Templates by BIGtheme NET
ব্রেকিং নিউজ ❯
{ echo '' ; }
Home / শীর্ষ নিউজ / স্ত্রীর চিকিৎসায় সর্বস্বান্ত: মেয়েসহ আত্মহত্যার আবেদন
Print This Post

স্ত্রীর চিকিৎসায় সর্বস্বান্ত: মেয়েসহ আত্মহত্যার আবেদন

স্ত্রীর চিকিৎসায় সর্বস্বান্ত, মেয়েসহ আত্মহত্যার আবেদনডেস্ক নিউজ :: গত চার বছর ধরে স্ত্রী আক্রান্ত ফুসফুসের অসুখে। তার চিকিৎসা করতে গিয়ে জমানো সব টাকা শেষ। শেষ জমিজমাও। আয়ের উৎস একমাত্র দোকানটিও বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছেন। কিন্তু তারপরও স্ত্রীকে সুস্থ করাতে পারেননি স্ত্রী। তাই এবার পাঁচ বছরের মেয়েকে নিয়ে আত্মহত্যার অনুমতি চাইলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমের দুবরাজপুরের পদুমা পঞ্চায়েতের রামচন্দ্রপুর গ্রামের বাসিন্দা সীমান্ত ঘোষ।

সংবাদ প্রতিদিনের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, ৩৫ বছরের সীমান্ত ঘোষের ছোট্ট সংসারে রয়েছেন স্ত্রী মীনা ঘোষ ও পাঁচ বছরের শিশুকন্যা। তবে গত কয়েক বছর ধরে মীনাদেবী ফুসফুসের জটিল অসুখে আক্রান্ত। জেলার ছোট-বড় নানা হাসপাতালে সময় সময় বিভিন্ন চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসা করানো হয়েছে। কিন্তু তাতে লাভ খুব একটা হচ্ছে না। কিছুটা ভাল থাকার পর ফের শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছে মীনাদেবীর।

এভাবেই কেটে গিয়েছে গত চার-চারটি বছর। কিন্তু সুস্থ হয়ে উঠতে পারেননি তিনি। ইতোমধ্যেই তার চিকিৎসার জন্য জমানো টাকাপয়সা সব শেষ হয়ে গিয়েছে। ছিল সামান্য কিছু জমিজমা। তাও বিক্রি করে দিতে বাধ্য হয়েছেন সীমান্তবাবু। সর্বশেষ সংসার চালানোর একমাত্র আয়ের উৎস একটি মুদি দোকান ছিল। কিন্তু স্ত্রীকে বাঁচাতে সেই দোকানও বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছেন তিনি।

এখন সীমান্তবাবু বলতে গেলে প্রায় পথের ভিখারি। অভিযোগ, স্ত্রীর চিকিৎসা চালানোর জন্য প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরের কর্তাদের কাছে দফায় দফায় আবেদন জানিয়েছেন। কিন্তু মেলেনি কোনও উত্তর। এমনকী চিঠিগুলির প্রাপ্তিস্বীকারও করা হয়নি। এই পরিস্থিতিতে সপ্তাহের প্রথমদিনই হাতে স্ত্রীর চিকিৎসা সংক্রান্ত সমস্ত কাগজপত্র নিয়ে বীরভূমের জেলাশাসককের দপ্তরের সামনে হাজির হন বীরভূমের বাসিন্দা।

হাতে ছিল পাঁচ বছরের মেয়েসহ সীমান্তবাবুর আত্মহত্যার আবেদনপত্র। কিন্তু জেলাশাসক বিভিন্ন বৈঠকে ব্যস্ত থাকায় সীমান্তবাবুর সঙ্গে দেখা করতে পারেননি। ফলে তিনি মেয়েকে নিয়ে জেলা প্রশাসনিক ভবনের দরজায় ধরনায় বসে যান।

পুলিশ কয়েকবার অনুরোধ করলেও উঠতে নারাজ ছিলেন তিনি। সীমান্তবাবুর একটিই দাবি,মাত্র একবারের জন্য দেখা করতে চান জেলা প্রশাসকের সঙ্গে। সরাসরি তার হাতেই তুলে দিতে চান আবেদনপত্রটি। সর্বস্বান্ত হয়ে মেয়েকে নিয়েই আত্মহত্যা করতে চান তিনি। এছাড়া আর কোনও উপায় নেই বলেই দাবি বীরভূমের বাসিন্দার।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful