ঈদের জামাতকে কেন্দ্র করে নাশকতার তথ্য নেই, তবুও সতর্ক র‍্যাব

ডেস্ক রিপোর্টঃঃ  ঈদুল আজহার জামাত ও উদযাপনকে কেন্দ্র করে কোনো ধরনের নাশকতা বা অপ্রীতিকর ঘটনার তথ্য নেই। তারপরেও প্রস্তুতি হিসেবে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে বলে জানিয়েছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

শনিবার (৯ জুলাই) সকালে রাজধানীর জাতীয় ঈদগাহের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানান র‍্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) কর্নেল মো. কামরুল হাসান।

মো. কামরুল হাসান বলেন, পবিত্র ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রত্যেক বছরের মতো এবারও র‍্যাব বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। সব ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশজুড়ে পর্যাপ্ত সংখ্যক র‍্যাব সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

ঈদে সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দেশব্যাপী গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ঈদগাহসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে র‍্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াড দিয়ে সুইপিং করা হবে। এছাড়া থাকবে র‍্যাবের স্ট্রাইকিং রিজার্ভ ফোর্স, ফুট ও মোবাইল পেট্রল, ভেহিক্যাল স্ক্যানার, অবজারভেশন পোস্ট, চেক পোস্ট এবং সিসিটিভি মনিটরিং।

dhakapost

তিনি বলেন, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ঈদগাহে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হবে। গুরুত্বপূর্ণ ঈদগাহে নিরাপত্তা সুইপিং করা হবে। পর্যাপ্ত ইউনিফর্ম ও সাদা পোশাকে টহল থাকবে। পাশাপাশি র‍্যাবের স্পেশাল ফোর্স মোতায়েন করা হবে।

যেকোন উদ্ভুত পরিস্থিতির জন্য সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রয়েছে র‍্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট। যেকোন নাশকতা বা হামলা মোকাবিলায় র‍্যাবের স্পেশাল ফোর্সের কমান্ডো টিম ও এয়ার উইংয়ের হেলিকপ্টার সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

ঢাকা ছাড়াও সব মেট্রোপলিটন শহর, জেলা শহর ও উপজেলা পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ ঈদগাহ রাস্তায় চেকপোস্ট স্থাপন করা হবে। গুরুত্বপূর্ণ জেলা শহরে যেকোন পরিস্থিতি মোকাবিলায় সার্বক্ষণিক প্রয়োজনীয় সংখ্যক ফোর্স রিজার্ভ থাকবে।

গোয়েন্দা তথ্য, সাইবার মনিটরিংসহ অন্যান্য তথ্য বিশ্লেষণ করে এখন পর্যন্ত নাশকতা বা অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটনার তথ্য নেই জানিয়ে র‍্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, তবুও আমরা আত্মতুষ্টিতে ভুগছি না। প্রস্তুতি হিসেবে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা হাতে নেওয়া হয়েছে। যেকোন উদ্ভুত পরিস্থিতি প্রতিহত করতে পর্যাপ্ত সংখ্যক টহল সদস্য মোতায়েন ও সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হবে।

গোয়েন্দা নজরদারি ও সাইবার জগতে মনিটরিং বৃদ্ধির মাধ্যমে জঙ্গিদের যেকোন ধরনের নাশকতার পরিকল্পনা নস্যাৎ করে দিতে প্রস্তুত রয়েছে র‍্যাব। ভার্চুয়াল জগতে যেকোন ধরনের গুজব ছড়ানো প্রতিরোধেও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে র‌্যাব সাইবার মনিটরিং টিম সার্বক্ষণিক নজরদারি অব্যাহত রাখছে।

dhakapost

আগের বছরগুলোর মতো এ বছরও অত্যন্ত উৎসাহ উদ্দীপনার সঙ্গে দেশব্যাপী ঈদের আনন্দ উদযাপিত হওয়ার আশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, সবার প্রচেষ্টায়, সব বাহিনীর সমন্বয়ের মাধ্যমে ঈদকে উৎসবমুখরভাবে পালন করতে র‍্যাব দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।

ঈদগাহে আসা সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা হাতে একটু সময় নিয়ে এলে সুবিধা হয়। এখানে অনেক মানুষ আসবে, ফলে নিরাপত্তা তল্লাশির জন্য লম্বা লাইনের সৃষ্টি হয়। আপনারা সময় নিয়ে এলে সঠিকভাবে ঈদগাহে প্রবেশ ও বের হতে সহায়তা করতে পারব।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা তথ্য অনুযায়ী ব্যবস্থা নেই। পাশাপাশি সব সংস্থা একসঙ্গে কাজ করে তথ্য একে অপরের সঙ্গে শেয়ার করি। এবারও গুরুত্বপূর্ণ জামাতে আলাদা নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে, আমরা গুরুত্ব দিয়ে বড় জামাতে কাজ করব। পরিপূর্ণ সন্তুষ্টি অর্জন করলে নিরাপত্তার জন্য খারাপ, তাই আমরা সবসময় সতর্ক অবস্থায় রয়েছি।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here