স্টামফোর্ড মাদক বিরোধী ফোরামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

স্টামফোর্ড মাদক বিরোধী ফোরামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

স্টাফ রিপোর্টার :: দেশের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক মাদক বিরোধী সংগঠন স্টামফোর্ড মাদক বিরোধী ফোরাম এর প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ধানমন্ডি ক্যাম্পাসে দিন ব্যাপী বনার্ট্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে বর্ষপূর্তি উদযাপন করা হয়। অনুষ্ঠানে মাদক বিরোধী কাজে ভূমিকা রাখায় পাঁচ ক্যাটাগরিতে ‘এসএডিএফ হোয়াইট হার্ড অ্যাওয়ার্ড’ প্রধান করা হয়।

‘এসএডিএফ হোয়াইট হার্ড অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন মাদক বিরোধী সাহসী কারযক্রম পরিচালনায় ভূমিকা রাখায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের ঢাকা মেট্র অঞ্চলের উপ পরিচালক মকুল জ্যোতি চাকমা, সাদা মনের মানুষ হিসেবে ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শামসুল আলম, মাদকের বিরুদ্ধে সাহসী সাংবাদিকতায় ভূমিকা রাখায় দৈনিক আমাদের সময়ের ক্রাইম রিপোর্টার হাবিব রহমান, সমাজ পরিবর্তনে ভূমিকা রাখায় সংগঠন ক্যাটাগরিতে ডাব্লিউবিবি ট্রাস্ট ও ডিজিটাইলেজসনে ভূমিকা রাখায় পেয়েছেন লিডসাস লিমিটেড।

স্টামফোর্ড মাদক বিরোধী ফোরামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপনঅনুষ্ঠানে ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর মুহাম্মদ আলী নকী’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের পরিচালক (চিকিৎসক ও পূর্নবাসন) মফিদুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডেইলি সানের সম্পাদক এনামুল হক চৌধুরী, স্টামফোর্ডের বোর্ড অব ট্রাস্টির চেয়ারম্যান ফাতিনাজ ফিরোজ, এবং এমিরেটাস প্রফেসর ড. এম ফিরোজ আহমেদ।

এছাড়া উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন বোর্ড অব ট্রাস্টির সদস্য ও স্টামফোর্ড মাদক বিরোধী ফোরামের কনভেনর, ড. ফারাহনাজ ফিরোজ। আরো বক্তব্য রাখেন স্টামফোর্ড মাদক বিরোধী ফোরাম-এর চিফ এডভাইজর  প্রফেসর ড. কামরুজ্জামান মজুমদার, অভিনেতা সিয়াম আহমেদ এবং ফোরামের সভাপতি রাখিল খন্দকার নিশান।

প্রধান অতিথি মফিদুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, ‘আমাদের দেশের অনতম্য প্রধান সমস্যা মাদক। বন্ধুদের প্ররোচনায়, কৌতুহল বশত, ব্যাক্তিগত হতাশার কারণে অনেকে মাদক গ্রহন করে। অনেক তরুণ মাদক আসক্ত যখন মাদক সেবনের জন্য পরিবার থেকে টাকা পাইনা, তখন তারা টাকার জন্য সমাজ বিরোধী অনেক কাজে লিপ্ত হয়ে যায়। বাংলাদেশের তরুণদের বড় একটা অংশ মাদকাসক্ত হয়ে পড়লেও, তরুণের একটি অংশ মাদক মুক্ত সুন্দর সমাজ গড়তে কাজ করছে। তার প্রমান স্টামফোর্ড মাদক বিরোধী ফোরাম।’ তিনি বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে তোমরা তরুণেরা সংগ্রাম চালিয়ে যাও, সব সময় সব ধরনের সহযোগিতার জন্য মাদক নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর তোমাদের সঙ্গে থাকবে।

স্টামফোর্ডের বোর্ড অব ট্রাস্টির চেয়ারম্যান ফাতিনাজ ফিরোজ বলেন, ‘স্টামফোর্ড মাদক বিরোধী ফোরাম মাদক মুক্ত সমাজ গড়তে নিরলস ভাবে কাজ করছে। এই ফোরাম তাদের কাজের মাধ্যমে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়কে জাতীয় পর্যায়ে সম্মানজনক ভাবে তুলে ধরছে। স্টামফোর্ড মাদক বিরোধী ফোরামকে আমরা সব ধরনের সহযোগিতা করবো।’ তিনি এই সময় স্টামফোর্ড মাদক বিরোধী ফোরামের জন্য একটি অফিস রুম বরাদ্দের কথাও বলেন।

স্টামফোর্ড মাদক বিরোধী ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রাখিল খন্দকার বলেন, স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। সবার সহযোগিতা না পেলে আমাদের সংগঠনকে এত দূর নিয়ে আসা সম্ভব হতো না। তিনি বলেন, আমাদের সংগঠন বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক প্রথম মাদক বিরোধী ফোরাম হিসেবে রোল মডেলের ভূমিকা রাখছে। আমাদের দেখাদেখি অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও মাদক বিরোধী সংগঠন গড়ে তুলছে।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে  জমকালো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী বিউটি, পুলক ও তুলি। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী প্রোগ্রামে মিডিয়া পার্টনার হিসাবে ছিলেন দৈনিক সমকাল, এশিয়ান টিভি, কালারস এফএম ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল রাইজিংবিডি।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

১০ ডিসেম্বরের মধ্যে সব পরীক্ষা শেষ করতে ইসির নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার :: আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে সব পরীক্ষা শেষ করতে শিক্ষা ...