অনন্য এক মেধাবী নারী

জি এম কামরুল হাসান :: স্বপ্লোভাষি মায়াবী মমতাময়ী কর্তব্যনিষ্ঠ দায়িত্ববান ধার্মিক অনন্য মেধাবী সাফল্যগাঁথা এক নারীর কথা আজ বলছি।বাবা মায়ের তিন সন্তানের মধ্যে তিনি প্রথম। শিক্ষা জীবনের প্রতিটি ক্লাশে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে প্রথম।পঁঞ্চম, অষ্টম, এসএসসি, এইচএসসি, সবটাতেই মেধাতালিকায় প্রথম, প্রতিবেশি, শিক্ষক, পরিবার, আত্নীয় সজন এবং তাদের সন্তানদের কাছে তিনি ছিলেন আইডল।ইচ্ছা ছিলো ডাক্তার হবার, হলেনও তাই।সেখানেও ভালো ফলাফল। কো-কারিকলামেও পিছিয়ে ছিলেন না তিনি। স্কাউট এ সর্বোচ্চ রাষ্ট্রপতি সম্মাননা অর্জন করেন। একই সাথে আবৃত্তি গানের কন্ঠও অসাধারণ।

পিছিয়ে পড়েননি কখনো ধর্মীয় বিষয়ে, অত্যন্ত ভালো করে পবিত্র কোরআন তরজমা করতে পারেন তিনি। তাঁর সব থেকে বড় গুন তিনি সত্য কথা এবং সত্য পথে চলাকে ব্রত হিসেবে নিয়েছেন। পরনিন্দা সমালোচনা মিথ্যা বলা এগুলো তাঁর এলার্জি। পেশায় একজন সু- চিকিৎসক হলেও চলায় এবং বলায় যার পরিমিতি ঙ্গান অসাধারণ। তাঁর পেশাগত অবস্থান খুউবই পরিষ্কার, সাফল্যমন্ডিত। রোগী আর ডাক্তারের সম্পর্ক নিয়ে যখন নানা গল্পের অবতারনা শুনি, তখন তিনি সাধারন রোগীদের কাছে এক ত্রাতা! মানুষের কস্ট দেখে তিনি চোখের পানি ছেড়ে দেন, এদৃশ্য কাছ থেকে নাদেখলে অনুধাবন করা ভার।

একজন মানুষ কতটা কমল হৃদয়ের হলে এমন হয়। ব্যক্তি জীবনে এতোটাই সহজ সরল যে সবাইকে বিশ্বাসের কু-ফলও তিনি অবনত মস্তকে মেনে নেন! নিজের ব্যক্তি জীবনকেও গুরুত্ব দেননা কখনো। কারো প্রতি কোন অভিযোগ নেই তার কখনো।একজন মা হিসেবে সন্তানের প্রতি যেমন কোন অবহেলা করেননা তেমনি স্বামী সংসার আগলে রাখেন নিজের সবটুকু দিয়ে। বাবা মা ভাই বোন আত্নীয় স্বজনদের প্রতি তাঁর রয়েছ সর্বদায় পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি। একজন গাইনী চিকিৎসক হওয়া সত্বেও নিজ সংসারের প্রতিটি বিষয়ে নিখুঁত দৃস্টি আর ভালোবাসার ঘর নিয়ে বড়ই সুখ বোধ করেন তিনি।

স্বামীর প্রতি রয়েছে তাঁর বাঙ্গালী নারীর যে শ্রদ্ধাবোধ তার সবটুকু অটুট-অক্ষত, স্বামীর থেকেও নেই পাওয়া নাপাওয়ার কোন অভিযোগ! এক কথায় স্বামী সন্তান সংসার সব কিছু আগলে রেখে সাজিয়ে গুছিয়ে জীবনের সুবাস ছড়িয়ে চলেছেন তিনি।একজন সফল সন্তান, মা, স্ত্রী!

এমন ভাগ্য ক’জনার কপালে জোটে? সমাজ সেবায় রয়েছে তাঁর মমতার পরশ, নিজে নোটারী ক্লাবের সদস্য। সহ- সভাপতি, আমার মা ফাউন্ডেশন। সাহিত্য সংস্কৃতির প্রতি নিবিড় ভালোলাগা তাঁর একান্ত নিজস্ব। বন্ধু-বান্ধব সকলের প্রতি সহযোগিতার হাত সম্প্রসারিত।

এতোক্ষন যাঁর কথা বলছিলাম তিনি হলেন ডাঃ নুসরাত জাহান মিথেন। আজ ৩০ অক্টোবর তাঁর জন্মদিন! শুভকামনা আর ভালোবাসা অফুরান। আল্লাহ যেন তাঁকে নেক হায়াৎ দ্বান করেন, এ শুভ প্রত্যাশাই রইলো।।কবির ভাষায়- “তোমার তুলনা শুধুই তুমি, তোমার হাঁসির সাথে মিশে থাকে সজিব প্রকৃতির অপার মাধূরী!”

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

‘অনলি মি’ প্রশংসিত

স্টাফ রিপোর্টার :: কনের সাজে রাতের রাস্তাায় ঘুরে বেরাচ্ছেন তানজিন তিশা। চোখে-মুখে ...