সীমান্তে আটক ৯ উট নিলামে বিক্রি

সীমান্তে আটক ৯ উট নিলামে বিক্রিআশরাফুল ইসলাম, চাপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে আসার পর আটক ৯ উট অবশেষে নিলামে বিক্রয় করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে শিবগঞ্জ কাস্টমস্ শুল্ক অফিসের পাশে আমবাগানে প্যান্ডেল টাঙিয়ে এ নিলাম অনুষ্ঠিত হয়।

নিলামে স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার, কাস্টমস্ কর্র্তপক্ষ, পুলিশ প্রশাসন, বিজিবি সদস্য, পশু সম্পদ বিভাগ ও গোয়েন্দা প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। প্রকাশ্য নিলামে ৬২ লক্ষ ১০ হাজার টাকা দিয়ে ৯টি উট কেনেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের আজাইপুর মাঝপাড়া এলাকার আয়াত নূর ইসলাম।

শিবগঞ্জ শুল্ক গুদাম কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন জানান, এর সাথে মূল্য সংযোজন কর ও এআইটি বাবদ ৯ ভাগ হারে যোগ হবে ৫ লক্ষ ৫৮ হাজার টাকাসহ সর্বমোট দাম পড়বে ৬৭ লক্ষ ৬৮ হাজার ৯০০ টাকা।

নিলামে ঢাকা মিরপুর এলাকার ও চলচ্চিত্রের খল নায়ক ডিপজলের ভাগ্নে রাইহানের প্রতিনিধি হিসেবে সর্বোচ্চ দরদাতা হয়ে আয়াত নূর ইসলাম উটগুলি কেনেন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা যায় এবং নিলামে অংশ নেয়া কয়েকজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান।

শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র কারিবুল হক রাজিন জানান, নিলামে অনেক বেশী উচ্চ মূল্য পাওয়ায় সরকারের রাজস্ব বেড়েছে বটে, তবে শুনেছি নিলামকারীরা পরে আরো চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে আরো অবৈধভাবে উট নিয়ে এসে একই নিলামের কাগজ দেখিয়ে সেগুলি বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যাবে। এতো বেশী দামে তারা উটগুলি কেনার কারণ হিসেবে এমন সন্দেহ থাকাটায় স্বাভাবিক।

তিনি আরো বলেন, প্রশাসনকে সতর্ক থাকার অনুরোধ জানায় যাতে এমন কাজ না হয়। নিলামে ২৫০ জন নিলামে অংশ নেন বলে জানান আলমগীর হোসেন। আটক ৯ উট নিলামে বিক্রির পর জবাই ও হত্যা না করে চিড়িযাখানায় হস্তান্তরের জোর দাবীতে গত ১৫ জানুয়ারী সোমবার মানববন্ধনে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অংশ নেন। নিলামে বিক্রির পর উট জবাই ও হত্যা না করে চিড়িযাখানায় হস্তান্তরের জোর দাবী জানান হয় মানববন্ধন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও।

আটক উট চিড়িয়াখানায় পাঠাতে সরকার তেমন উদ্যোগ না নেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশও করেন তারা। ২৪ জানুয়ারী বুধবার উট গুলি নিলামের সিদ্ধান্ত নেন কর্তৃপক্ষ।

গত ১২ জানুয়ারী ভোরে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার সোনামসজিদ ও শিয়ালমারা সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে চোরাকারবারীরা ৯ টি উট নিয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে নিয়ে আসার সময় বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা আটক করে শিবগঞ্জ থানায় পৃথক ২টি মামলা দায়েরের পর শিবগঞ্জ কাস্টমস্ শুল্ক গুদামে জমা দেয়।

ভারতের রাজস্থান থেকে ২০ লক্ষ টাকার বিনিময়ে একটি সিন্ডিকেট ১৫টি উট বাংলাদেশের একজনের জন্য নিয়ে আসার পর সীমান্তে বিজিবি‘র হাতে ১২ জানুয়ারী ৯টি উট আটক করা হয়। এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ থানায় পৃথক ২টি মামলা দায়েরের পর শিবগঞ্জ কাস্টমস্ শুল্ক গুদামে ৯ টি উট জমা দেয়া হয়। মামলায় একটিতে ৮ জনের ও অপরটিতে ৯ জন আসামির নাম উল্লেখ করে পলাতক দেখিয়ে শিবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করে বিজিবি। মামলায় ৯ উটের দাম দেখানো হয় ৪৫ লক্ষ টাকা।

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মহাজোট থেকেই নির্বাচনে অংশ নেবে জাতীয় পার্টি

স্টাফ রিপোর্টার :: আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের সঙ্গে জোট করেই নির্বাচনে অংশ ...