জহিরুল ইসলাম শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :: লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভাকে ঘিরে বর্ণিল সাজে সেজেছে ঘোটা লক্ষ্মীপুর। শত-শত তোরণ, ব্যানার, ফেস্টুন, বিলবোর্ড আর আলোকসজ্জ্বায় বর্ণিল করে সাজানো হয়েছে লক্ষ্মীপুরের প্রতিটি রাস্তা-ঘাটকে। বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষনার পর এটি জেলা আওয়ামী লীগের ৩য় বর্ধিত সভা।

আগের দুটি বর্ধিত সভার গুরুত্ব থাকলেও ৩ ডিসেম্বরের বর্ধিত সভার বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। বিশেষ করে আসছে পৌরসভার নির্বাচনকে ঘিরে এই বর্ধিত সভার গুরুত্ব বেড়ে গেছে দলীয় নেতা-কর্মীদের মাঝে। জেলার ৪টি পৌরসভার মেয়র প্রার্থীরা নিজেদের অবস্থান জানান দিতে বর্ধিত সভা ঘিরে চালাচ্ছেন ব্যাপক প্রচার-প্রচারনা। বর্ধিত সভাকে ঘিরে গুঞ্জন রয়েছে জেলা কমিটি নিয়েও। এই বিশেষ বর্ধিত সভায় লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন বা পরবর্তী দিক নির্দেশনা আসতে পারে।

তবে নেতা-কর্মীরা বলছেন বর্তমান জেলা কমিটির সভাপতি গোলম ফারুক পিংকু ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুরুউদ্দিন চৌধুরী নয়নের নেতৃত্বে স্বাধীনতার পর যে কোন সময়ের তুলনায় বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগ অনেক বেশী শক্তিশালী ও কর্মীবান্ধব। তাই জেলা আওয়ামী লীগকে সু-সংগঠিত রাখতে হলে এই কমিটির অধিনে আগামী দিনে জেলা আওয়ামী লীগকে পরিচালনার দায়িত্ব দিতে হবে।

এ ছাড়া কোন অপশক্তির প্ররোচনায় দলছুট কারো কাছে জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব দিলে আগামী দিনে আবারো এই জেলা বিএনপি-জামাতের ঘাটি হিসেবে পরিচিতি পাবে।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, আগামীকাল ৩ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় শহরের কুটুম বাড়ি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত হবে লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা। এতে ভার্চুয়ালে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সভায় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হারুনুর রশীদসহ কেন্দ্রীয় নের্তৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন।

এ ছাড়া সভায় জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সকল সদস্য, সদর উপজেলা, থানা ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকগণ উপস্থিত থাকবেন। এ উপলক্ষ্যে ঘোটা জেলাকে নববধুর রূপে সাজিয়ে তোলা হয়েছে। এখন শুধু কেন্দ্রীয় নেতাদের বরণের অপেক্ষায় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। কেন্দ্রীয় নেতাদের অভিনন্দন ও বর্ধিত সভাকে সফল ও সার্থক করতে আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতাদের প্রচার-প্রচারণা এখন তুঙ্গে। আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভাকে  ঘিরে উজ্জীবিত দলীয় নেতা-কর্মীরাও।

এ ছাড়া আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভাকে ঘিরে আসছে পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চাওয়া ব্যাক্তিরা কেন্দ্রীয় নেতাদের দৃষ্টি কাড়তে ব্যাপক প্রচারণা চালাচ্ছেন। তাদের সমর্থিত নেতা-কর্মীদের মাঝে বইছে আনন্দের জোয়ার। নিজেদের আবস্থান জানান দিতে প্রার্থীদের পাশা-পাশি তাদের কর্মী সর্মথকদেরও নিজ নেতার সমর্থনে প্রচার-প্রচারণা চালাতে দেখা গেছে। এতে করে আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভাকে ঘিরে স্থানীয় নেতা-কর্মীরা চাঙ্গা হয়ে উঠেছেন।

বর্ধিত সভাকে নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন কর্মীর সাথে আলাপ কালে তারা জানান,  বর্ধিত সভায় জেলা আওয়ামী লীগের আগামী দিনের কার্যক্রমের ওপর দিক নির্দেশনা দিবেন কেন্দ্রীয় নের্তৃবৃন্দ। বর্ধিত সভাকে ঘিরে রয়েছে নানা গুঞ্জন। তবে বিএনপি-জামায়াত অধ্যুষিত এই জেলাকে আওয়ামী লীগের জেলা হিসেবে পরিচিত করতে ব্যাপক কাজ করেছেন বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলম ফারুক পিংকু ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুরুউদ্দিন চৌধুরী নয়ন। তারা দলের দায়িত্ব পাওয়ার পর আওয়ামী লীগের সভানেত্রী বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দল গোছানোর কাজ শুরু করেন।

ইতিমধ্যে আওয়ামী রাজনীতিতে লক্ষ্মীপুরের অলক্ষী দূর করেছেন তারা। দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে আওয়ামী লীগকে রাজনীতিক ভাবে শক্তি, সমর্থন বৃদ্ধি করা ও ভোটের মাঠে দলকে সকলের নিকট আস্থায় ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টা সফল হয়েছে। দলকে অতিতের সকল বদনাম গুছিয়ে নেতা-কর্মী থেকে শুরু করে জেলার আপামর জণ-সাধারণের কাছে আস্থাভাজন করে তুলেছেন। এতে তৃণমূল পর্যায়ে ঝিমিয়ে থাকা দলের নেতা-কর্মীরা সক্রীয় হয়ে উঠেছেন। দায়িত্ব পাওয়ার পরে মূল দলের পাশাপাশি দলের অঙ্গ-সহযোগী সংগঠন গুলোকেও কর্মীবান্ধব ও সংগঠিত করতে কাজ করছেন তারা। এতে গত ৫ বছরে তাদের নেতৃত্বে স্বাধীনতার পর যে কোন সময়ের তুলনায় অনেক সু-সংগঠিত ও ঐক্যবদ্ধ দলে পরিণত হয়েছে লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগ। রাজনীতির মাঠে যেমনী ভাবে এগিয়েছে আওয়ামী লীগ, তেমনী ভোটের মাঠেও জনগণের আস্থা অর্জন করেছে তারা। তাই আগামী দিনে জেলা আওয়ামী লীগেকে সু-সংগঠিত রাখতে হলে তাদের নেতৃত্বের বিকল্প নাই।

এ ছাড়া আসছে পৌরসভার নির্বাচনে এমন লোকদেরকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দেওয়া প্রয়োজন, যারা কিনা সব সময় নেতা-কর্মীদের পাশে থাকে এবং দলের অনুগত্য মেনে চলে। যাদের কর্মকান্ডে অতিতে দল ক্ষতিগ্রস্থ্য হয়েছে, যারা নিজের ঘরে গেলে দলের সিদ্ধান্ত মেনেছে কিন্তু অন্যের ঘরে গেলে দলের সিদ্ধান্ত মানেনি, তাদেরকে নতুন করে দলীয় মনোনয়ন না দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রতি তৃণমূলের কর্মীরা অনুরোধ জানান।

লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলম ফারুক পিংকু ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুরুউদ্দিন চৌধুরী নয়ন বলেন, কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতে জেলা আওয়ামী লীগ একটি সুন্দর বর্ধিত সভা উপহার দিবে। এই বর্ধিত সভায় দলের সাংগঠনিক ও রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। জেলা আওয়ামী লীগের সকল ইউনিটকে বর্ধিত সভা সফল করতে একযোগে কাজ করার আহবান জানানো হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here