ফরহাদ খাদেম, ইবি সংবাদদাতা ::
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) আরবী ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক ড. নেছার উদ্দিন আহমদের স্মরণে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১০ টায় অনুষদ ভবনের ৪২৭ নম্বর কক্ষে এর আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবী ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ। 
অনুষ্ঠানে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. আব্দুল মোত্তালিবের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভুঁইয়া, কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এমতাজ হোসেন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন ও আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রামের ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসউদ আহমদ।
এছাড়াও ধর্মতত্ত্ব অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আ ব ম ছিদ্দিকুর রহমান আশ্রাফী, দা’ওয়াহ অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ অলী উল্লাহ, ইসলামের ইতিহাস ও সংকৃতি বিভাগের অধ্যাপক ড. রুহুল কে এম সালেহ ও দা’ওয়াহ অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সোলায়মান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।
এসময় বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ, অধ্যাপক ড. আবদুস সালাম, অধ্যাপক ড. আবু সাঈদ মোহাম্মদ আলী, অধ্যাপক ড. ওবায়দুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. এ কে এম মফিজুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. এ কে এম শামছুল হক ছিদ্দিকী, অধ্যাপক ড. নূর মোহাম্মদ, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সাইফুল গণি নোমান ও অধ্যাপক ড. কাউসার মোহাম্মদ বাকী বিল্লাহসহ অন্যন্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে বিভাগের অধ্যাপক ড. কামরুল হাসান ও অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলামের যৌথ সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন ছাত্র উপদেষ্টা কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. তোজাম্মেল হোসেন।
শোকসভায় অতিথি ও বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অধ্যাপক ড. নেছার উদ্দিন আহমদের স্মরণে স্মৃতিচারণমূলক ও আবেগঘন বক্তব্য দেন। এবং মরহুমের আত্নার মাগফেরাত কামনা করেন।
এসময় বক্তারা বলেন, অধ্যাপক ড. নেছার উদ্দিন আহমদ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে অগ্র সৈনিক ছিলেন। এই ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় তারই আন্দোলনের ফসল। তিন সব সময় জামায়াতের সাথে নামায আদায় করতেন। তিনি অফিসে সব সময় নিয়মিত আসতেন। একজন আদর্শ শিক্ষক হিসেবে সততা, নিষ্ঠা ও ন্যায়পরায়ণায় সকল গুণে গুণান্বিত ছিলেন তিনি। এছাড়াও তার একটি অন্যতম গুণ ছিল খুব সহজেই মানুষকে আপন করে নেওয়া।
উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, একজন মানুষের রেখে যাওয়া কৃতিত্বের জন্য মৃত্যুর পরে তাকে অন্যরা স্মরণ করে। অধ্যাপক নেছার উদ্দিন আহমদ ছিলেন একজন গুণান্বিত মানুষ। তার পরিবার, সহকর্মী ও ছাত্রছাত্রীরা সাক্ষ্য দেয় যে তিনি ভালো মানুষ ছিলেন। যখন সবাই মহান বিচারকের কাছে এই স্বাক্ষ্য দেয়, তাহলে আমি বিশ্বাস করি মহান আল্লাহ তাকে বেহেশত নসিব করবেন। তিনি একজন শুধু শিক্ষকই নন বরং একজন ভালো যোগাযোগকারীও বটে। যিনি প্রজন্ম থেকে প্রজন্মের মাঝে জ্ঞান, মুল্যবোধ ও সংস্কৃতি বিতরণ করে গেছেন।
অনুষ্ঠানে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আবদুল মালেক।
প্রসঙ্গত, অধ্যাপক ড. নেছার উদ্দিন আহমদ গত রোববার (১৯ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৯ টায় বার্ধক্যজনিত কারনে ঢাকা উত্তরায় নিজ বাস ভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। পরদিন সোমবার (২০ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮ টায় ঢাকা উত্তরায় তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে বাদ যোহর তার গ্রামের বাড়ি লক্ষীপুর সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জে দ্বিতীয় জানাযা শেষে তাকে চির সমাহিত করা হয়।
তিনি ১৯৯১ সালের ৪ ডিসেম্বর বিভাগে প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে তিনি ১৯৯৪ সালে সহকারী অধ্যাপক, ২০০২ সালে সহযোগী অধ্যাপক ও ২০০৫ সালে অধ্যাপক পদে উন্নিত হন। তিনি মোট ২৭ বছর চার মাস ২৮ দিন শিক্ষকতা শেষে ২০১৯ সালের ৩০ এপ্রিল অবসর গ্রহণ করেন। তিনি ১৯৯৬ সাল থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত বিভাগীয় সভাপতির দায়িত্বপালন করেন। এছাড়াও তিনি ২০১৯ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের ডিন হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here