেশন করে। এছাড়া কাতার, দুবাই, হংকং, সাইপ্রাস ও বিভিন্ন দেশে গৌরবের সাথে পারফর্ম করে এলআরবি।

ফ্রান্সের রিচার্ড অ্যাট লিগাং, ভারতের রেমো ফার্নান্দেজ নান্দন বুগচী ও বিকমার ঘোষ, বাংলাদেশের সংগীতশিল্পী আজম খান এবং মাইলস ও ব্ল্যাক ব্যান্ডের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল এবি’র।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here