সামাজিক মূল্যবোধ কোথায় যাচ্ছে?

867451মহানন্দ অধিকারী মিন্টু ::

সামাজিক মূল্যবোধ ক্ষয় হতে হতে আজ কোথায় যাচ্ছে? নীতি-নৈতিকতা কোথায়? উদ্বেগ-উৎকন্ঠা-হতাশা আর ইস করেই সব শেষ হচ্ছে।

দৈনিক পত্রিকার পাতায় ধর্ষণ, অপহরণ, শ্লীলতাহানি, যৌনহয়রানী, নারী ও শিশু নির্যাতনের খবর নিত্য ব্যাপার হয়ে দাড়িছে। আর কিছু কিছু অনলাইল পত্রিকা ওই সব খবর খুবই গুরত্বসহকারে প্রকাশ করছে। এ খবরের পাঠকও অনেক। সে যাই হোক খবর গুলো যে বানোয়াট বা ভিত্তি তা নয়।

এটা সমাজ ব্যবস্থার দ্রুত ক্ষয় হচ্ছে তারই একটা চিত্র প্রতিদিনকার প্রিন্ট ও ইলেক্টনিক মিডিয়ায় উঠে আসছে। মানুষ যত আধুনিক হচ্ছে ততই অসভ্য হচ্ছে। ফিরে যাচ্ছে শত শত বছর আগে আদিম যুগে। যখন সভ্যতা বলে কিছু ছিল না।

আজ হতে শত বছর পূর্বের সমাজ ব্যবস্থা আমরা ইতিহাস থেকে জানতে পারি।

কিন্তু বর্তমানে সমাজে একের পর এক নগ্ন ঘটনা ঘটে চলেছে তা দেখে মনে হচ্ছে আমরা আদিম যুগে ফিরে যাচ্ছি। পুত্র কর্তৃক মা, শ্বশুর কর্তৃক পুত্রবধূ, চাচা কর্তৃক ভাইজী ধর্ষণ এটা কোন বর্বরচিত সমাজ ব্যবস্থায় আমরা ফিরে যাচ্ছি। ধর্ষণসহ যৌন হয়রাণীর ঘটনা কম নয়।

সব ঘটনা প্রকাশ পাচ্ছে না থেকে যাচ্ছে অন্তরালে। সম্মানহানী আর লোক লজ্জার ভয়ে অনেক ঘটনা চাপা পড়ে যাচ্ছে। যা একটু সমাজ সচেতন উদ্বিগ্ন আগী সমাজ ব্যবস্থা কেমন হবে তা নিয়ে। প্রাপ্ত বয়স্করা যে সামাজিক অবক্ষয়ের জন্য দায়ী তা নয়। উঠতি বয়সের যুবকেরা প্রতিনিয়ত এ ধরণের ঘটনা ঘটিয়েই চলেছে। মিডিয়ায় খবর আসছে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে ধর্ষণের মত লোমহর্ষক ঘটনা ঘটাচ্ছে।

অনেক ক্ষেত্রে প্রেম প্রত্যাখ্যান করায় প্রেমিক কর্তৃক প্রেমিকার নগ্ন ছবি ধারণ করে মোবাইলের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিচ্ছে ইন্টারনেটে। দেশের দক্ষিণে জেলা খুলনার পাইকগাছা উপজেলার গত দুমাসের চিত্র এখানে তুলে ধরা হলো (বিভিন্ন পত্রিকা সূত্রে পাওয়া) গত ১১ অক্টোবর উপজেলার চাঁদখালী ইউনিয়নের মৌখালী গ্রামে শ্বশুর সেলিম তালুকদার নিজ পুত্রবধূকে ধর্ষণ করে।

এর আগে হরিঢালী ইউনিয়নের সোনাতনকাটি গ্রামের চাচা নজরুল ইসলাম মাদ্রাসা পড়ুয়া ভাইজীকে ধর্ষণ করে। উপজেলার গড়ইখালী ইউনিয়নের হোগলারচক গ্রামের মৃত সিরাজসানার পুত্র মোস্তফা সানা তার সৎ মাকে ধর্ষণ করে। ১৮ আগষ্ট উপজেলার কপিলমুনি ইউনিয়নের মালথ গ্রামের জনৈক ব্যক্তির কলেজ পড়-য়া কন্যাকে মাহমুদকাটি গ্রামের কয়েকজন যুবক গণধর্ষণ করে।

অপরদিকে কপিলমুনি ইউনিয়নের হাউলি গ্রামের নাসের হাজরার বখাটে পুত্র শহীদুল হাজরা একই এলাকার জনৈক ব্যক্তির ৮ম শ্রেণী পড়-য়া কন্যার অশ্লীল ছবি ধারণ করে ছড়িয়ে দেয় বিভিন্ন মোবাইলে। চাঁদখালী ইউনিয়নের চককাওয়ালী গ্রামের ষষ্ঠ শ্রেণী পড়ুয়া শিশু কন্যার নগ্ন ছবি ধারণ করে এক যুবক। পাইকগাছা হাসপাতাল রোড সংলগ্ন এলাকার কলেজ কর্মচারীর ৫ম শ্রেণী পড়ুয়া কন্যার যৌন হয়রাণী করে বখাটে এক যুবক। কপিলমুনি চা পট্টি এলাকায় গণশৌচাগারে এক ব্যবসায়ী বর্তমানে জুয়েলারী ব্যবসায়ী মোকম কর্তৃক যৌন হয়রাণীর শিকার হয় এক শিশু কন্যা। শ্লীলতাহানির শিকার হয় রাড়ুলী ভুবনমোহিনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী। সোনাতনকাটি এলাকার এক হিন্দু যুবক অপহরণ করে এক মুসলিম কন্যাকে।

ওই ঘটনা শুধু নিদিষ্ট অঞ্চলে নয় গোটা বাংলাদেশের চিত্র এক। এসব ঘটনায় না কি রীতিমত উদ্বেগে ফেলে দিচ্ছে সচেতন মহলকে। অনেকেই সামাজিক অবক্ষয় বা আইনের শাসন নেই বলে উল্লেখ করেছেন।

কিন্তু সমাজের ক্ষয় ঠেকাবে কে? আর সব কিছু আইনের শাসন দিয়ে রোধ করা সম্ভব? পুলিশ ও প্রশাসন কোনোটি কাজে আসবে না, যদি না মানুষের মূল্যবোধ কে ফিরিয়ে আনা সম্ভব না হয়। উদ্বেগ উৎকন্ঠা নয় সচেতন বৃদ্ধিই পারে সামাজিক মূলবোধকে ফিরিয়ে দিতে।

 

লেখক: মহানন্দ অধিকারী মিন্টু, সাংবাদিক, পাইকগাছা, খুলনা। ইমেইল: mintu_paikgacha@yahoo.com

মোবাইল: ০১৭১৬-৮৮৮৫৩৮

 

 

 

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

এএইচএম নোমান

সত্তর’র ভয়াল ১২ নভেম্বর: ধ্বংস থেকে সৃষ্টি

এএইচএম নোমান :: ১৯৭০ সালের ১২ নভেম্বর গভীর রাতে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান তথা ...