মুজাহিদুল ইসলাম সোহেল, নোয়াখালী প্রতিনিধি ::

নোয়াখালী জেলা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে সুবর্ণচরে সড়ক দুর্ঘটনায় জামাল উদ্দিন গাজী (৫৫) ও মাওলানা হাফিজ উল্যাহ (৫৭) নামে দুই বিএনপি-জামায়াত নেতার মৃত্যু হয়েছে। ২০১৪ সালের উপজেলার বাংলাবাজার এলাকার একটি বিস্ফোরক মামলার হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন।

মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে উপজেলার চর ওয়াপদা ইউনিয়নের সুলতান নগর এলাকার চরজব্বর-সোনাপুর সড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত জামাল উদ্দিন গাজী উপজেলার চর আমান উল্যা ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডের কাটাবুনিয়া গ্রামের মৃত সুলতান আহমদের ছেলে এবং একই ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ছিলেন। হাফিজ উপজেলার চরবাটা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত মাওলানা নুরুল উল্যার ছেলে এবং একই ইউনিয়নের জামায়াত নেতা ও উপজেলা ওলামা দলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

চর আমান উল্যা ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সাবেক সদস্য ( মেম্বার) হোসেন আহাম্মদ দুলাল বলেন, সকালে বিএনপি নেতা গাজী তার আত্মীয়  জামায়াত নেতা হাফিজ উল্যা এক সাথে মোটরসাইকেল যোগে জেলা শহর মাইজদীতে রাজনৈতিক একটি বিস্ফোরক মামলার হাজিরা দিতে যান। হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে উপজেলার চরজব্বর – সোনাপুর সড়কের সুলতান নগর এলাকার পৌঁছলে পিছন দিক থেকে একটি বেপরোয়া গতির সিএনজি চালিত অটোরিকশা তাদের মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়। এতে মোটরসাইকেল চালক হাফিজ উল্যাহ ও আরোহী জামাল উদ্দিন মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে পেছনের চলন্ত একটি ট্রাকের সাথে ধাক্কা লেগে রাস্তার বাহিরে চলে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই বিএনপি নেতা জামাল উদ্দিন গাজী মারা যায়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জামাল উদ্দিন গাজীকে মৃত ঘোষণা করে। মোটর সাইকেল চালক জামায়াত নেতা মাওলানা হাফিজ উল্যাহ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৪টায় মারা যান ।

চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাউছার আলম ভূঁইয়া বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। স্থানীয়রা সিএনজি চালিত অটোরিকশা ও ট্রাক ড্রাইভারসহ ট্রাকটি আটক করে থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করে। তবে পরে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here