মোঃ আজিজুর রহমান ভূঁঞা বাবুল, ময়মনসিংহ প্রতিনিধি ::

সাফজয়ী আট নারী ফুটবল কন্যাদের সীমান্ত ঘেষা প্রত্যন্ত এলাকা পাহাড়ি জনপদ নিজ নিজ পরিবারের বাসস্থান ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার কলসিন্দুর গ্রামের হাজারো মানুষ আদিবাসী নৃত্য ও গানের তালে তালে ফুলেল পাপড়িতে বরণ করে নেয়ার পাশাপাশি তাদের সংবর্ধিত ও পুরস্কৃত করলেন।

শুক্রবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩টায় প্রথমে হালুয়াঘাট পৌর শহরের জয়িতা মার্কেট চত্বরে পরবর্তীতে সন্ধ্যায় ধোবাউড়া উপজেলা পরিষদের সামনে আদিবাসী নৃত্য ও গানের তালে তালে তাদের বরণ করে নেয়া হয়। হালুয়াঘাট পৌর শহরের জয়িতা মার্কেট চত্বরে তাদের বরণ করে নেন হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া আসনের সংসদ সদস্য জুয়েল আরেং।

এরপর সংসদ সদস্য তার গাড়ি দিয়ে আট নারী ফুটবলারদের নিয়ে রওনা হন ধোবাউড়ার উদ্দেশে। সন্ধ্যায় হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া আসনের সংসদ সদস্য জুয়েল আরেং এর উপস্থিতিতেই ধোবাউড়া উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নারী ফুটবলাদের জন্য আয়োজন করা হয় এক গণসংবর্ধনার।

এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত সাফজয়ী ফুটবল কন্যা সানজিদা আক্তার, মারিয়া মান্ডা, শিউলি আজিম, মার্জিয়া আক্তার, শামছুন্নাহার সিনিয়র, তহুরা আক্তার, সাজেদা আক্তার ও শামছুন্নাহার জুনিয়রকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। নিজ উপজেলার মানুষের ভালোবাসা ও আন্তরিকতায় সিক্ত হন ফুটবল কন্যারা। অনুষ্ঠানে ফুটবল কন্যাদের প্রত্যেককে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ পশাসন, বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে ক্রেস্ট ও ফুলের তোড়া দেওয়া হয়। এ সংবর্ধনায় উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে প্রত্যেক ফুটবলারকে ৫০ হাজার করে টাকা করে পুরস্কৃত করা হয়।

সাফজয়ী ফুটবল কন্যাদের পাশাপাশি সংবর্ধনা দেওয়া হয় তাদের গড়ার মূল কারিগর কলসিন্দুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক সহকারী শিক্ষক ও ফুটবল কোচ মোঃ মফিজ উদ্দিন, বর্তমান কোচ মোঃ জুয়েল মিয়া, কলসিন্দুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যায়ের প্রধান শিক্ষক মিনতী রানী ও দলের টিম ম্যানেজার মালা রানী সরকারকে।

ধোবাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফৌজিয়া নাজনীনের সভাপতিত্বে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সুইডেনের রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডা বার্গ বন লিন্ডে, ধোবাউড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ডেভিড রানা চিসিম, ভাইস চেয়ারম্যান আবুল ফজল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা খাতুন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফাতেমা জান্নাত ও অধ্যক্ষ হেলাল উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়াও ফুটবল কন্যাদের অভিভাবকরা এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে দেখেছেন তাদের কন্যাদের প্রতি নিজ উপজেলার মানুষের ভালোবাসা। এ সময় শুভেচ্ছা বক্তব্য দিতে গিয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন অনুষ্ঠানে উপস্থিত সাফজয়ী ফুটবল কন্যারা।

এ অনুষ্ঠানে জাতীয় নারী ফুটবল দলের সহ-অধিনায়ক মারিয়া মান্ডা বলেন, ‘ধোবাউড়া উপজেলার মাটি আমাদের শরীরে লেগে আছে। এ মাটিতেই আমরা বড় হয়েছি। অনেকবার এসেছি উপজেলা পরিষদ চত্বরে। কিন্তু আজ সবকিছু নতুন মনে হচ্ছে। আমরা আপনাদের সস্তান হিসেবে নিজ ভূমিতে এতো ভালোবাসা পাবো ভাবতেও পারিনি। আপনাদের সমর্থন ও ভালোবাসার কারণে আমরা সাফজয়ী হিসেবে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করতে পেরেছি। আপনাদের অকুণ্ঠ সমর্থনের কারণে আমরা আজ এ পর্যায়ে আসতে পেরেছি। আমরা এ ভালোবাসা ও সমর্থন সবসময় চাই।’

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here