মেয়েদের ব্রেস্ট স্ট্রোকে ‘বিশেষজ্ঞ’ হিসেবে খ্যাত এবং এই ইভেন্টের ১০০ মিটারে বিশ্ব রেকর্ডধারী যুক্তরাস্ট্রের লিলি কিংও শোয়েনমেকারের সঙ্গে পেরে ওঠেননি। ২ মিনিট ১৯.৯২ সেকেন্ডে সাঁতার শেষ করে রুপা জিতেছেন লিলি। তাঁর সতীর্থ অ্যানি লেজর জিতেছেন ব্রোঞ্জ (২ মিনিট ২০.৮৪ সেকেন্ড)।

 

১০০ মিটার ব্রেস্ট স্ট্রোকে রুপাজয়ী শোয়েনমেকার হিটেই বিশ্ব রেকর্ড ভাঙার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। ফাইনালে এসে তা করে দেখালেন তিনি। যদিও ৫০ মিটার ও ১০০ মিটার দূরত্ব পাড়ি দেওয়ার সময় লিলি কিংই এগিয়ে ছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাঁকে শোয়েনমেকারের পেছনে পড়তে হয়। ১৯৯৬ আটলান্টা অলিম্পিকের সাঁতারে ১০০ মিটার ও ২০০ মিটারের ব্রেস্ট স্ট্রোকে সোনা জিতেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার পেনি হেইনস। এই ২৫ বছরে অলিম্পিকে প্রথম নারী হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকাকে সাঁতারে সোনা এনে দিলেন শোয়েনমেকার।

টোকিও অলিম্পিকে সাঁতারের ব্যক্তিগত ইভেন্টে এটাই প্রথম বিশ্ব রেকর্ডের নজির। শোয়েনমেকার ব্যক্তিগত ইভেন্টে এই বিশ্ব রেকর্ড গড়ার আগে ৪ গুণিতক ১০০ মিটার রিলে সাঁতারে অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা এবং ৪ গুণিতক ২০০ মিটার রিলে সাঁতারে চীনের মেয়েরা বিশ্ব রেকর্ড গড়েন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here