ব্রেকিং নিউজ

উনিশ বছরেই সফল ডিজিটাল মার্কেটার তুহিন

মাইনুল ইসলাম তুহিন

মামুন সোহাগ :: প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের ফলে দেশে একটি কঠিন সময় চলছে। এই মুহূর্তে তথ্য-প্রযুক্তির ব্যবহার খুবই জরুরি। সুষ্ঠু ব্যবহার জানলে আর সেটার বাস্তবায়ন করতে পারলে এক্ষেত্রেও অভূতপূর্ব সাফল্যলাভ সম্ভব।
১৯ বছর বয়সী মাইনুল ইসলাম তুহিন পড়ছেন রাজধানীর তিতুমীর কলেজে। এর মধ্যেই ডিজিটাল মার্কেটিং দুনিয়ায় রেখেছেন সাফল্যের পদধূলি। অল্প বয়সেই শুরু করে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ। এখন তিনি বাংলাদেশের ডিজিটাল মার্কেটার হিসেবে সফল একজন উদ্যোক্তা।
তুহিন একাধারে ইনফ্লুয়েন্সার, উদ্যোক্তা এবং ব্লগার। ‘TuhinTube’ নামে নিজের একটি প্রতিষ্ঠান দিয়ে কাজ শুরু করেছিলেন তিনি। মূলত ফেসবুকের জন্য কন্টেন্ট তৈরির কাজ করছে তার এই প্রতিষ্ঠানটি। বিভিন্ন ধরনের এজেন্সির হয়ে কনটেন্ট প্রজেকশন এবং ডিস্ট্রিবিউশনের মাধ্যমে ডিজিটাল মার্কেটিং করেন। ডিজিটাল চ্যানেল ব্যবহার করে পণ্যের প্রমোশন করাই হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং। সোশ্যাল মিডিয়া, সার্চ ইঞ্জিন, ইনফ্লুয়েন্সার্ মার্কেটিং-এসবই ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্তর্ভুক্ত। তরুণ এই উদ্যোক্তা মনে করেন, ‘বর্তমান যুগে ডিজিটাল মার্কেটিং বিশাল একটি সম্ভাবনার ক্ষেত্র।’
মাইনুল ইসলাম তুহিন বলেন, ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে কাজ শুরু করতে চাইলে প্রথমে তার দক্ষতা বাড়াতে হবে। কারণ সঠিক জ্ঞান নিয়ে এই সফলতার দিকে এগিয়ে যাওয়া যায়। কিন্তু অজ্ঞতা নিয়ে বারবার শুধু অসফলতার দিকেই আসতে হয়। এর জন্য সবার প্রথমে দক্ষতা বাড়াতে হবে। এরপর অনুসন্ধান করতে হবে প্রতিনিয়ত চোখ-কান খোলা রেখে। পাশাপাশি জানতে হবে বিভিন্ন টুলস এর ব্যবহার। কি ধরনের কনটেন্ট পছন্দ করছে লাখো মানুষ সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে কনটেন্ট তৈরি ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ।
ক্যারিয়ার ভাবনি নিয়ে তিনি বলেন, অনেকেই ভাল কনটেন্ট তৈরি করেও ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে না। তাদের জন্য সবসময় কিছু একটা করার স্বপ্ন দেখেন। তিনি নিজের ক্যারিয়ার শুরুতে পার করেছেন অনেক ধরনের বাধা বিপত্তি। তাই ডিজিটাল দুনিয়ার কাজ করতে আসা তরুণরা যেন বাধার সম্মুখীন না হয়, সেজন্য মাইনুল ইসলাম তুহিন চেষ্টা করে যাচ্ছেন নিজ জায়গা থেকে। এটি বর্তমান তরুণদের জন্য অনেক বড় একটা সমর্থন পাওয়া যাবে অনেকেই আশা করেন। এছাড়াও সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে তিনি সামাজিক নানা কর্মকাণ্ডে যুক্ত রয়েছেন। তিনি বিশ্বাস করেন যে পজিটিভিটি ছড়িয়ে দেয়ার মাধ্যমে সমাজকে পরিবর্তন করা সম্ভব।
একজন ডিজিটাল মার্কেটার হিসেবে তিনি বিশ্বাস করেন সফলতার কোন শর্টকাট পথ নেই। মানুষ নিজের সততা, একাগ্রতা, কাজ এবং পরিশ্রম দিয়ে সফল হয়ে উঠে। যেখানে মানুষের কাজের কোনো সত্যতা নেই সেখানে কাজের প্রকৃত সম্মান পাওয়া যায় না। প্রকৃত সফলতা পাওয়া যায় না। তাই প্রতিটি মানুষের সততা ঠিক রেখে কাজ করা উচিত।
মাইনুল ইসলাম তুহিন এর কাছে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা জানতে চাইলে তিনি জানান, এগিয়ে যেতে হবে বহুদূর। আমরা যে অবস্থায় থাকি না কেন সকলেরই একটি ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা রয়েছে।
Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

শৈলকুপায় তদন্তে দুদকের ৩ সদস্যের দল

ডেস্ক রিপোর্ট ::ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ‘জমি আছে ঘর নাই’ আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পে ঘর নির্মাণে ...