এনজিও বিষয়ক ব্যুরো’র মহাপরিচালকের ইপসা কার্যক্রম পরিদর্শন

স্টাফ রিপোর্টার :: মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) বিকেলে এনজিও বিষয়ক ব্যুরো’র মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) কে, এম, আব্দুস সালাম ইপসা কক্সবাজার অফিস ও কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন।

মহাপরিচালক পরিদর্শন উপলক্ষে ইপসা কক্সবাজার অফিসের কনফারেন্স রুমে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সভার শুরুতে ইপসা’র প্রধান নির্বাহী মোঃ আরিফুর রহমান মহাপরিচালকে ইপসা কক্সবাজার অফিসে স্বাগত জানিয়ে কক্সবাজারে বাস্তবায়নাধীন ইপসা’র বিভিন্ন সমাজ উন্নয়ন কার্যক্রমের বিষয়ে আলোচনা করেন।

ইপসা’র সহকারি পরিচালক ও হেড অব রোহিঙ্গা রেসপন্স প্রোগ্রাম মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম ইপসা রোহিঙ্গা রেসপন্স প্রোগ্রামের উপর মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন।

এনজিও বিষয়ক ব্যুরো’র মহাপরিচালক কে, এম, আব্দুস সালাম ইপসা’র রোহিঙ্গা রেসপন্স কার্যক্রম বিষয়ক উপস্থাপনা আগ্রহ ভরে শুনেন। তিনি মানব পাচার প্রতিরোধ, লাভলিহুড বা জীবিকায়ন বিষয়ক প্রকল্প, উগ্রবাদ ও সহিংসতা প্রতিরোধ কার্যক্রম, যুব সম্পৃক্তকরণ ও যুবদের ক্ষমতায়ন এবং যুব দক্ষতা বৃদ্ধিমূলক প্রকল্প সর্বোপরি স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে আরও বেশী কার্যক্রম গ্রহনের উপর গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি আজকে ইপসা’র উদ্যোগে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার কার্যালয়ের সহযোগিতায় মানব পাচারের শিকার একজন ভিকটিমকে তাঁর পরিবারের কাছে হস্তান্তর বিষয়টি অগ্রহ ভরে শুনেন এবং এ কার্যক্রমের জন্য ইপসা’র ভূয়শী প্রশংসা করেন।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজার (ইন্টারন্যাল অডিট) মিজানুর রহমান, প্রোগ্রাম কোঅর্ডিনেটর (প্রশিক্ষণ) এবং শিশু সুরক্ষা রেসপন্স প্রোগ্রাম ও এডুকেশন ইন ইমারজেন্সী প্রোগ্রামসমূহের ফোকাল পার্সন রজত বড়ুয়া, মানব পাচার প্রতিরোধ কার্যক্রমের ফোকাল পার্সন ও রোহিঙ্গা রেসপন্স প্রোগ্রাম কোঅর্ডিনেটর যীশু বড়ুয়া, ইপসা কক্সবাজারের ফোকাল পার্সন মোহাম্মদ হারুন, ইপসা কক্সবাজারের ফিন্যান্স ম্যানেজার এনায়েত মওলা, ইপসা শেল্টার প্রজেক্টের প্রকল্প সমন্বয়কারি শমসের উদ্দিন মোস্তফা প্রমূখ।

উল্লেখ্য,  স্থায়ীত্বশীল উন্নয়নের জন্য সংগঠন ইপসা ১৯৮৫ সাল থেকে বৃহত্তর চট্টগ্রামে বিভিন্ন সমাজ উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে আসছে। ইপসা ২০০১ সাল থেকে কক্সবাজার জেলায় বিভিন্ন সামাজিক ও মানবিক উন্নয়ন কার্ক্রম বাস্তবায়ন করছে। ২০১৭ সালের ২৫ আগষ্ট’র পর কক্সবাজার জেলার উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলার বিভিন্ন ক্যাম্পে অস্থায়ীভাবে আশ্রয় নেওয়া জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিকদের জন্য বিভিন্ন মানবিক সহায়তা কার্যক্রম বাস্তবায়ন করার পাশাপাশি স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে আসছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

‘স্বপ্ন মা সেরা দশ’ প্রতিযোগিতায় মুকুট পেলেন সংগ্রামী ইতি আক্তার

স্টাফ রিপোর্টার :: ‘স্বপ্ন মা সেরা দশ’ প্রতিযোগিতার সেরা মা নির্বাচিত হয়েছেন ...