Home / টপ নিউজ / হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলনকলিট তালুকদার, পাবনা প্রতিনিধি :: পাবনার হেমায়েতপুর ইউনিয়নের ইসলামপুরের স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হককে নৃশংসভাবে হত্যার প্রতিবাদে এবং হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছে নিহতের স্বজনেরা।

রবিবার দুপুরে পাবনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিহতের ভাই ইছাহাক আলী।

লিখিত অভিযোগে তারা বলেন, নিহত এনামুল এলাকার একজন প্রতিবাদী মানুষ হিসাবে পরিচিত ছিল। তার জন্য এলাকায় কেই কোন অন্যায় কাজ করতে পারতো না। গত ৮ জুলাই পাশ্ববর্তী হেমায়েতপুর এলাকার কতিপয় সন্ত্রাসী ইসলামপুর গ্রামে এসে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করতে থাকে। এনামুল এর প্রতিবাদ করলে সন্ত্রাসীদের সাথে এলামুলের কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় এলাকা বাসীরা এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

এরই জেরধরে ওই দিন রাত ৮টার দিকে সন্ত্রাসীরা সংঘবদ্ধ হয়ে ইসলামপুরে গিয়ে এনামুল ও তার সমর্থকদের উপর হামলা চালিয়ে দোকানপাট ভাংচুর, মারপিট ও লুটপাট শুরু করে। এ সময় এনামুল বাধা দিলে তাকে উপুর্যপরি কুপিয়ে পালিযে যায় সন্ত্রাসীরা।

সন্ত্রাসী হামলায় এনামুল ও তার ভাই ইসহাক আহত হয়। মুমুর্ষ অবস্থায় এনামূল ও তার ভাইকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাবার পথে এলাকার শাহজাহান ওরফে সাজাই হাজির মিল ঘরে কাছে পৌঁছালে ওই সন্ত্রাসীরা তাদের গতিরোধ করে দ্বিতীয় দফায় এনামূল, এনামুলের স্ত্রী, সন্তান ও ভাইকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। এ সময় ঘটনাস্থলেই এনামুলের মৃত্যু হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নিহত এনামুলের বাবা আকাতুল্লাাহ প্রামানিক, মা সুফিয়া খাতুন, এনামুলের স্ত্রী রুবিয়া খাতুন, ছেলে আল আমিন, মেয়ে রূপালী খাতুন প্রমুখ।

ঘটনরার পরদিন নিহত এনামুলের স্ত্রী রুবিয়া খাতুন বাদী হয়ে ১৩ জন নামীয়সহ অজ্ঞাত আরও ৪/৫ জনের নামে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরো অভিযোগ করা হয় হত্যাকান্ডের এক সপ্তাহ হলেও পুলিশ একজন আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি। বরং মামলা তুলে নিতে আসামিরা নানা ধরনের হুমকি দিচ্ছে। মামলা তুলে নেওয়ার জন্য নিহতের পরিবারকে হুমকি দিচ্ছে আসামীরা।

উল্লেখ্য, ৮ জুলাই রাতে সন্ত্রাসীদের এলোপাথারী ছুরিকাঘাতে নিহত হয় ইসলামপুর মহল্লা আওয়ামী লীগের সভাপতি এনামুল হক।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সাংবাদিক আনন্দ দাসকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দূর্বৃত্তরা যশোর সদর উপজেলার চাঁচড়া হরিণার বিলে গলা, হাত ও পায়ের রগ কেটে হত্যার চেষ্টা করে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সাংবাদিক আনন্দ দাসকে হত্যা চেষ্টার প্রতিবাদে কেশবপুরে সাংবাদিকদের বিক্ষোভ

জাহিদ আবেদীন বাবু, কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি :: যশোরের কেশবপুর প্রেসক্লাবের সদস্য বিশিষ্ট ...