ব্রেকিং নিউজ

কবি ফরিদ আহমদ দুলাল’র ধারাবাহিক আত্মকথন ‘আত্মস্খলনের দায়’ পর্ব-০৪

http://www.unitednews24.com/wp-content/uploads/2018/01/Kabi-Farid-Ahmed-Dulal-2-1.jpg

 

আত্মস্খলনের দায় : ৪
ফরিদ আহমদ দুলাল

শিল্প-সাহিত্যের অনুষ্ঠান, শিল্প-সাহিত্যের সংগঠনই আয়োজন করে। তাই তো করতে হবে, কে আপনার-আমার জন্যে অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে? অনুষ্ঠানের আয়োজনে এবং আনুষ্ঠানিকতায় নানান বিষয় বিবেচনায় রাখতে হয়। আনুষ্ঠানিকতার প্রয়োজনে, অতিথি-আলোচক-উদ্বোধক ইত্যাদি নির্বাচন করতে হয়; কথা হচ্ছে কে আপনার অনুষ্ঠানে আলোচক-অতিথি হয়ে আসবেন? অনুষ্ঠানে একজন প্রধান অতিথি, একজন উদ্বোধক, একজন সভাপতি থাকতে পারেন। বিশেষ অতিথি থাকতে পারেন একাধিক। ইদানিং অবশ্য একই অনুষ্ঠানের বিভিন্ন পর্বে বিভিন্নজন সভাপতি-উদ্বোধক এবং প্রধান অতিথি হতে দেখছি। আর বিশেষ অতিথির তালিকা যতটা সম্ভব দীর্ঘ। কতজনকে যে খুশি করতে হয় বিভিন্ন কারণে তার সীমা-পরিসীমা নেই। সবাই অতিথি হতে উদগ্রীব। কিছু না পেলে কিছু কি দেয়া যায়? ‘দেবে আর নেবে মেলাবে মিলিবে….’ সে-ও তো রবীন্দ্রনাথই বলে গেছেন। সম্ভবত ১৯৭৩-এ ঢাকায় বাংলা সাহিত্যের একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিলো, বঙ্গবন্ধুকে সে অনুষ্ঠানের অতিথি করার প্রস্তাব করলে তিনি বলেছিলেন, “আমি বাংলা সাহিত্যের কতটুকুই বা জানি? আমাকে কেন, তোমরা বরং জসীমউদদীনকে অতিথি করে নিয়ে যাও!” এ শিষ্টাচার আজ আর কারও মধ্যেই পাওয়া যাবে না বোধকরি। যা হোক উদ্যোক্তারা শেষপর্যন্ত তাকে বোঝাতে পেরেছিলেন, সাহিত্যের অনুষ্ঠানে অতিথি হবার যোগ্যতা প্রধানমন্ত্রীর আছে। যে কোনো চেয়ার, যে কোনো অনুষ্ঠানের অতিথির আসন অলংকৃত করতেই পারেন, তাতে অনুষ্ঠানের মর্যাদাও বৃদ্ধি পায়। কিন্তু অনুষ্ঠানের চারিত্র্য এবং মেজাজ বুঝে অতিথি নির্বাচনের শিষ্টাচার জানা প্রয়োজন, এবং এ প্রয়োজনের গুরুত্ব এবং তাৎপর্য সংশ্লিষ্ট সংগঠনের কর্মকর্তাদের উপলব্ধি করা আবশ্যক; যারা নিজেদের সম্মান করতে জানে না, কি করে তারা অন্যের কাছে সম্মান প্রত্যাশা করবে?
উপজেলা পর্যায় থেকে জাতীয় পর্যায়, সর্বত্রই দেখি যে কোনো অনুষ্ঠানের অতিথি এবং বক্তা নির্বাচনে বিভিন্ন অশোভন প্রবণতা। যে সব প্রবণতা দেখে আমার মনে হুট করেই উঁকি দেয় জীবনানন্দ দাশের সেই বিখ্যাত কবিতার পঙক্তি-
অদ্ভুত আঁধার এক এসেছে এ-পৃথিবীতে আজ,
যারা অন্ধ সবচেয়ে বেশি আজ চোখে দেখে তারা;
যাদের হৃদয়ে কোনো প্রেম নেই–প্রীতি নেই–করুণার আলোড়ন নেই
পৃথিবী অচল আজ তাদের সুপরামর্শ ছাড়া
যদের গভীর আস্থা আছে আজো মানুষের প্রতি
এখনো যাদের কাছে স্বাভাবিক ব’লে মনে হয়
মহৎ সত্য বা রীতি, কিংবা শিল্প অথবা সাধনা
শকুন ও শেয়ালের খাদ্য আজ তাদের হৃদয়।
(অদ্ভুত আঁধার এক)
জীবনানন্দ দাশের এ কবিতাটি যে, কতোবার আমায় আবশ্যিকভাবে উদ্ধৃত করতে হয়েছে, এবং সাথে হুমায়ূন আজাদ-এর ‘সবকিছু নষ্টদের দখলে যাবে’ও। কবিতার সেমিনারে কোনো কবি বা কাব্যকোবিদ নেই আলোচনায়? নাট্যসংস্থার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে কোনো নাট্যজনের সুযোগ নেই? ইতিহাস আলোচনায় নেই কোনো ইতিহাসবেত্তা? কেনো তথাকথিত জগদ্দল পাথরগুলোকে ঠাঁই দিচ্ছেন? কারা দিচ্ছেন? বিশেষ অজ্ঞরা কি নিজেরাই আসন দখল করে নিচ্ছেন, না-কি আমরা তাদের আসন ছেড়ে দিয়ে বর্তে যাচ্ছি? নিজেদের কৃতকর্মের প্রতি সবাই একবার দৃষ্টি দিয়ে দেখি না? সহজেই বুঝতে পারবো আমরা নিজেরা কত বড় মূর্খতা করছি। সামান্য কিছু টাকা অথবা করুণা প্রাপ্তির আশায় সাহিত্য উৎসবের আহবায়ক বানাচ্ছি সুদখোর লগ্নিকারককে; কবিদের মাথার উপর ছড়ি ঘোরাবার জন্য নিয়ে এলাম বাস্তুবণিককে। বাস্তুবণিকের কাছে কী প্রত্যাশা আমার? যাদের অতিথি করে আনা হচ্ছে, তাদের তো চেয়ার পেয়ে, বক্তৃতা দেবার সুযোগ পেয়ে ভালোই লাগবে; তারা দু’চার-পাঁচ-দশ-বিশ-পঞ্চাশ হাজার দিয়ে চিত্তের সুখ কিনে যাচ্ছেন; কিন্তু আমরা যারা অঘটনঘটনপটিয়শী তাদের তো ন্যূনতম লজ্জিত হতে দেখছি না?
বিভিন্ন প্রয়োজনে কোনো কোনো চেয়ারের ধারককে অতিথি করবার আবশ্যিকতা আছে বৈকি; কিন্তু মূলকে অবহেলা করে যদি চেয়ারের জোরটাকেই ধরতে চাওয়া হয়, তাতে যে মূলটাই খোয়া যাবার শঙ্কা দেখা দিতে পারে সে কথাটা যেনো আমরা ভুলে না যাই।

(চলবে….)

 

লেখকের ই-মেইলঃ swatantro@yahoo.com

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

বোরহান উদ্দিন

ব্যক্তিত্ব কি ?

বোরহান উদ্দিন :: ব্যক্তিত্ব হলো মানুষের কতগুলো আচরণে বহিঃপ্রকাশ। এক একজন মানুষের ...