স্টাফ রিপোর্টার:: রাজধানীতে উদ্যোক্তা পণ্য প্রদর্শনী, পাপেট শো ও শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা নিয়ে শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়েছে দিনব্যাপী “উদ্যোক্তা হাট” মেলা। নারী উদ্যোক্তাদের ব্যবসার প্রসার ঘটানো এবং কাজের স্বীকৃতি দিতে এই মেলার আয়োজন।

 

শুক্রবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডি ২৭ শের “উইমেনস ভলানট্যারি এসোসিয়েশন প্রাঙ্গণ”- এ “বেঙ্গল সিস্টারহুড কনসরটিউম” কর্তৃক “উদ্যোক্তা হাট” নামক মেলার উদ্বোধনী কার্যক্রম শুরু হয়।

 

“বেঙ্গল সিস্টারহুড কনসরটিউম”এর আয়োজিত এই মেলায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের প্রায় ২৫ জন উদ্যোক্তা অংশ নিচ্ছেন বলে তথ্যসূত্র অনুযায়ী এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। বিশেষ দিন উপলক্ষে নারীরা যেন তাদের সক্ষমতা প্রকাশ করতে পারে সেজন্য আজ সকাল ৯টা হতে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলায় দর্শক ও ক্রেতারা বিনামূল্যে প্রবেশ করার সুযোগ পেয়েছেন। ভিন্ন ভিন্ন পসরা সাজিয়ে বসা এই স্টলগুলো ঘুরে এবং নারী উদ্যোক্তাদের সাথে কথা বলে তাদের পণ্য সম্পর্কে জানা যায়।

 

মেলা পরিদর্শন কালে চন্দ্রামৌলি নামক স্টলের নারী উদ্যোক্তা স্বর্ণা জানান, “আমার স্টলের পণ্য হচ্ছে হাতের তৈরি কাপড়ের জুয়েলারি। এখানের সকল পণ্য আমরা হাতে তৈরি করে থাকি। যারা ভারী জুয়েলারি পড়তে পারেন না তারা আমাদের কাপড়ের হাতে তৈরি জুয়েলারি সহজেই পড়তে পারবেন। এটি দেখতে ভারী মনে হলেও তা মোটেও ভারী নয়। আর দাম সব হাতের নাগালে। ৮০০ এর ভেতর সকল ধরনের পণ্য পেয়ে যাবেন।”

অন্যদিকে আরেক নারী উদ্যোক্তা মোবার্শিয়া রহমান জানান, ” মূলত আমাদের স্টলের প্রধান আমার মা। ওনার নাম হেলেন রহমান। আমদের স্টলের সব পণ্যই হাতে তৈরি। যদি একটি পুথির কাজও থাকে সেটিও আমাদের হাতেই বসানো হয়েছে। মূলত হাতে তৈরি গহনা নিয়েই আমাদের উদ্যোগ। তাছাড়া দেশি পণ্য যেমন- গামছা, জুট এগুলো নিয়েও আমরা কাজ করি। দেশীয় ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্যই আমরা আমাদের পণ্যগুলো নিয়ে কাজ করে থাকি।

নারী উদ্যোক্তা রোজিনা হোসাইন ডিজাইনার কালেকশন স্টলের পণ্য নিয়ে বলেন, এখানে রয়েছে হ্যান্ড ব্লক প্রিন্টের সব ধরণের প্রোডাক্ট, কাঁপল ড্রেস, বেড শিট, পর্দা, শাড়ী, বাচ্চাদের পোশাক, বিভিন্ন ধরণের পণ্য।  আমি চেষ্টা করছি মানুষের বাজেটের মধ্যে সম্পৃক্ত প্রোডাক্ট দেওয়ার জন্য।

তাছাড়া মেলার অন্যান্য পণ্য যেমন – শতরঞ্জি ,পাঞ্জাবী, সালোয়ার-কামিজ, ড্রেস, বাচ্চাদের পোশাক, পুতুল, বাহারি নকশার পোশাক পাওয়া যাচ্ছে।

 

এছাড়া পাটজাত দ্রব্য, গায়ে জড়ানো শাল, কসমেটিক্স, হাতে ভাজা মুরি, আচার, ঘানি ভাঙ্গা সরিষার তেল , মাটির তৈরি পণ্য , বাহারি স্বাদের পিঠা,দেশীয় ঐতিহ্যবাহী হাইজেনিক শুটকি ছাড়াও হাতের তৈরি দেশীয় গহনা সামগ্রী ছাড়াও ঘরে বানানো হরেক রকমের পিঠা ও মুখরোচক খাবার রয়েছে উক্ত মেলায়।

মেলার পরিবেশ,আয়োজন ও পণ্য সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে গৌড় হরি সাহা নামক এক ক্রেতা বলেন , ” মেলার অধিকাংশ পণ্যই আমার পছন্দ হয়েছে।আর পণ্যের দাম-ও হাতের নাগালে। আমি মাটির তৈরি কিছু প্রদীপ নিয়েছি। আরো ঘুরে ঘুরে দেখছি। যদি আরো কিছু প্রয়োজনবোধ হয় তাহলে নিয়ে যাবো। আর মেলার পরিবেশ খুবই সুন্দর। পর্যাপ্ত সামাজিক দূরত্ব ও মাস্ক পরিধান করেই বেচা-কেনা হচ্ছে দেখলাম।”

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজক শারমীন জাহান  বলেন , করোনাকালে আমাদের “বেঙ্গল সিস্টারহুড কনসরটিউম” থেকে আমরা এই মেলার উদ্যোগ নিয়েছি” । তিনি আরো বলেন, ” নারী উদ্যোক্তা যারা ঘরে বসে আছেন অথচ কিছু করতে পারছেন না তাদের জন্য আমাদের এই প্লাটফর্ম। আমরা সকলে সম্পূর্ণরূপে স্বাস্থ্য বিধি মেনে মাস্ক পরিধান করে আমরা মেলাটির আয়োজন করেছি। আমাদের মূলত উদ্দেশ্য আর্থিক এবং মানসিক দৃঢ়তাই হচ্ছে নারীর মুক্তি। নারীরা আসলে কিভাবে উন্নয়নে অংশ নিবে বা উন্নয়নে যাবে তাই আমরা চাচ্ছি নারীরা আরো এগিয়ে যাক।নারীরা যেন এই করোনায়  বসে না থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই যেন এগিয়ে যায় এটিই “বেঙ্গল সিস্টারহুড কনসরটিউম ” থেকে আমার প্রত্যাশা।

 

অন্যদিকে ,উইমেনস  ভলানট্যারি এসোসিয়েশন” এর ভাইস প্রেসিডেন্ট রাজিয়া সুলতানা বলেন, “আমাদের এই অর্গানাইজেশনটির বয়স ৬৬ বছর। আমারা এখানে মহিলা ছোট ছোট উদ্যোক্তাদের নিয়ে মাঝে মাঝে মেলার আয়োজন করে থাকি। এই করোনাকালে কিছু বাঁধা-প্রতিবন্ধকতা ছিলও তবুও আমরা চেষ্টা করেছি যদি উদ্যোক্তাদের কিছু সহযোগিতা করা যায় ।যার জন্য আজকের এই আয়োজন।”

 

এদিকে মেলায় ঘুরতে আসা পারভেজ বলেন, “এ ধরনের মেলার মাধ্যমে দেশের নারী উদ্যোক্তারা উৎসাহী ও অনুপ্রাণিত হবে এবং তারা এগিয়ে যাবে।

ভবিষ্যতেও এমন মেলার আয়োজন অব্যাহত রাখতে আয়োজক কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।”

 

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here