ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডেস্ক ::

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে জাতীয় পর্যায়ের পাশাপাশি জেলা পর্যায়েও সাক্ষরতা দিবসটি উদযাপন করা হয়। ঠিক তেমনি সাক্ষারতা দিবস উপলক্ষে ঘাসফুলের প্রতিটি শিখন কেন্দ্রে থাকে ভিন্ন আয়োজন।

বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে ঘাসফুলের প্রতিটি শিখন কেন্দ্রের শিক্ষার্থীদের মাঝে দিবসটির ভূমিকা, গুরুত্ব বোঝাতে এমন আয়োজন করলেন  ঘাসফুল কর্তৃপক্ষ । শিক্ষার্থীদের নিয়ে দিনটিতে ছবি আঁকা, স্বাক্ষর শিখানো, স্বাক্ষরতার গল্প বলা ও  আলোচনা করা হয় প্রতিটি শিখন কেন্দ্রে ।

ঘাসফুলের শিক্ষকরা বলেন, আমাদের শিখন কেন্দ্রে প্রায় প্রতিটি বিশেষ দিবসেই এমন আয়োজন থাকে। আর আয়োজনের মূল উদ্দেশ্যেই থাকে শিক্ষার্থীদের মানসিক বিকাশে যেন উক্ত আয়োজনটি সহায়ক হয়।

শিক্ষার্থীরা বলেন, আজকের এই সাক্ষারতা দিবসে আমাদের স্কুলে যেই আয়োজন তা আমাদের জন্য খুবই কার্যকর। সাক্ষরতা দিবসের গুরুত্ব সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ুক এই আমাদের প্রত্যাশা।

প্রসঙ্গত, ঘাসফুলের প্রতিটি শিখন কেন্দ্র আজকের অনুষ্ঠানের সার্বিক তদারকি করেন ঘাসফুলের সুপারভাইজারগণ।

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস হলো জাতিসংঘ শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি সংস্থা বা ইউনেস্কো-ঘোষিত একটি আন্তর্জাতিক দিবস। ১৯৬৬ সালের ২৬ অক্টোবর ইউনেস্কোর সাধারণ সম্মেলনের ১৪তম অধিবেশনে ৮ সেপ্টেম্বর তারিখকে “আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস” হিসেবে ঘোষণা করা হয়। ১৯৬৭ সালে প্রথমবারের মতো দিবসটি উদযাপিত হয়। দিবসটির লক্ষ্য ব্যক্তি, সম্প্রদায় এবং সমাজের কাছে সাক্ষরতার গুরুত্ব তুলে ধরা। বর্তমানে জাতিসংঘের সকল সদস্য রাষ্ট্র এ দিবসটি উদ্‌যাপন করে থাকে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here