হিল্লা বিয়েতে রাজী না হওয়ায়…

হিল্লা বিয়েতে রাজী না হওয়ায়...   তানসেন আলম, বগুড়া প্রতিনিধি :: প্রবাসী স্বামী মোবাইল ফোনে স্ত্রীকে তালাক দেয়ার ঘটনায় বগুড়ার শাজাহানপুরে গ্রাম্যমাতবরদের ফতোয়ায় ‘এক ঘরে’ করে রেখেছে একটি পরিবারকে।

ঘটনাটি ঘটে উপজেলার খরনা ইউনিয়নের কড়িআঞ্জুল মধ্যপাড়া গ্রামে। ফতোয়ার শিকার ২ সন্তনের জননী গোলাপী বেগম বাদি হয়ে বুধবার থানায় এজাহারভুক্ত ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা (নং-০৭) দায়ের করেন।

মামলা দায়েরের পর বুধবার রাতে থানার এসআই তাজমিলুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স অভিযান চালিয়ে ৪ ফতোয়াবাজকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরন করেন। গ্রেফতারকৃতরা হলো, কড়িআঞ্জুল মধ্যপাড়ার মৃত ওয়াহেদ আলীর পুত্র ফজলুর রহমান (৪৫), মৃত ছুমির উদ্দিনের পুত্র আনসার আলী (৪৪), মৃত রিয়াজ উদ্দিনের পুত্র মোজাফ্‌ফর আলী (৩৫) ও আব্দুস সাত্তারের পুত্র আব্দুল আলিম (৪০)।

ফতোয়ার শিকার গোলাপী বেগম জানান, ১২ বছর পূর্বে আব্দুল মমিনের সাথে তার বিয়ে হয়। বর্তমানে ১০ বছর বয়সী আবু জার গিফারী এবং ৬ বছর বয়সী রেজওয়ান নামে দুই পুত্র সন্তান নিয়ে ঘর-সংসার করে আসছি।

গত দেড় বছর যাবত স্বামী আব্দুল মমিন মালয়েশিয়ায় চাকরিরত আছেন। ১ বছর পূর্বে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্য হওয়ায় মোবাইল ফোনে তাকে তালাক দেয়। এই কথা ভাসুর মোখলেছুর রহমানকেও জানায় তার স্বামী। স্বামী মোবাইল ফোনে তাকে তালাক দেয়ার পরদিনই ভূল বুঝতে পেরে উভয়ের মধ্যে পুনরায় সম্পর্ক বহাল থাকে এবং সুখে-শান্তিতে বসবাস করতে থাকে।

কিন্তু ভাসুর মোখলেছুর রহমান পারিবারিক দ্বন্দের জের ধরে তাদের সুখের সংসার ভেঙ্গে দেয়ার উদ্যেশ্যে হঠাৎ করে ২৩ সেপ্টেম্বর রাত ৯ টার দিকে গ্রামের অন্যান্য মাতবরদের ডেকে এনে সালিশী বৈঠক বসে।

বৈঠকে ‘হিল্লে বিয়ে’ ছাড়া সংসার করা যাবে না মর্মে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। হিল্লে বিয়েতে রাজী না হওয়ায় ওই দিন থেকেই দু’সন্তান সহ তাকে প্রতিবেশীদের সাথে উঠ-বোস ও সমাজের কোন আচার অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন বন্ধ করে দিয়ে ‘এক ঘরে’ করার ঘোষনা দেয়।

সে মোতাবেক গত কোরবানী ঈদে গ্রাম্যমাতবররা তাকে কোরবানী দিতে দেয়নি এবং সমাজের গোসতও তাকে দেয়া হয়নি। ঘটনাটি প্রবাসী স্বামীকে জানালে ২ নভেম্বর মৌলভীর মাধ্যমে মোবাইল ফোনে পুনরায় উভয়ের মধ্যে বিয়ে পড়ানো হয়।

এই ঘটনায় বুধবার গোলাপী বেগম বাদি হয়ে ভাসুর মোখলেছুর রহমান (৩৫) ও মৃত ময়েজ উদ্দিনের পুত্র টুকু মিয়া (৪০) সহ গ্রেফতারকৃত ৪ ফতোয়াবাজের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন।

বৃহস্পতিবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই তাজমিলুর রহমান জানান, গ্রেফতারকৃত ৪ ফতোয়াবাজকে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

শিবগঞ্জের জঙ্গি আস্তানা

শিবগঞ্জের জঙ্গি আস্তানা থেকে চারজনের মরদেহ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার :: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবপুর উপজেলার শিবনগর গ্রামে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি ...