মামুন সোহাগ:: জমকালো আয়োজনের মধ্যে দিয়ে আজ (২৩ ফেব্রুয়ারি) উন্মোচিত হলো আলোচিত চলচ্চিত্র ‌‘অপারেশন সুন্দরবন’ -এর ওয়েবসাইট ও টিজার। তারকাদের ঝলমলে উপস্থিতির পাশাপাশি অনুষ্ঠানে সরাসরি পরিবেশন করা হয় সিনেমার দুটি গান। এতে অংশ নেন চিত্রনায়ক জিয়াউল রোশান।

‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর পর দীপংকর দীপনের দ্বিতীয় সিনেমা ‘অপারেশন সুন্দরবন’। র‌্যাবের ওয়েলফেয়ার কো-অপারেটিভ সোসাইটির প্রযোজনা করেছে এটি। পুলিশের পর এবার র‌্যাবের দুঃসাহসিক ঘটনা উঠে আসবে বড় পর্দায়।

টিজার প্রকাশের পাশাপাশি সিনেমার মুক্তির দিনও ঘোষণা করা হয়। ঈদ উপলক্ষে ১৯ জুলাই মুক্তি পাবে বহুল প্রতিক্ষিত ‘অপারেশন সুন্দরবন’। চলচ্চিত্রে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন রিয়াজ আহমেদ, সিয়াম আহমেদ, রোশান, নুসরাত ফারিয়া, শতাব্দী ওয়াদুদ, তাসকিন রহমান, মনোজ প্রামানিকসহ আরও অনেকে।

এর আগে ছবিটির অফিশিয়াল ওয়েবসাইটের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ। আর্মি গলফ ক্লাবে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবেও বক্তব্য দেন তিনি।

সেখানে বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘এখন যেমন পৃথিবীর বৃহৎ ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবনকে শান্ত ও নিবিড়ভাবে পাওয়া যায়, সেটা তেমন ছিল না। এখনকার প্রজন্ম বা কয়েক দশক পরের প্রজন্ম হয়তো ভাবতে পারেন, সুন্দরবন এমনই। আমাদের দেশের মানুষ বিস্মৃতিপ্রবণ। আমাদের ফোর্স ও অফিসাররা যে দুর্বিষহ কষ্টে জলদস্যু মুক্ত ও নিরাপদ করেছে, একসময় মানুষ হয়তো ভুলে যাবে। সেই ভাবনা থেকেই ছবিটি তৈরি।’

নির্মাণ প্রসঙ্গে তিনি আরও যোগ করে বলেন, ‘চলচ্চিত্রটির দৃশ্যধারণে বেশি বাজেট লাগেনি। তবে এতে যে লজিস্টিক সাপোর্ট, উপকরণ, অস্ত্র, সুবিধা ব্যবহৃত হয়েছে এগুলো যদি টাকায় ভাড়া করতে হতো তাহলে এটা করতে ৩০-৪০ কোটি লাগত। সেটা লাগেনি। আমরা খুব অল্প বাজেটে কাজ শেষ করেছি।’

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট সুন্দরবনে একসময় জলদস্যুদের অবাধ বিচরণ ছিল। ফলে সুন্দরবন ছিল সাধারণ মানুষের জন্য ভয়ের এক জায়গা। এমনকি সুন্দরবনের জেলে, মৌয়ালও জীবিকা নির্বাহের জন্য মাছ ধরতে ও মধু সংগ্রহ করতে পারত না। এখন সুন্দরবন দস্যুশূন্য। র‌্যাবের চৌকষ বাহিনীর একের পর এক অভিযানে সুন্দরবন হয়েছে দস্যুহীন।

র‌্যাবের এই দুঃসাহসিক অভিযানকে উপজীব্য করেই নির্মিত হয়েছে ‘অপারেশন সুন্দরবন’। র‌্যাবের সাবেক মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদের অনুপ্রেরণায় লিগ্যাল মিডিয়ার তত্বাবধানে চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়েছে। র‍্যাবের বিভিন্ন ব্যাটালিয়ন চলচ্চিত্রটি নির্মাণে সহায়তা প্রদান করেছেন।

 

 

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here