১৫ বছর পর রামগঞ্জ আওয়ামীলীগের সম্মেলন: বিভক্তিতে নেতা-কর্মীরা, সংঘর্ষের আশঙ্কা

আওয়ামীলীগজহিরুল ইসলাম শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি:: দীর্ঘ ১৫ বছর পর আগামী ১৫ জুলাই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন। সম্মেলন উপলক্ষ্যে দলীয় নেতা-কর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে। নেতার প্রতিকৃতি আর প্রতিশ্রুতি সম্বলিত রং-বেরংর ব্যানার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে রামগঞ্জ পৌর শহর। বিভিন্ন স্থানে নির্মাণ করা হয়েছে হাজারেরও বেশী তোরণ।

এদিকে দলের দায়িত্বে কে আসবেন তা নিয়ে কর্মীদের মধ্যে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। তৃণমূলের বেশির ভাগ নেতা-কর্মী চাচ্ছেন ভোটের মাধ্যমে জনপ্রিয় ও পরিক্ষিত নেতা বাছাই করে নতুন নেতা নির্বাচন করা হউক।

দীর্ঘদিন থেকে সম্মেলন না হওয়ায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম অত্যন্ত দুর্বল হয়ে পড়ায় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের সাধারণ নেতা-কর্মীরা হতাশায় ভুগছিলেন।

গত দুই বছর থেকে বার বার সম্মেলনের তারিখ ঘোষনা হলেও অদৃশ্য কারনে তা বানচাল হয়ে যায়। সর্বশেষ আনোয়ার হোসেন খাঁনকে সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক করা হলে উপজেলা ব্যাপী আওয়ামীলীগে স্বস্থি ফিরে আসে। সম্মেলন বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে তার নেতৃত্বে রবিবার রামগঞ্জ জিয়া অডোটরিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগ ৩৮৪ জন কাউন্সিলরের নাম অনুমোদন দেয়।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সর্বশেষ ২০০২ সালে রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই সম্মেলনে আলহাজ্ব শাহাজান মিয়াকে সভাপতি ও আ ক ম রহুল আমিনকে সাধারণ সম্পাদক করে ৬৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটির অনেক সদস্য মারা গেছেন আবার অনেকেই একতন্ত্রের কারনে নিস্ক্রিয় রয়েছেন। তৃণমূলের সাধারণ নেতা-কর্মীদের মতে, দীর্ঘদিন থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন না হওয়ায় দলে নের্তৃত্ব শূণ্যতা প্রকট হচ্ছে।

এদিকে আগামী সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এই সম্মেলন হয়ে উঠেছে স্থানীয় রাজনীতিতে গুরুত্বপুর্ণ। ধারণা করা হচ্ছে নতুন সভাপতি আগামী সংসদ নির্বাচনে এই আসন থেকে দলের মনোনয়ন পাবেন। এমন পরিস্থিতে এক রকম বিভক্তিতে রয়েছেন দলের নেতা-কর্মীরা। এ নিয়ে সম্মেলনকে ঘিরে যে কোন সময় সংঘর্ষর আশংঙ্কা করছেন নেতা-কর্মীরা।

আগামী ১৫ জুলাই সম্মেলনে সভাপতি পদে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সফিকুল ইসলাম, সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক আনোয়ার হোসেন খাঁন মডার্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট্য শিল্পপতি আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন খাঁন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এডভোকেট সফিক মাহমুদ পিন্টু, রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি আলহাজ্ব মো. শাহাজান মিয়া ও সাধারন সম্পাদক পদে আ ক ম রুহুল আমিন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মনির হোসেন চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আমির হোসেন খাঁন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুরাইয়া আক্তার শিউলি ও  সাবেক তিন ছাত্রনেতা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দেওয়ান বাচ্চু, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক বেলাল আহম্মেদ ও আকবর হোসেনের নাম শুনা যাচ্ছে।

এদিকে উপজেলা আওয়ামীলীগের কাউন্সিলকে ঘিরে নেতা-কর্মীদের মাঝে বিভক্তি দৃশ্যমান হয়ে উঠছে। গ্রাম, ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, পৌরসভাসহ উপজেলা ব্যাপী আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত হয়ে উঠলেও দলীয় বিভক্তির কারনে নিজেদের অভ্যন্তরে সংঘাত সংঘর্ষের আসংখ্যা রয়েছে বলে মনে করেন স্থানীয়রা। সভাপতি-সাধারন সম্পাদক পদসহ গুরুত্বপূর্ণ পদে একাধিক প্রার্থী থাকায় দল-উপদলে বিভক্ত ও অভ্যন্তরীন কোন্দল দৃশ্যমান হয়ে উঠেছে।

সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির যুগ্ম আহবায়ক এম এ মমিন পাটওয়ারী জানান, উৎসবমুখর পরিবেশে সম্মেলন বাস্তবায়ন করতে ৩০ হাজার নেতা-কর্মীর সমাগম ঘটবে।

সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন খাঁন জানান, দীর্ঘদিন পর সম্মেলন তাই উৎসাহ উদ্দীপনা একটু বেশী। সাথে সাথে আওয়ামীলীগ একটা বড়দল প্রতিযোগীতা ও থাকবে। সকল সংঘাত, সংঘর্ষ ও মতবেদ নিয়ন্ত্রন রেখে সম্মেলন শেষ করা হবে। সঠিক নেতৃত্ব বাছাই করে জননেত্রী শেখ হাছিনাকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লক্ষ্মীপুর-১ রামগঞ্জ আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা মনোনয়ন পাওয়া এমপি প্রার্থীকে জয়যুক্ত করে উপহার দেওয়া হবে।

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

লক্ষ্মীপুরে বিএনপি নেতা এ্যানীর বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর

বিএনপি নেতা এ্যানীর বাড়িতে হামলা: ভাঙচুর

জহিরুল ইসলাম শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : : কেন্দ্রীয় বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ ...