ফরহাদ খাদেম, ইবি সংবাদদাতা ::
‘ডেঙ্গু সম্পর্কে জানবো, নিরাপদ থাকবো’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে রোটার‌্যাক্ট ক্লাব অব ইসলামিক ইউনিভার্সিটির উদ্যোগে স্কুল শিক্ষার্থীদের মাঝে ডেঙ্গু সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোটার‌্যাক্ট আন্তর্জাতিক জেলা ৩২৮১ এর চলমান ডেঙ্গু প্রতিরোধমূলক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে সোমবার (২৮ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টায় ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী এলাকা ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার বসন্তপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এ কার্যক্রম পরিচালনা করে সংগঠনটি।
ক্লাবের সভাপতি মুনজুরুল ইসলাম নাহিদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক দিদারুল ইসলাম রাসেলের সঞ্চালনায় ক্যাম্পেইনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমান খান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুল গফুর ও সহকারী শিক্ষক নাজমুল ফিরোজ সাগর। ক্যাম্পেইনে প্রধাস আলোচক হিসেবে আলোচনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. আশরাফুজ্জামান।
এসময় বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কামরুন্নাহার, দেলারা বিনতে আহমেদ, জুথিকা রানী সরকার, আমিরুল ইসলাম, ফজলুল হক, ইবি রোটার‌্যাক্ট ক্লাবের সার্জেন্ট অ্যাট আর্মস মোস্তাফিজুর রহমান, সার্জেন্ট অ্যাট আর্মস  আসহিফুর রহমান, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক জনি সরকার রিয়াজ, সদস্য তকি ওয়াসিফ, নুর আলম, জুয়েল রানা ও খাদেমুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। ক্যাম্পেইনে বিদ্যালয়টির ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির পাঁচ শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী অংশ নেন। ক্যাম্পেইন শেষে শিক্ষার্থীদের মাঝে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হয়।
প্রধান আলোচকের বক্তব্যে ডা. আশরাফুজ্জামান ডেঙ্গুসহ মশাবাহিত রোগের পরিচয়, আক্রান্ত হওয়ার কারণ, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হলে ও ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন, ডেঙ্গু থেকে বাঁচতে আমাদেরকে সচেতন হতে হবে। মশা যেসব জায়গায় জন্ম নেয় সেগুলোকে ধ্বংস করতে হবে। দিনে বা রাতে ঘুমানোর সময় অবশ্যই মশারী ব্যবহার করতে হবে। এছাড়া ডেঙ্গু প্রতিরোধে আমাদের শরীর ও আশপাশ যেন পরিচ্ছন্ন থাকে সেদিকে গুরুত্ব দিতে হবে ও স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে। তিনি কেউ জ¦রে আক্রান্ত হলে তাকে দ্রুত পরীক্ষা করানোর এবং ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হলে বেশী বেশী খাবার স্যালাইন ও ডিম খাওয়ার পরামর্শ দেন।
বসন্তপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমান খান বলেন, রোটার‌্যাক্ট ক্লাবের এই সচেতনতামূলক কার্যক্রম খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও সময়পোযোগী। ক্যাম্পেইনের জন্য আমাদের প্রতিষ্ঠানকে বেছে নেওয়ায় তাদেরকে স্কুলের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানাই। এই কার্যক্রমের মাধ্যমে আমাদের শিক্ষার্থীরা খুবই উপকৃত হয়েছে। সেইসঙ্গে আমরাও অনেক সমৃদ্ধ হয়েছি। পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের কাছে নিয়মিত আমরা এসব বার্তা তুলে ধরবো। শিক্ষার্থীদের কল্যাণমূলক যে কোন কার্যক্রমে স্কুলের পক্ষ থেকে আমাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা থাকবে।
রোটার‌্যাক্ট ক্লাব অব ইসলামিক ইউনিভার্সিটির সভাপতি মুনজুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, সারাদেশে ডেঙ্গুর প্রকোপকে মাথায় রেখে দেশব্যাপী রোটার‌্যাক্ট ক্লাব সচেতনতামূলক বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। এর অংশ হিসেবেই আমাদের এই ক্যাম্পেইন। আমাদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষ আন্তরিকভাবে সহযোগিতা করেছেন। আমাদের বিশ্বাস শিক্ষার্থী বন্ধুরাও এতে উপকৃত হয়েছেন। সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে আমাদের সদস্যরা স্বেচ্ছাসেবামূলক এসব কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। আমরা সমাজের সবাইকে যার যার অবস্থান থেকে নিজে সচেতন হয়ে অন্যকেও সচেতন হওয়ার পাশাপাশি অন্যকেও সচেতন করার আহ্বান জানাচ্ছি।
উল্লেখ্য, রোটার‌্যাক্ট ক্লাব একটি আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবামূলক সংগঠন। নেতৃত্ব তৈরী, ক্যারিয়ার উন্নয়ন, রক্তদান ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোসহ বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কার্যক্রম চালিয়ে আসছে সংগঠনটি। ডেঙ্গু প্রতিরোধে এর আগে গত ৬ আগস্ট ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ডায়না চত্বরে ক্যাম্পেইনের আয়োজন করে সংগঠনটি।
Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here