৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন!

ঢাকা : দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তফসিলের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তফসিল ঘোষণার দিন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ জাতির উদ্দেশ্যে যে ভাষণ দেবেন চূড়ান্ত হয়েছে খসড়াও।

দু-এক দিনের মধ্যে ইসি বৈঠকের মাধ্যমে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে বলে রোববার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের জানিয়েছেন সিইসি।

ইতোমধ্যে মধ্যে পুলিশের আইজিপি হাসান মাহমুদ খন্দকার রোববার সন্ধ্যায় এক চিঠির মাধ্যমে ইসিকে নির্বাচনী যাবতীয় নিরাপত্তা দেওয়া ও আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার নিশ্চয়তা দিয়েছেন।

তফসিলের জন্য তৈরি পরিপত্রের খসড়া ও সিইসির ভাষনের খসড়া অনুযায়ী ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট। এক্ষেত্রে প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় নির্ধারণ করা হতে পারে ৬ ডিসেম্বর ও মনোনয়নপত্র বাছাই ৮ ও ৯ ডিসেম্বর। সেক্ষেত্রে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সময় থাকছে ১৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

ইসি সূত্র জানায়, জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণের খসড়া তৈরি করেছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব ড. মোহাম্মদ সাদিক। এক্ষেত্রে ২০০৮ সালের ২ নভেম্বর নবম সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণায় জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া তৎকালীন সিইসি এটিএম শামসুল হুদার ভাষণের কপিকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। সিইসি নিজেও একটি ভাষনের ড্রাফট তৈরি করেছেন।

কমিশন সূত্র জানায়, বিভিন্ন নির্বাচন কমিশনারের মান অভিমান ও মতানৈক্য শেষে সন্ধ্যায় নির্বাচনী তফসিলের খসড়া পরিপত্র তৈরি হয়। ইসি বৈঠকের মাধ্যমে এ পরিপত্র পাস করে তফসিল ঘোষণা করবে ইসি।

ইসি সূত্র জানায়, ওই খসড়া মতে (পরিপত্র-১), নির্বাচন কমিশনের নিজস্ব কর্মকর্তাদের বিরোধিতা সত্ত্বেও নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) নিয়োগ করা হবে। আর সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বা সহকারী কমিশনারকেও (ভূমি) সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা করা হবে।

এছাড়াও যেসব উপজেলা ভেঙে একাধিক আসন হয়েছে সেখানে অপেক্ষাকৃত বড় আসনে ইউএনও এবং ছোট আসনে সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) নিয়োগ করা হবে। অধিক ছোট আসনে থানা বা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকেও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব দেওয়া হবে। অন্যদিকে মেট্রোপলিটন এলকায় সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বা অন্য কোনো কর্মকর্তাকে নিয়োগ দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে রিটার্নিং কর্মকর্তারা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের দায়িত্ব বন্টন করে দেবেন।

সব মিলিয়ে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৭০ জন রিটার্নিং কর্মকর্তা এবং ৬০০ জন সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ করবে ইসি।

এদিকে রোববার সন্ধ্যায় সিইসি কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, কাগজে দেখছি, প্রধান দুই দলের সমঝোতার চেষ্টা হচ্ছে। গোটা জাতি এই সমঝোতার দিকে তাকিয়ে আছে। আমাদেরও তাদের সাহায্য করা উচিত।

তিনি বলেন, তবে আমাদেরও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তফসিল ঘোষণা করতে হবে। দুই একদিনের মধ্যে ইসি বৈঠকেই আমরা তফসিলের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবো।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

শিবগঞ্জের জঙ্গি আস্তানা

শিবগঞ্জের জঙ্গি আস্তানা থেকে চারজনের মরদেহ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার :: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবপুর উপজেলার শিবনগর গ্রামে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি ...